ব্রেকিং:
টিউশনির টাকায় গুজবের বিরুদ্ধে ৩১ দিন হাঁটলেন সাইফুল কন্ডিশনিং ক্যাম্পেই যাত্রা শুরু নতুন দুই কোচের প্রথম সমকামী ক্রিকেটার হিসেবে মা হচ্ছেন স্যাটারওয়েট তারেকের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি কাদেরের স্মার্ট কার্ড অনলাইনে সংশোধন করবেন যেভাবে একজনের কিডনি ও লিভারে বাঁচলো তিনজনের প্রাণ পিতলের পুতুলকে সোনার মূর্তি বলে বিক্রি করে, চার জীনের বাদশা আটক বাংলাদেশ ও ইন্দোনেশিয়ার সেনাপ্রধানদের সৌজন্য সাক্ষাৎ প্রধানমন্ত্রীকে ভারত সফরে মোদির আমন্ত্রণ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার মান নিশ্চিত করতে হবে: রাষ্ট্রপতি আজ ভয়াল ২১ আগস্ট পানিবণ্টন সমস্যার সমাধান হবে: জয়শঙ্কর কুকুরের মুখ থেকে নবজাতককে বাঁচালেন পুলিশ কর্মকর্তা রক্তদানে সবাইকে এগিয়ে আসা উচিত: সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নয় বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী পালনের আগ্রহ প্রকাশ ভারতের মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষা ৪ অক্টোবর বৃহস্পতিবার ‘গাঙচিল’ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগী কমছে মিন্নির দোষ স্বীকার নিয়ে এসপির মন্তব্য জানতে চান হাইকোর্ট

বৃহস্পতিবার   ২২ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৬ ১৪২৬   ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

১১১৯

লাশের বাহক মঈন আলী

প্রকাশিত: ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯  

অভাবের সংসারে কিনেছেন তিন চাকার ইঞ্জিন চালিত একটি ভটভটি। দুই থেকে তিন বছর ধরেই চালাচ্ছেন। যাত্রী বিভিন্ন গন্তব্যে নিয়ে যেতেন। হঠাৎ একদিন দুপুরে স্টলে বসে চায়ের কাপে চুমুক দিচ্ছিলেন। এসময় আসগর আলী দৌড়ে তার কাছে এলেন। বলতে লাগলেন সড়কের পাশে খাদের কিনারায় একটি অর্ধগলিত লাশ দেখে এসেছেন। 

এরপর থেকে লাশ বহন শুরু করেন। চিন্তায়ও কিছু পরিবর্তন এলো। ভাবতে লাগলেন সবাইতো যাত্রী বহন করছে কিন্তু লাশ বহনের লোকতো পাওয়া যায় না। তখন থেকেই লেগে গেলেন লাশ বহনে। এই লাশের পিছু লেগে থাকাই তার পেশা হয়ে গেলো। কোনোদিন লাশ নিয়ে পরিবারের লোকজনদের ও পুলিশের নানান বিড়ম্বনায় পড়েন। পঁচন ধরা অর্ধগলিত লাশ কেউ বহন করতে চায় না। 

ঠিক তখনই অর্থাৎ গত প্রায় ১৪ বছর আগে মইন আলী সিদ্ধান্ত নেয় তিনি শুধুমাত্র লাশ বহন করবেন। নওগাঁর রাণীনগরের মইন আলীর পেশায় লাশ বহন করা। 

পুলিশকে বলে রেখেছেন, স্যার লাশ নিয়ে আপনাদের আর কোনো সমস্যায় পড়তে হবে না। আমাকে খবর দিবেন, আমি লাশ নিয়ে চলে আসবো। সেই থেকে রাণীনগর উপজেলায় ব্যক্তি পর্যায় ও পুলিশের পক্ষ থেকে লাশ বহনের কাজটি করেন। এ পর্যন্ত তিনি প্রায় ১ শ’ ১০ টি লাশ বহন করেছেন। অজ্ঞাত পঁচন ধরা ভাসমান দুর্গন্ধ হওয়া লাশ, রেল ও সড়ক দুর্ঘটনায় ক্ষত-বিক্ষত, হত্যা-আত্মহত্যাসহ সব ধরনের লাশ কাপড় বা চাটায় দিয়ে মোড়ানো ও বহনের ক্ষেত্রে তিনিই যথেষ্ট। তার সংসারও চলছে এখন বেশ স্বাচ্ছন্দে। তিনি নিজেই তৈরি করেছেন সাদা পোশাক। ঘটনাস্থল যত দূরে ভাড়াটাও তত বেশি। পঁচনশীল লাশের ভাড়া খুব ভালোই হয়। প্রায় দেড় থেকে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত এক একটি লাশের ভাড়া হয়। এছাড়াও বিপদগ্রস্ত পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে লাশ বহনের মাধ্যমে এক রকম সহযোগিতাও করেন তিনি। 

এই লাশ বাহকের নাম মঈন আলী। নওগাঁর রাণীনগর উপজেলা সদরের সিম্বা গ্রামের আশরাব আলী মণ্ডলের চার ছেলে-মেয়ের সংসার। সবার ছোটো তিনি। বাবার মৃত্যুর পর সবাই আলাদা হয়ে যায়। একা থাকেন মঈন।  

কিছুদিন পর বিয়ে করেন। কয়েক বছর পর জন্ম নেয় এক মেয়ে ও এক ছেলে। ভটভটি চালিয়ে মেয়েকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করিয়েছেন। ছেলেও প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৪র্থ শ্রেণিতে লেখাপড়া করছে। অভাবের সংসারে বেশি দূর লেখাপড়ার খরচ ব্যয় করা অসম্ভব। তাই বড় মেয়ের লেখাপড়া বন্ধ হয়ে যায়। কয়েক বছর পর মেয়েকে বিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়, কিন্তু বিয়ের খরচ বাবদ কোনো টাকা-পয়সা তার কাছে নেই। তাই বাবার দেয়া দেড় শতক ভিটে-মাটি বড় ভাইদের কাছে বিক্রি করে মেয়েকে বিয়ে দেন। কিছুদিনের মধ্যে বিক্রি করা বসত ঘর ছেড়ে দিতে হয়। কোথায় থাকবে? কি করবে? 

এমন দুঃসময়ে মো: ইসরাফিল আলম এমপির ছোটো ভাই সিরাজুল ইসলাম চাঁদ পাশে দাঁড়ালেন। ঝিনা গ্রামের পাশে গুচ্ছগ্রামে বসবাসের ব্যবস্থা করে দেন। সেই থেকে মঈন আলী ওই গুচ্ছ গ্রামেই বসবাস করছেন।

উপজেলার সিম্বা গ্রামের ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. সাইদুল ইসলাম ফকির বলেন, মইন আলী আমার গ্রামের ছেলে। সে ১৫/১৬ বছর আগে একটি ভটভটি কিনে এই এলাকায় যাত্রী বহনের কাজ করত। বছর কয়েক পর যাত্রী বহন বাদ দিয়ে শুধুমাত্র লাশ বহনের কাজ শুরু করে মইন। আমার জানা মতে, এই কাজ করে সে ভালোই উপার্জন করে। 

রাণীনগর থানার ওসি এএসএম সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আমি এই থানায় আসার পর থেকেই দেখছি লাশ বহনের কাজ মইন আলীই করছে। শুনেছি সে দীর্ঘদিন ধরে এই কাজের সঙ্গে জড়িত। থানায় মঈনের মোবাইল নাম্বার রাখা আছে। যখন প্রয়োজন পড়ে তখন মঈনকে ফোন করে ডেকে নেয়া হয়।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর