শুক্রবার   ১৫ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ১ ১৪২৬   ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

নিজেকে নির্দোষ দাবি ড. জাকির নায়েকের

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত : ০৭:০৪ পিএম, ২ ডিসেম্বর ২০১৮ রোববার

নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন মালয়েশিয়ায় আশ্রয় নেয়া ভারতের বিতর্কিত ইসলামি বক্তা জাকির নায়েক। মালয়েশিয়ায় জনসম্মুখে এক বক্তৃতায় তিনি দাবি করেন, তিনি নির্দোষ এবং তার দেশ ভারতের কোনো আইন তিনি লঙ্ঘন করেননি। ইসলামের শত্রুরাই তাকে ফাঁসিয়েছেন। খবর- রয়টার্সের।

মালয়েশিয়ায় বসেই নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন জাকির নায়েক। উত্তর মালয়েশিয়ার পেরিল প্রদেশের কাঙ্গারে আয়োজিত এক সভায় তিনি বলেন, ‘আমি দেশের কোনো আইন ভঙ করিনি। আমাকে লক্ষবস্তু করেছে ইসলামের শত্রুরা।’ভারতের মুম্বাইয়ের ৫১ বছর বয়সী এই ইসলামী চিন্তাবিদের বিরুদ্ধে বিদেশে অবৈধভাবে অর্থ পাচার ও ধর্মীয় বিদ্বেষমূলক মন্তব্য করার অভিযোগ রয়েছে।জাকির নায়েক গ্রেফতার এড়াতে বর্তমানে মালয়েশিয়ায় বসবাস করছেন। ভারত সরকার তাকে ফেরত পাঠাতে মালয়েশিয়া সরকারের নিকট আহ্বান জানালেও তারা তাতে সম্মতি দেয়নি। বরং মালয়েশিয়া সরকার তাকে দেশটির সম্মানসূচক নাগরিকত্ব প্রদান করেছে।সভায় জাকির নায়েক আরো বলেন, ‘যেসব মানুষ চান না সমাজে শান্তি আসুক, তারাই আমার বিরুদ্ধে বলছে। আমি শান্তির বাণী প্রচার করছি। এটা সব জায়গার জন্যই সত্যি, তা আমার দেশ ভারতের ক্ষেত্রেই হোক কিংবা কোনও পশ্চিমা দেশ।’

২০১৬ সালে গুলশানে হোলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার পর জাকির নায়েক ব্যাপক আলোচনায় আসেন। গুলশান হামলাকারীদের মধ্যে অন্তত দুইজন জাকির নায়েককে অনুসরণ করত বলে অভিযোগ ওঠার পর এ নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়।

নিহত জঙ্গিদের দুজন- রোহান ইমতিয়াজ এবং নিবরাস ইসলাম জাকির নায়েককে অনুসরণ করত বলে অভিযোগ রয়েছে। রোহান ২০১৫ সালে জাকির নায়েকের পিস টিভির একটি অনুষ্ঠান তার ফেসবুক পেজে পোস্ট করেছিল।এছাড়া ভারতে বিভিন্ন সময়ে আটক হওয়া জঙ্গিরাও জাকির নায়েককে অনুসরণ করতেন বলে অভিযোগ রয়েছে। পাটনার গান্ধী ময়দান ও বুদ্ধগয়া বিস্ফোরণে আটক জঙ্গিদের কাছ থেকেও জাকিরের বক্তৃতার সিডি ও বই উদ্ধারের দাবি করেছিল দেশটির জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা (এনআইএ)। এমন প্রেক্ষাপটে ভারতে জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরুর দাবি ওঠে।