ব্রেকিং:
দুর্ধর্ষ মাদক ব্যবসায়ী আটক সাংবাদিকতায় দেশ সেরা অ্যাওয়ার্ড পেলেন মিশু জেলা উন্নয়ন সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত বিষ প্রয়োগে সর্বশান্ত মৎস্য চাষী বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সচিবকে সংবর্ধনা পাঁচ দফা দাবিতে ফারিয়ার মানববন্ধন মসজিদের দেয়ালে ফাটল, আতঙ্কে মুসল্লিরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মাদক উদ্ধার মাদক বিরোধী প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত মাদকসেবীর হুমকিতে স্কুলে যাওয়া বন্ধ শিক্ষার্থীর ফুটপাত দখলমুক্ত করলেন ইউএনও শারীরিক সক্ষম হলেই রক্তদান করবে শিক্ষার্থীরা একই তেলে বার বার রান্না ক্যান্সার ও হৃদরোগের কারণ বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণার ওপর জোর দেয়ার তাগিদ তথ্যমন্ত্রীর মুক্ত বাণিজ্য চুক্তিকে অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে: বাণিজ্যমন্ত্রী নারীর মনে জায়গা পাওয়ার উপায় পানিতে পড়া ফোন যেভাবে দ্রুত সারিয়ে তুলবেন যে কারণে ‘সুদ’ হারাম উদ্বোধন হলো শেখ কামাল ক্লাব কাপ আওয়ামী লীগের সম্মেলন মানেই নতুন মুখ: কাদের

সোমবার   ২১ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৫ ১৪২৬   ২১ সফর ১৪৪১

১৭

শাকিবের বিরুদ্ধে ফাইট ডিরেক্টরের অভিযোগ

প্রকাশিত: ৯ অক্টোবর ২০১৯  

আগামী ২৫ অক্টোবর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন। এবারের ভোটার তালিকায় ফাইট ডিরেক্টর শামীমের নাম পুনরায় সংযোজন করা হয়নি। এ ব্যাপারে সোমবার সন্ধ্যায় শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানের কাছে উকিল নোটিশ নিয়ে হাজির হন শামীম।

শামীম বলেন, একবার শুটিং করার সময় শাকিব খানের সঙ্গে আমার হাতাহাতি হয়। ব্যক্তিগত জেলাসি থেকে শাকিব খান অন্যায়ভাবে আমার সদস্য পদ বাতিল করেন। শিল্পী সমিতির বর্তমান কমিটি নয়, শাকিব-অমিত প্যানেল অন্যায়ভাবে আমার সদস্যপদ বাতিল করেছিল।

এ ফাইট ডিরেক্টর বলেন, আমি মনে করেছিলাম, বিষয়টি সুরাহা করে নতুন কমিটি আমার ভোটাধিকার ফিরিয়ে দেবেন। কিন্তু শিল্পী সমিতির নির্বাচন উপলক্ষে প্রকাশিত ভোটার তালিকায় আমার নাম না দেখে বর্তমান সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে উকিল নোটিশ নিয়ে যাই। 

উকিল নোটিশ প্রসঙ্গে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান বলেন, শামীম ভাই গত দুই বছরে বিষয়টি নিয়ে আমাদের কাছে আসেননি। যে কারণে সদস্য পদ ফিরিয়ে দেয়া হয়নি। শাকিব খান-অমিত হাসান প্যানেল যখন শিল্পী সমিতির দায়িত্বে ছিল তখন তার সদস্য পদ বাতিল করা হয়। বিষয়টি শামীম ভাইকে বুঝিয়ে বলেছি। তিনি বিষয়টি বুঝতে পেরে উকিল নোটিশ ফিরিয়ে নেন। 

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে শোনা যায়, এই নির্বাচনে মিশা-জায়েদ ও মৌসুমী-তায়েব প্যানেল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। দুই প্যানেল থেকে মনোনয়নপত্র কিনলেও শেষ পর্যন্ত মৌসুমী-তায়েব প্যানেল মনোনয়ন জমা দেননি। মৌসুমী স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। 

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর