ব্রেকিং:
মশারা সংগীতচর্চা করছে, মেয়রকে প্রধানমন্ত্রী দুর্ভোগের সুযোগ নিয়ে দাম বাড়ানো অমানবিক: প্রধানমন্ত্রী দুর্নীতি হলে কাউকে ছাড়ব না: প্রধানমন্ত্রী ঘরে বসেই করোনা ভাইরাসের ঝুঁকি পরিমাপ করার ওয়েবসাইট চালু হয়েছে কভিডের পরীক্ষা হবে আরো ৯টি ল্যাবে অহেতুক পিপিই পরবেন না, যারা সেবা করবেন তারাই পরবেন: প্রধানমন্ত্রী মানুষকে সচেতন করা গেছে বলেই করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে করোনা শনাক্তে প্রশ্ন যাবে মোবাইল ফোনে দেশে করোনায় নতুন করে আক্রান্ত দুই, মোট ৫১ ৯ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি, ১০-১১ সাপ্তাহিক বন্ধ রোগ-ব্যাধি ও বিপদ-আপদ থেকে মুক্তির দোয়া নজরদারিতে গুজব সৃষ্টিকারীরা করোনায় অর্ধশত বাংলাদেশির মৃত্যু কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত ছেয়ে গেছে সাগরলতায় ত্রাণ নিয়ে অনিয়ম-দুর্নীতি সহ্য করা হবে না: প্রধানমন্ত্রী করোনা নিয়ে গুজব ছড়াচ্ছে জেকে ব্রেকিং নিউজসহ বেনামি নিউজ পোর্টাল! অন্ধপল্লীর দুস্থদের পাশে “সুহৃদ” স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মানব কল্যাণের উদ্যোগে জীবানুনাশক স্প্রে ও পরিষ্কার অভিযান আশুগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় জীবাণুনাশক স্প্রে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আড়াই’শ পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ
  • বুধবার   ০১ এপ্রিল ২০২০ ||

  • চৈত্র ১৭ ১৪২৬

  • || ০৭ শা'বান ১৪৪১

১২২

রাতকানা রোগ এখন এক শতাংশেরও নিচে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ১২ জানুয়ারি ২০২০  

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, পাকিস্তান আমলে আমাদের দেশে রাতকানা রোগ ছিল ১০ ভাগেরও উপরে। তবে সরকারের যথাসময়ে সঠিক কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করার ফলেই দেশে পোলিও নির্মূলসহ রাতকানা রোগ এখন এক শতাংশেরও নিচে নেমে এসেছে।

শনিবার দুপুরে রাজধানীর শিশু হাসপাতালে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইনের টিকাদান কর্মসূচি উদ্বোধনের সময় তিনি এসব কথা বলেন। 

জাহিদ মালেক বলেন, ১৯৭৩ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এই টিকাদান কর্মসূচি প্রথম শুরু করেছিলেন। ধীরে-ধীরে রাতকানা রোগ ৪ দশমিক ১ ভাগে নামিয়ে এনেছিলেন। এরই ধারাবাহিকতায় জাতির জনকের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শিতায় আজ দেশে রাতকানা রোগ আর নেই বললেই চলে। 

এই সাফল্য ধরে রাখতে হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, টিকাদান কর্মসূচিকে সফল করতে হবে। 

এর আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ছোট ছোট শিশুদের মুখে লাল ও নীল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানোর মধ্য দিয়ে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন। 

সে অনুযায়ী আজ থেকেই ৬ মাস থেকে ৫ বছর বয়সী প্রায় ২ কোটি ১০ লাখ শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু করা হয়েছে। 

উল্লেখ্য, টিকাদান কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে সারাদেশে ১ লাখ ২০ হাজার স্থায়ী কেন্দ্রসহ অতিরিক্ত আরো ২০ হাজার অস্থায়ী ও ভ্রাম্যমাণ কেন্দ্রের মাধ্যমে এ কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

স্বাস্থ্যসেবা সচিব আসাদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন- স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য এম এ আজিজ এমপি, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব আলী নূর, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ, পরিবার পরিকল্পনা অধিদফতরের মহাপরিচালক খ.ম কাজী মহিউল ইসলাম প্রমুখ।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
স্বাস্থ্য বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর