ব্রেকিং:
প্রতিদিন কয়েকবার গরম পানির ভাপ নিয়েছি করোনায় ব্যতিক্রমী উদ্যোগ এমপিওভুক্তির সুখবর পেল ১৬৩৩ স্কুল-কলেজ ২০ হাজারের বেশি আইসোলেশন শয্যা প্রস্তুত রয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে মানুষ, দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে বৈশ্বিক ক্রয়াদেশ পূরণে সক্ষম বাংলাদেশ ॥ শেখ হাসিনা লোকসান ঠেকাতে সরাসরি ক্ষেত থেকে সবজি কিনছে সেনাবাহিনী করোনা পরীক্ষায় দেশে চালু হলো প্রথম বেসরকারি ল্যাব যে দোয়ার আমলে স্মরণশক্তি বৃদ্ধি পাবে ইনশাআল্লাহ! আল্লাহ তিন ধরনের লোকের দোয়া ফিরিয়ে দেন না করোনা রোগীদের বাড়ি প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার ভেন্টিলেটর-সিসিইউ স্থাপনে জরুরি প্রকল্প বঙ্গবন্ধুর মতো নেতা পৃথিবীতে খুব কম দেখা যায়: ট্রাম্প গবেষণা প্রটোকল জমা না দিয়েই বিষোদগার করছেন জাফরুল্লাহ জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচিতে নিয়োগ করোনা আক্রান্তের শরীরের অক্সিজেনের পরিমাণ ঘরেই পরীক্ষার উপায় মধ্যবিত্তরাও খাদ্যসহায়তার আওতায়: শিল্প প্রতিমন্ত্রী কর্মস্থল ত্যাগকারীদের তালিকা চায় মন্ত্রণালয় নাসিরনগরে শিশু নিহতের ঘটনায় গ্রেফতার ২ দেশে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্ত, আরো ৮ মৃত্যু
  • মঙ্গলবার   ০৭ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২৩ ১৪২৭

  • || ১৫ জ্বিলকদ ১৪৪১

২২৯

সোনার বাংলার বিরুদ্ধে নতুন ষড়যন্ত্র

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ৬ মার্চ ২০২০  

আগামী ১৭ মার্চ থেকে শুরু হচ্ছে বছরব্যাপী বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উদযাপন। ওই দিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার জন্য বাংলাদেশের পক্ষ থেকে বিশ্বের প্রথম সারির নেতাদের পাশাপাশি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিলো। 

যার প্রেক্ষিতে, বাংলাদেশের আমন্ত্রনকে সাধুবাদ জানিয়ে মুজিবর্ষ উদযাপনের জন্য ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফর উভয় দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে অনেক আগেই নিশ্চিত করা হয়েছে।

কিন্তু অতি সম্প্রতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, বাংলাদেশের চলমান উন্নয়ন ও মুজিববর্ষকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে দেশের সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী জামায়াত ও বিএনপির দুসররা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় এন আর সি ও ক্যাব নিয়ে জনমনে ধর্মীয় বিদ্বেষ ও ভারত বিরোধী মনোভাব সৃষ্টির অপপ্রয়াস চালাচ্ছে সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীগুলো। 

এছাড়া উক্ত গোষ্ঠীটি, দিল্লীর সহিংসতাকে পুজি করে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আসন্ন বাংলাদেশ সফর নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র বিদ্বেষমূলক প্রচারনা চালাচ্ছে। যা বাংলাদেশের স্বাধীনতার সবচেয়ে বড় বন্ধু ভারতের সাথে আমাদের অসম্প্রদায়িক বন্ধুসুলভ সম্পর্ককে প্রশ্নবিদ্ধ করছে।

কোন দেশের রাষ্ট্র প্রধানকে আমন্ত্রণ জানানোর ক্ষেত্রে যে বিষয়গুলো আমাদের সকলের অবগত থাকা উচিতঃ

১. কোন রাষ্ট্র প্রধানের অন্য দেশ সফরের বিষয়টি বহু আগে থেকেই নির্ধারণ করা হয়। 
সেদিক বিবেচনায়, করোনা ভাইরাসের কারনে চায়নার রাষ্ট্র প্রধান শি জিং পিং কিংবা দিল্লীর ঘটনায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ ফিরিয়ে নেওয়া সম্পূর্ন অবাস্তব।
২. কোন দেশের অভ্যন্তরীণ সমস্যার কারণে সে দেশের সরকার প্রধানের অন্যদেশ/পার্শ্ববর্তী দেশ সফর বাতিলের কোন কুটনৈতিক নজির নেই।
৩. মুজিব বর্ষের মতো তাৎপর্যপূর্ণ একটি অনুষ্ঠানে বন্ধুপ্রতিম রাষ্ট্রের সরকার প্রধানের সফর নিয়ে ধর্মীয় আবেগের ধোঁয়াশা সৃষ্টি করে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক।
৪. বাংলাদেশ অসাম্প্রদায়িক জাতি। এদেশের মানুষ খুবই অতিথি পরায়ণ। কোন অতিথিকে দাওয়াত দিয়ে তা আবার বাতিল করা এদেশের ঐতিহ্যের বাইরে।

অতিথিয়তা ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি এ দেশের বহুকালের ঐতিহ্য। স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের সংবিধানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু ধর্মনিরপেক্ষতার মূলনীতি যুক্ত করে মূলত অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করে গেছেন। 
তারই সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির আদর্শ দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত, বিশ্বজুড়ে সমাদৃত বিভিন্ন জাতি, গোষ্ঠী, ধর্ম, বর্ণ সবার অনন্য এ সম্প্রীতি।
তাই, সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হয়ে, সব ধর্ম-বর্ণ, জাতি-সত্ত্বা নির্বিশেষে, সকলের অংশগ্রহণে মুজিববর্ষ-২০২০ কে সাফল্য মন্ডিত গড়ে তুলি।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
জাতীয় বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর