বৃহস্পতিবার   ১৭ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ১ ১৪২৬   ১৭ সফর ১৪৪১

‘চলতি অর্থবছরে ৫ টন পাট পাতার চা রফতানি করা হবে’

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত : ০১:৩৭ পিএম, ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ মঙ্গলবার

চলতি অর্থবছরে বাংলাদেশ পাট পাতা থেকে উৎপাদিত পাঁচ মেট্রিক টন চা রফতানি করবে বলে জানিয়েছেন বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক।

তিনি বলেন, গত অর্থবছরে বাংলাদেশ পাট পাতা থেকে উৎপাদিত আড়াই মেট্রিক টন চা জার্মানিতে রফতানি করেছে। ওই দেশ থেকে আরো পাঁচ মেট্রিক টনের চাহিদা পাওয়া গেছে। চলতি অর্থবছরে পাঁচ মেট্রিক পাট পাতা থেকে উৎপাদিত চা জার্মানিতে রফতানি করব।

সোমবার সংসদে সরকারি দলের সদস্য ফরিদুল হক খানের এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ কথা জানান।

নোয়াখালী-২ আসনের সংসদ সদস্য মোবাশ্বের আলমের প্রশ্নের জবাবে বস্ত্র শিল্পের উন্নয়নে সরকার আমদানি করা ক্যাপিটাল মেশিনারিজ ও কাঁচামাল আমদানির ওপর শুল্ক রেয়াত সুবিধা দিয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, বস্ত্র খাতের উন্নয়নে সরকার এরইমধ্যে ১০০টি অর্থনৈতিক জোন স্থাপানের কাজ হাতে নিয়েছে।

এ ছাড়া ভোলা-৩ আসনের সংসদ সদস্য নুরন্নবী চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আধুনিক বিশ্বে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকার জন্য দেশের বস্ত্র শিল্পের আধুনিকায়নের জন্য বেশকিছু পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার। এ জন্য বস্ত্র আইন-২০১৮ পাশ করা হয়েছে। এই আইন দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য কাজ করছে বস্ত্র অধিদফতর। এছাড়া ‘বায়িং হাউজ নিবন্ধন প্রজ্ঞাপন-২০১৯’ও জারি করা হয়েছে।

এ ছাড়া রেশম শিল্পের উন্নয়নের লক্ষ্যে রেশম তাঁতীদের ডাটাবেজ তৈরি করা হচ্ছে এবং তাঁতীদের উৎপাদিত রেশম গুটির মূল্য ডাচ-বাংলা ব্যাংকের মাধ্যমে পরিশোধ করা হচ্ছে বলেও সংসদকে জানান বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী।