ব্রেকিং:
আগে থেকেই প্রস্তুত ছিলাম বলেই বাংলাদেশ ভালো আছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী শর্ত সাপেক্ষে হোটেল ও বেকারি খোলা থাকবে, জানালো ডিএমপি স্পেনে মৃত্যুর মিছিলে আরো ৮৩২ জন করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ফিরলেন জাস্টিন ট্রুডোর স্ত্রী সোফি বাংলাদেশে তৈরি হল প্রথম ভেন্টিলেটর যন্ত্র ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানিয়ে পথচারীদের বাড়ি ফেরাচ্ছে সেনাবাহিনী চীনে সুস্থ হওয়া ৩ থেকে ১০ শতাংশ ফের আক্রান্ত সংসদ টিভিতে মাধ্যমিকের ক্লাস শুরু করোনাভাইরাস কীভাবে ছড়াচ্ছে, জানা নেই বিজ্ঞানীদেরও! অনলাইন কাঁপাচ্ছে ‘বড় লোকের বেটি’ ‘হক্কলে শুধু মুখোশ আর ওষধ দেয়, খাওন দেয় না’ দেশে নতুন করে কেউ করোনায় আক্রান্ত হননি কোয়ারেন্টাইন না মানায় ২৫ জনকে ৪ লাখ টাকা জরিমানা বাঞ্ছারামপুরে করোনা রোধে জীবাণুনাশক স্প্রে হোম কোয়ারেন্টাইনে না থাকায় দুবাই ফেরত যুবককে জরিমানা নিষেধাজ্ঞা অমান্য করায় কারাদন্ড ও অর্থদন্ড প্রদান করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে যুবসমাজের সচেতনতা মূলক উদ্যোগ বিষ প্রয়োগে ৩০ লক্ষ টাকার মাছ নিধন নাসিরনগরে ২ ভাইয়ের ঝগড়ায় প্রাণ গেল শিশুর নবীনগরে পিপিই , হ্যান্ডগ্লাপস, মাস্ক ও স্যানিটাইজার বিতরণ
  • রোববার   ২৯ মার্চ ২০২০ ||

  • চৈত্র ১৫ ১৪২৬

  • || ০৪ শা'বান ১৪৪১

১১৫

যেসব রোগ থাকলে করোনায় মৃত্যুর ঝুঁকি বেশি

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ১১ মার্চ ২০২০  

বিশ্বজুড়ে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ১৪ হাজারের বেশি মানুষ। আক্রান্তদের মধ্যে ৮০ হাজারের বেশি চীনা নাগরিক। এখন পর্যন্ত করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ২৬ জনে। এর মধ্যে ৩ হাজার ১৩৬ জনই চীনের।

চীনের রোগনিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্র মৃত্যুর ঘটনাগুলো বিশ্লেষণ করে যে ছক দিয়েছে, তাতে দেখা যায়– মধ্যবয়সীদের চেয়ে বয়স্কদের মৃত্যুর সংখ্যা ১০ গুণ বেশি। করোনায় আক্রান্ত হলে শরীরে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। এতে রোগীর অনেক ধরনের শারীরিক সমস্যা হয়ে থাকে। তিলে তিলে আক্রান্তকে গ্রাস করে ভাইরাসের সংক্রমণ।

৫৬ হাজার আক্রান্তের ওপর পরীক্ষা চালিয়ে বিভিন্ন ধরনের অভিজ্ঞতা পাওয়া গেছে।

পরিসংখ্যান বলছে, বিশ্বের মোট আক্রান্তের ৮০ শতাংশের মধ্যে সংক্রমণ তেমন গুরুতর নয়। তবে ১৪ শতাংশের মধ্যে সংক্রমণ ও তাদের শারীরিক পরিস্থিতি গুরুতর। বাকি ৬ শতাংশ আক্রান্তের অবস্থা অত্যন্ত সংকটজনক।

আক্রান্তদের পরীক্ষা করে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, করোনাভাইরাস আক্রান্তের ফুসফুসের কর্মক্ষমতা দ্রুত নষ্ট করে দেয়। ফলে শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে বেশ কষ্ট হয়। আর আক্রান্তদের ঘন ঘন জোরে জোরে নিঃশ্বাস নিতে হয়।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এক মিনিটে ৩০ বারের বেশি শ্বাস-প্রশ্বাস নিলে রক্তে পর্যাপ্ত অক্সিজেনের ঘাটতি দেখা যায়। যথাসময়ে সঠিক চিকিত্সা না হলে মস্তিষ্কে অক্সিজেন সরবরাহের ঘাটতি দেখা যায়। ফলে রোগী ধীরে ধীরে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। এ সময় আক্রান্তের হার্ট, কিডনিসহ একাধিক অঙ্গ বিকল হতে শুরু করে। আর রোগী ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যায়।

বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, ডায়াবেটিস, হাইপারটেনশন, হার্টের সমস্যা, ক্যান্সার, হাঁপানির মতো সমস্যা থাকলে করোনাভাইরাসে মৃত্যুর আশঙ্কা সবচেয়ে বেশি। আর শিশু ও বয়স্কদের ক্ষেত্রেও একইভাবে বিপজ্জনক করোনাভাইরাস।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
স্বাস্থ্য বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর