ব্রেকিং:
প্রতিদিন কয়েকবার গরম পানির ভাপ নিয়েছি করোনায় ব্যতিক্রমী উদ্যোগ এমপিওভুক্তির সুখবর পেল ১৬৩৩ স্কুল-কলেজ ২০ হাজারের বেশি আইসোলেশন শয্যা প্রস্তুত রয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে মানুষ, দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে বৈশ্বিক ক্রয়াদেশ পূরণে সক্ষম বাংলাদেশ ॥ শেখ হাসিনা লোকসান ঠেকাতে সরাসরি ক্ষেত থেকে সবজি কিনছে সেনাবাহিনী করোনা পরীক্ষায় দেশে চালু হলো প্রথম বেসরকারি ল্যাব যে দোয়ার আমলে স্মরণশক্তি বৃদ্ধি পাবে ইনশাআল্লাহ! আল্লাহ তিন ধরনের লোকের দোয়া ফিরিয়ে দেন না করোনা রোগীদের বাড়ি প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার ভেন্টিলেটর-সিসিইউ স্থাপনে জরুরি প্রকল্প বঙ্গবন্ধুর মতো নেতা পৃথিবীতে খুব কম দেখা যায়: ট্রাম্প গবেষণা প্রটোকল জমা না দিয়েই বিষোদগার করছেন জাফরুল্লাহ জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচিতে নিয়োগ করোনা আক্রান্তের শরীরের অক্সিজেনের পরিমাণ ঘরেই পরীক্ষার উপায় মধ্যবিত্তরাও খাদ্যসহায়তার আওতায়: শিল্প প্রতিমন্ত্রী কর্মস্থল ত্যাগকারীদের তালিকা চায় মন্ত্রণালয় নাসিরনগরে শিশু নিহতের ঘটনায় গ্রেফতার ২ দেশে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্ত, আরো ৮ মৃত্যু
  • সোমবার   ০১ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৯ ১৪২৭

  • || ০৯ শাওয়াল ১৪৪১

১৪৮

২৬ দিনেই রেমিট্যান্স আসলো ১০৪ কোটি ডলার

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ৩০ অক্টোবর ২০১৯  

সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপে ক্রমেই বাড়ছে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সের প্রবাহ। মূলত বেশি টাকা পাওয়ার আশায় প্রবাসীরা বৈধ চ্যানেলে ফিরে আসছেন। চলতি মাসে ২৬ দিনেই প্রবাসীরা ১০৪ কোটি ডলার দেশে পাঠিয়েছেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্যমতে, গত এপ্রিলের শুরুতে প্রতি ডলারের আন্ত:ব্যাংক গড় মূল্য ছিল ৭৯ টাকা ৬৮ পয়সা। চলতি মাসে শুরুতে প্রতি ডলারের গড় মূল্য বেড়ে হয় ৮০ টাকা ৩৫ পয়সা। ডলারের বিপরীতে টাকা দুর্বল হয়ে পড়ায় বেশি মুনাফা পাচ্ছেন প্রবাসী আয়ের সুবিধাভোগীরা। এছাড়া বৈধভাবে রেমিট্যান্স পাঠালে সরকার ২ শতাংশ প্রণোদনা দেয়ায় প্রবাসীরা ব্যাংকিং চ্যানেলে বেশি অর্থ পাঠাচ্ছেন।

সূত্রমতে, চলতি বছরের জানুয়ারিতে প্রবাসী আয় এসেছিল ১০০ কোটি ডলার, ফেব্রুয়ারিতে আসে ৯৪ কোটি ডলার, মার্চে ১০৭ কোটি ডলার ও এপ্রিলে আসে ১০৯ কোটি ডলার। তবে চলতি মাসের প্রথম ২৬ দিনেই প্রবাসী আয় এসেছে ১০৪ কোটি ডলার। মাস শেষে প্রবাসী আয় ১১০ কোটি ডলার ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা করছেন ব্যাংক কর্মকর্তারা।

চলতি মাসের ২৬ দিনে আসা ১০৪ কোটি ডলারের মধ্যে ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ২২ কোটি ডলার, অগ্রণী ব্যাংকের মাধ্যমে ১১ কোটি ডলার, জনতা ব্যাংকের মাধ্যমে ৭ কোটি ডলার আর সোনালী ব্যাংকের মাধ্যমে আসে ৯ কোটি ডলার।

বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা জানান, বৈধ ও অবৈধ চ্যানেলে ডলারের বিনিময়মূল্যের পার্থক্য কমে এসেছে। এ ছাড়া কয়েকটি দেশে অবৈধ হুন্ডি ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে অভিযান চলছে। প্রবাসী আয় বিতরণের সঙ্গে যুক্ত দেশের মোবাইল ব্যাংকিংয়ের কিছু এজেন্টের লাইসেন্স বাতিল করা হয়েছে। এবং বৈধভাবে রেমিট্যান্স পাঠালে সরকার ২ শতাংশ প্রণোদনা দেয়ায় প্রবাসী আয় বাড়তে শুরু করেছে।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
অর্থনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর