ব্রেকিং:
‘আল্লাহর দল’র টার্গেটে ছিল পিলখানার ঘটনায় চাকরিচ্যুতরা আমি চাই সবার সঙ্গে মিশতে: প্রধানমন্ত্রী পানিতে তলিয়ে যেতে পারে জাকার্তা, বাঁচানোর কোনো উপায় নেই! সাত সপ্তাহ পর মন্ত্রিসভার বৈঠক রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন যেকোনো সময়: পররাষ্ট্র সচিব এডিস মশার বিরুদ্ধে ঢাকা উত্তরে ‘চিরুনি অভিযান’ সুস্থ হয়ে ফিরেছেন ৮৬ শতাংশ ডেঙ্গু রোগী ১০৯ নম্বরে ফোন পেয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করেছে উপজেলা প্রশাসন স্বাধীনতা বিরোধীরা এখনো ষড়যন্ত্র করছে: আইনমন্ত্রী কর্মসৃজন প্রকল্পে দুর্নীতি, ২১ জেলায় দুদকের অভিযান ৯৯৯ এ ফোন করে উদ্ধার হলেন ২০০ লঞ্চ যাত্রী পাকিস্তানকে ছাড়িয়ে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি পশু কোরবানি বাংলাদেশে বন্যাদুর্গতদের পুনর্বাসনে রয়েছে ১২০ কোটি টাকা বরাদ্দ ঘুষদাতার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী হুজুর সেজে ধর্ষককে ধরলেন পুলিশ কর্মকর্তা বিয়ের অনুষ্ঠানে বোমা হামলা, নিহত বেড়ে ৬৩ ইন্দোনেশিয়া ও ফিলিপাইনের রমণীদের পছন্দ বাংলাদেশি ছেলে রোহিঙ্গা নির্যাতন তদন্তে ঢাকায় মিয়ানমারের তদন্ত দল ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ টাইগারদের হেড কোচ হলেন রাসেল ডমিঙ্গো

সোমবার   ১৯ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৪ ১৪২৬   ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

৭৫১

রক্তদান বা গ্রহণের ক্ষেত্রে যে বিষয়গুলো জানা থাকতে হবে

প্রকাশিত: ২৫ জুলাই ২০১৯  

সময় এখন পাল্টেছে। তা না হলে, আগে এক ব্যাগ রক্তের জন্য জাতীয় গণমাধ্যম টেলিভিশনেও জরুরি বিজ্ঞপ্তি দিতে হতো। আরো কতো কি! আর এখন ফেসবুকে একটি পোস্ট। ব্যাস, হয়ে গেলো। 

রক্তদান একটি সহজ ও সাধারণ বিষয় কিন্তু এর গুরুত্ব নিঃসন্দেহে বহু বেশি। রক্তদানের ফলে রক্তদাতার শারীরিক কোনো ক্ষতি হয় না। 

তবে রক্তদান নিয়ে আমাদের দেশে অনেকের মাঝে বেশ কিছু মিথ বা ভ্রান্ত ধারণা প্রচলিত আছে। এ বিষয়ে বিশেষজ্ঞরা বলেন, এটি শারীরিক কোনো ক্ষতি করে না।

এদিকে রক্তদাতার পরিমাণ যেমন বেড়েছে, এর সচেতনতার বিষয়গুলো জানাও জরুরি হয়ে পড়েছে। চলুন, রক্তদান বা গ্রহণ করতে গেলে যে বিষয়গুলো মাথায় রাখতে হবে সেগুলো জেনে নেই-

রক্তদানের ক্ষেত্রে  
•    রক্তের লোহিত কণিকার আয়ু থাকে ১২০ দিন। অর্থাৎ রক্ত না দিলেও ১২০ দিন পর লোহিত কণিকা স্বাভাবিকভাবে মরে যায়। 
•    একজন সুস্থ, সবল, নীরোগ মানুষ প্রতি চার মাস অন্তর রক্ত দিতে পারেন।
•    যে ব্যক্তি রক্তদান করবে তাকে শারীরিকভাবে সুস্থ হতে হবে।
•    রক্তদাতার বয়স কমপক্ষে ১৮ বছর।
•    রক্তদানকারীর ওজন কমপক্ষে ১১০ পাউন্ড হতে হবে।
•    রক্তচাপের দিকে লক্ষ্য রাখা দরকার। খুব বেশি বা খুব কম কোনটিই রক্তদানের জন্য উপযুক্ত নয়।
•    কোনো রোগের জন্য অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণ করলে সেই দিনগুলোতে রক্তদান না করা ভালো।
•    নারীরা মাসিক চলাকালীন বা গর্ভাবস্থায় রক্তদান করতে পারবেন না 
•    শরীরে হিমোগ্লোবিন কম থাকলেও রক্ত দেয়া যাবে না। 

রক্তদানের পর 
•    কিছুক্ষণ বিশ্রাম নিতে হবে।
•    দুই গ্লাস পানি বা জুস খেলে রক্তের জলীয় অংশটুকু পূরণ হয়ে যায়। 
•    স্বাভাবিক কাজকর্মে কোনো বিধি-নিষেধ নেই।

আমাদের দেশে রক্তদানকারী নানা সংগঠন রয়েছে। এছাড়া কারো রক্তের প্রয়োজন হলে বা নিজে রক্ত দিতে চাইলে সন্ধানী, বাঁধন, আই ব্লাড নেটওয়ার্ক ছাড়াও অনলাইনে বেশ কিছু ব্লাড ডোনার গ্রুপ রয়েছে। সেখানে যোগাযোগ করতে পারেন। 

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর