ব্রেকিং:
জমি-পেনশন হাতিয়ে বাবাকে ফেলে গেছে সন্তানেরা ফের বৃষ্টিতে ভেসে যাবে বাংলাদেশের স্বপ্ন? ভারত-পাকিস্তানের সম্ভাব্য একাদশ বিতর্ক মানুষকে সাহসী ও আত্মবিশ্বাসী করে : শিক্ষামন্ত্রী মুক্তিযুদ্ধের চেতনা-দক্ষতা বিবেচনায় সেনা সদস্যদের পদোন্নতি নিঃশর্ত ক্ষমা চাইলেন নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগের লক্ষ্য উন্নত সমৃদ্ধ দেশ গড়া ছোট ভাইকে বাঁচাতে গিয়ে বড় ভাইও ট্রেনের নিচে প্রস্তাবিত বাজেট ব্যবসা সহায়ক: এফবিসিসিআই শেষ ইচ্ছা পূরণ হল না ফিলিস্তিনি শিশুটির মুজিব কোটেই ছয় দফা! মুর্তজার মৃত্যুদণ্ড বাতিল করল সৌদি আরব ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণেই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছি’ আজ বিশ্ব বাবা দিবস কেন সুন্দর গন্ধ ভেসে আসে যুবতীর কবর থেকে…কেন? কয়েলের আগুনে ঘর, গরুসহ নগদ টাকা পুড়ে ছাই ! নবীনগরে ‘সেভ আওয়ার জেনারেশন’এর আত্মপ্রকাশ বাজেটে সুদমুক্ত ক্ষুদ্রঋণে বরাদ্দ বেড়েছে গবেষণা ও উন্নয়ন খাতে বরাদ্দ ৫০ কোটি টাকা পদ্মা সেতুসহ ১০ মেগা প্রকল্পে বরাদ্দ ৩৯ হাজার কোটি টাকা

রোববার   ১৬ জুন ২০১৯   আষাঢ় ২ ১৪২৬   ১২ শাওয়াল ১৪৪০

৯২৮

লিচুতে সয়লাব বাজার

প্রকাশিত: ২৪ মে ২০১৯  

ব্রাহ্মবাড়িয়ার আখাউড়া-বিজয়নগরে হয়েছে বাণিজ্যিক লিচু চাষ। আর এসব লিচু বাজারে সয়লাব হওয়ায় চারদিকে ছড়াচ্ছে মিষ্টি গন্ধ। এতে ভীড় করছেন ব্যবসায়ীসহ ক্রেতা সাধারণ।
দুই উপজেলার ১০ টি ইউপির অর্ধশতাধিক গ্রামে লিচু বাগান করেছেন সবাই। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এসব লিচু আখাউড়ার আজমপুর, রামধননগর, চানপুর, দুর্গাপুর, খারকোট, মিনারকোট, নিলাখাত, বিজয়নগরের আওলিয়া বাজার, মুকুন্দপুরসহ বেশ কয়েকটি গ্রামের বাজারে ঠাসা অবস্থায় লিচু দেখা গেছে।
চাষি নজু মিয়া, ফিরোজ ও লোকমান হোসেন বলেন, মৌসুমের শুরুতে অতিরিক্ত বৃষ্টি ও কালবৈশাখী ঝড়ে সামান্য ক্ষতি হলেও ফলন ভাল হয়েছে। বাজারে আকার বেধে প্রতি হাজার লিচু ১৮০০ থেকে ২৩০০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। এখানে দেশীয়, চাইনা, পাটনাই ও বোম্বাই জাতের লিচু বেশ চাষ হয়। এ লিচুর উৎপাদন বেশি ও পোকা মাকড়ের আক্রমণ তুলনামূলক কম।
বাগান মালিক মো. হোসেন মিয়া বলেন, তিনটি বাগানে ছোট-বড় মিলে ৭৫ টি লিচুর গাছ রয়েছে। অতিরিক্ত বৃষ্টি ও কালবৈশাখী ঝড়ে কিছু ক্ষতি হলেও ফলন ভাল হয়েছে। স্থানীয় বাজারে ভাল দাম পাওয়া যাচ্ছে। এ পর্যন্ত ১৮ হাজার টাকার লিচু বিক্রি করেছি। শেষ পযর্ন্ত এক লাখ টাকার বেশি লিচু বিক্রি করতে পারব।
ভৈররের ব্যবসায়ী আলী হোসেন, যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো থাকায় পাঁচ বছর ধরে আওলিয়া বাজার ও আখাউড়া থেকে লিচু কিনে ভৈরবে বিক্রি করছি। প্রতিদিন গড়ে ৪০-৫০ হাজার টাকার লিচু কিনে বাজারে বিক্রি করি।
আখাউড়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো.একরাম হোসেন বলেন, দুটি উপজেলায় লিচু উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ছিল চারশত হেক্টর জমি। আবহাওয়া অনুকুল ও পরিচর্যার কারণে চলতি মৌসুমে লিচুর বাম্পার ফলন হয়েছে। ফলন ভালো করতে চাষিদের সর্বাত্বক পরামর্শ দেয়া হয়।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর