ব্রেকিং:
বিমানের যাত্রী সেবার মান বাড়ানোর আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর ‘গাঙচিল’ এর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী বিএনপি ছেড়ে জাতীয় পার্টিতে যোগ দিলেন ২ নেতা! গ্রেনেড হামলার দায় খালেদা জিয়া এড়াতে পারেন না: তথ্যমন্ত্রী গর্ভপাতকৃত সন্তান ব্যাগে ভরে থানায় প্রেমিকা, প্রেমিক উধাও দুর্নীতি নির্মূলে নিরলসভাবে কাজ করছে কমিশন ‘প্রত্যাবাসনের বিপক্ষে প্রচারণা চালালে ব্যবস্থা’ শিগগিরই ভূমি সেবায় আসছে ই-পেমেন্ট গেটওয়ে কাশ্মীর ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়: বাংলাদেশ গ্রেনেড হামলায় পলাতকদের রায় কার্যকর সম্ভব: আইনমন্ত্রী মাধ্যমিকে কর্মমুখী শিক্ষা বাধ্যতামূলক হচ্ছে শিশু আইনের অসঙ্গতি সংশোধন চান হাইকোর্ট রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে প্রস্তুত ঘুমধুম পয়েন্ট আদালতে বঙ্গবন্ধুর ছবি টাঙানোর নির্দেশনা চেয়ে রিট বিএনপির পক্ষ থেকে ছিল ২১ আগস্টের হামলা: প্রধানমন্ত্রী টিউশনির টাকায় গুজবের বিরুদ্ধে ৩১ দিন হাঁটলেন সাইফুল কন্ডিশনিং ক্যাম্পেই যাত্রা শুরু নতুন দুই কোচের প্রথম সমকামী ক্রিকেটার হিসেবে মা হচ্ছেন স্যাটারওয়েট তারেকের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি কাদেরের স্মার্ট কার্ড অনলাইনে সংশোধন করবেন যেভাবে

শুক্রবার   ২৩ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৭ ১৪২৬   ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

৮৭৮

৩৯ বছর বয়সে ৪৪ সন্তানের জন্ম দিলেন এই নারী

প্রকাশিত: ১৪ মে ২০১৯  

বয়স মাত্র ৩৯, তবে এর মধ্যেই ৪৪ সন্তানের জন্ম দিয়ে বিশ্বে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন উগান্ডার নারী ম্যারিয়ন নাবাতানজি। ফলে তাকে উগান্ডায় গর্ভধারণে সবচেয়ে সক্ষম নারীর খেতাব দিয়েছেন দেশটির চিকিৎসকরা। 

তিনি একসঙ্গে চার সন্তান, চারবার একসঙ্গে তিন সন্তান এবং ছয়বার যমজের জন্ম দিয়েছেন। এছাড়া একসঙ্গে পাঁচ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন এমন ঘটনাও ঘটেছে তিনবার।

বৃটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মিরর জানায়, মাত্র ১২ বছর বয়সে বিয়ে হয় ম্যারিয়নের। তখন তার স্বামীর বয়স ছিল ৪০ বছর। বিয়ের এক বছরের মাথায় যমজ সন্তানের জন্ম দেন তিনি। এরপর থেকে ম্যারিয়নের ২৩ বছর বয়স পর্যন্ত একে একে তার ঘরে আসে ২৫ সন্তান।  

আড়াই বছর আগে ম্যারিয়ন শেষ সন্তান প্রসব করেন। এ সময়ও তিনি জন্ম দেন যমজ। তবে প্রস্রবের জটিলতার কারণে তার এক সন্তানের মৃত্যু হয়। 

ম্যারিয়ন জানান, আমি ছয় সন্তানের মা হতে চেয়েছিলাম। কিন্তু আমি চারবার মা হই এবং প্রত্যেকবারই যমজ সন্তানের জন্ম দিই। তবে আট সন্তান আমার চাওয়ার চেয়েও বেশি ছিল। তাই আমি হাসপাতালে গিয়ে ডাক্তারকে বলি, তিনি যেন আমার সন্তান জন্ম দেওয়া বন্ধ করে দেন। আমি জন্মনিরোধক ব্যবহারেরও চেষ্টা করেছি, কিন্তু সেগুলো কাজ করেনি। উল্টো ডাক্তারি পরীক্ষায় আমার হাইপাররোভ্যুলেশন নামে বিরল এক শারীরিক অবস্থা ধরে পড়ে। এটি এমন একটি অবস্থা যেখানে আক্রান্ত নারী যখনই মা হবেন তখন তিনি যমজ, তিন বা চারটি সন্তানের জন্ম দেবেন। 

তিনি আরো জানান, শেষ সন্তানের জন্মের পরই তার স্বামী তাকে ছেড়ে চলে যান। তখন থেকেই তার অনেক কষ্টে দিন কাটছে। সন্তানদের মুখে খাবার তুলে দিতে করতে হয়েছে বিভিন্ন ধরনের কাজ। তার বড় ছেলের নাম ইভান কিবুকা (২৩)। ছোট ছোট ভাই-বোনের মুখে খাবার জোটাতে তারও ছাড়তে হয়েছে পড়ালেখা, আর যোগ দিয়েছেন পরিবারের জন্য অর্থ উপার্জনে।    

দেখুন ভিডিও>>> 

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর