ব্রেকিং:
রাজধানীতে ৫০ কোটি টাকার সাপের বিষ উদ্ধার ভারতের দূর্বল জায়গায় আঘাত করবে বাংলাদেশের স্পিন অস্ত্র! মাদকাসক্ত হলেই সরকারি কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা রিকশা চালক শিশু স্বপ্না ডাক্তার হতে চায় ১১ বছরে ৩৩৯টি কলেজ সরকারিকরণ করা হয়েছে: সংসদে শিক্ষামন্ত্রী রাজনৈতিক স্থিতিশীলতায় বাংলাদেশ এখন অনন্য উচ্চতায় রোহিঙ্গাদের ফেরাতে মিয়ানমারকে বোঝানোর জন্য চীনের প্রতি আহ্বান বৃদ্ধা মাকে সড়কে ফেলে গেলো সন্তান, ওসি দিলেন বুকে ঠাঁই জেনারেল আজিজ- একজন নিবেদিতপ্রাণ গলফার সেনাপ্রধান ‘প্রাণ-মিল্কভিটা-আড়ংসহ পাস্তুরিত সব দুধই মানহীন’ বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে লিভার প্রতিস্থাপনে সফল অস্ত্রোপচার ২০৩০ সালের মধ্যে দারিদ্র্য শূন্যের কোটায় আসবে কালো সোনা সাদা করে হাজার কোটি টাকা পাচ্ছে সরকার মেয়াদোত্তীর্ণ ইনজেকশনে আপত্তি, নার্সকে পেটাল ফার্মেসির লোক ২৮ জুন বসবে পদ্মা সেতুর ১৪তম স্প্যান ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনা ; ৯৯৯-এ ফোন করে শাহান মিয়া বাঁচালো ৩০০ প্রাণ সততার পুরস্কার পেলেন পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের ১৫ কর্মকর্তা দুদক কার্যালয়েই হবে দুর্নীতির মামলা ভারতের চেয়ে বাংলাদেশে হজ পালনের ব্যয় কম দিনের আলোয় বৃদ্ধার টাকা ভুল হাতে দিলো ব্যাংক

বুধবার   ২৬ জুন ২০১৯   আষাঢ় ১৩ ১৪২৬   ২২ শাওয়াল ১৪৪০

৬৮০

মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রিতে শুদ্ধি অভিযান

প্রকাশিত: ১৯ মে ২০১৯  

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ওষুধ প্রশাসন এবং বাংলাদেশ কেমিস্ট অ্যান্ড ড্রাগিস্ট সমিতির যৌথ উদ্যোগে শহরের বিভিন্ন মেডিকেল হল এবং ফার্মেসিতে শুদ্ধি অভিযান চালানো হয়েছে। শহরের কুমারশীল মোড়, ল্যাবএইড মোড়, হাসপাতাল রোড, পুরাতন জেলরোড, ছাতিপট্টি এলাকায় অভিযান চালানো হয়।
এসময় শহরের হাসপাতাল রোডের, মুশকিল আহসান ফার্মেসি, খেয়াম ফার্মেসিসহ ২০টি ওষুধের দোকান থেকে অন্তত ২৫ হাজার টাকার অনিবন্ধিত ও মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ অপসারণ করা হয়।
অভিযানে নেতৃত্ব দেন ওষুধ প্রশাসন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা তত্ত্বাবধায়ক বাদল শিকদার, বাংলাদেশ কেমিষ্ট অ্যান্ড ড্রাগিষ্ট সমিতির সভাপতি জহিরুল হক, সাধারণ সম্পাদক আবু কাউছার। 
বাদল শিকদার জানান, আমরা প্রথম দিন সব ফার্মেসি মালিকদের সর্তক করেছি। শীঘ্রই অনিবন্ধিত ও মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রাখার বিষয়ে বড় ধরনের অভিযান পরিচলনা হবে। এতে জেল-জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে। তাই আগাম সর্তকতা হিসেবে আজকের শুদ্ধি অভিযান চালানো হয়েছে। 
এদিকে ওষুধ প্রশাসন এবং বাংলাদেশ কেমিষ্ট অ্যান্ড ড্রাগিষ্ট সমিতির এ অভিযানকে স্বাগত জানিয়ে ওষুধ নিতে আসা রোগী জানান, এ অভিযানকে আমরা স্বগত জানাচ্ছি। ওষুধ বিভাগে অরাজকতা বিরাজ করছে। বলা হয় এক ধরনের ওষুধ দেয়ার জন্যে। দেয়া হচ্ছে আরেক ধরনের ওষুধ। এছাড়া মেয়াদ আছে কিনা অনেক সাধারণ রোগী সেটা পরীক্ষা করার সুযোগ পান না অজ্ঞতার কারণে। আর এ সুযোগে অসাধু দোকান-মালিকরা মেয়াদোত্তীর্ণ ও অনিবন্ধিত ওষুধ বিক্রি করেন।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর