ব্রেকিং:
কসবায় ভিজিডি কার্ডের চাউল বিতরণ মাদক বিরোধী অভিযানে আটক তিন কারা থাকছে আখাউড়ায় ছাত্রলীগের কমিটিতে সুশাসনের জন্য দুর্নীতিই প্রধান অন্তরায় সরাইলে অপপ্রচার নিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ বিএনপি নেতা দুদুর বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মামলা বিএনপি’র পকেট কমিটি বাতিলের দাবীতে বিক্ষোভ ও ঝাঁড়ু মিছিল ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত মুসলিম যাত্রী থাকায় আমেরিকান এয়ারলাইনসের ফ্লাইট বাতিল নির্ধারিত সময়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে: এলজিআরডি মন্ত্রী ব্যাংক নোটের আদলে বিল ব্যবহারে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হুঁশিয়ারি তিন স্পা সেন্টার থেকে ১৬ নারী ও ৩ পুরুষ আটক দেশে বেড়েই চলেছে ইন্টারনেটের গ্রাহক সংখ্যা শাবিপ্রবি উপাচার্য ফরিদ উদ্দিনের অনিয়ম ও দুর্নীতির শ্বেতপত্র রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সরকারের উদ্যোগের ঘাটতি নেই ক্যাসিনো চালাতে দেয়া হবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তেল স্থাপনায় হামলার প্রতিশোধ নেবে সৌদি আরব অনুপ্রবেশকারীদের চিহ্নিত করছে আওয়ামী লীগ মাদক ব্যবসায়ীদের চেনার উপায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ১১ জন খেলাঘরের জাতীয় পরিষদে

সোমবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৮ ১৪২৬   ২৩ মুহররম ১৪৪১

২৭৫

৬৪ বিদ্যালয়ে শুরু হচ্ছে পাইলট কর্মসূচি

প্রকাশিত: ২৮ আগস্ট ২০১৯  

মাধ্যমিক পর্যায়ে শিক্ষার গুণগত মানোন্নয়নে দেশের ৬৪টি বিদ্যালয়ে ধারাবাহিক মূল্যায়নের কার্যকারিতা যাচাইয়ে শুরু হচ্ছে পাইলট কর্মসূচি। আগামী ৩১ আগস্ট থেকে ৮টি জেলার ১৬টি উপজেলায় তিন মাসের জন্য এ কর্মসূচি শুরু করবে সরকার।

দেশের ৮ জেলার দুটি করে উপজেলায় এ কর্মসূচি চলবে। এর মধ্যে রয়েছে খাগড়াছড়ি জেলার সদর ও দীঘিনালা উপজেলা, চাঁদপুরের সদর ও হাইমচর, সুনামগঞ্জের সদর ও দক্ষিণ সুনামগঞ্জ, চট্টগ্রামের কোতোয়ালী ও রাউজান, ঢাকা মহানগরের খিলগাঁও ও লালবাগ, পঞ্চগড়ের সদর ও আটোয়ারি, সাতক্ষীরার সদর ও তালা এবং বরিশাল জেলার সদর ও বাবুগঞ্জ উপজেলা।

চলতি বছরে শারীরিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য এবং চারু-কারুকলা বিষয়ে ধারাবাহিক মূল্যায়ন ব্যবস্থা চালু করা হয়েছিল। এ দুটি বিষয়ে চালু হওয়া ধারাবাহিক মূল্যায়ন পদ্ধতি কতটুকু কার্যকর হয়েছে তা যাচাই করতেই এই পাইলট কর্মসূচি হাতে নিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর (মাউশি)।

ধারাবাহিক মূল্যায়ন চালু হওয়া দুটি বিষয়ে শিক্ষার্থীদেরকে প্রচলিত কোন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হয় না।

এ বিষয়ে মাউশির পরিচালক (মাধ্যমিক) অধ্যাপক ড. আব্দুল মান্নান বলেন, শিক্ষার গুণগত মানোন্নয়নে আমরা প্রচলিত পরীক্ষা পদ্ধতিটিতে কিছু পরিবর্তন আনতে চাচ্ছি। যে পদ্ধতিতে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করা হয় সেখানে বুদ্ধিমত্তার চেয়ে মুখস্থ বিদ্যাকে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়। এভাবে পরীক্ষায় ভালো ফল হয় কিন্তু পৃথিবী যেভাবে বদলাচ্ছে সেখানে খাপ খাওয়ানো যায় না। শিক্ষার্থীদের যুগোপযোগী করে গড়ে তুলতে আমাদেরকে ধারাবাহিক মূল্যায়নে যেতে হবে। একটি সে চেষ্টারই অংশ।

তিনি বলেন, ধারাবাহিক মূল্যায়ন পদ্ধতিটি ভালোভাবে কাজ করলে আমরা আরো কয়েকটি বিষয়ে পরীক্ষা উঠিয়ে দেব। তিন মাসের পাইলট কর্মসূচিতে কী ফল আসে সেটি এখন দেখার বিষয়।

তিনি জানান, তিন মাসের এ কর্মসূচি বাংলাদেশ পরীক্ষা উন্নয়ন ইউনিট, সেকেন্ডারি অ্যাডুকেশন সেক্টর ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রাম (সেসিপ) ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হবে। এ জন্য তারা একটি পাঠ্যক্রমও তৈরি করেছেন। যেখানে প্রতিটি বিদ্যালয়ে শারীরিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য বিষয়ে ২০ থেকে ২১টি ক্লাস নেয়া হবে। প্রতিটি ক্লাসের সময় হবে ৫০ মিনিট।

এ ছাড়া বিভিন্ন শ্রেণিতে সেকশন ও বিষয় ভিত্তিক কমপক্ষে তিনটি করে ক্লাস নেয়া হবে। এর জন্য প্রতিটি বিদ্যালয়ে বিষয়ভিত্তিক শিক্ষক থাকবে। যদি শিক্ষক না থাকেন তাহলে খণ্ডকালীন শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর