ব্রেকিং:
প্রতিদিন কয়েকবার গরম পানির ভাপ নিয়েছি করোনায় ব্যতিক্রমী উদ্যোগ এমপিওভুক্তির সুখবর পেল ১৬৩৩ স্কুল-কলেজ ২০ হাজারের বেশি আইসোলেশন শয্যা প্রস্তুত রয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে মানুষ, দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে বৈশ্বিক ক্রয়াদেশ পূরণে সক্ষম বাংলাদেশ ॥ শেখ হাসিনা লোকসান ঠেকাতে সরাসরি ক্ষেত থেকে সবজি কিনছে সেনাবাহিনী করোনা পরীক্ষায় দেশে চালু হলো প্রথম বেসরকারি ল্যাব যে দোয়ার আমলে স্মরণশক্তি বৃদ্ধি পাবে ইনশাআল্লাহ! আল্লাহ তিন ধরনের লোকের দোয়া ফিরিয়ে দেন না করোনা রোগীদের বাড়ি প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার ভেন্টিলেটর-সিসিইউ স্থাপনে জরুরি প্রকল্প বঙ্গবন্ধুর মতো নেতা পৃথিবীতে খুব কম দেখা যায়: ট্রাম্প গবেষণা প্রটোকল জমা না দিয়েই বিষোদগার করছেন জাফরুল্লাহ জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচিতে নিয়োগ করোনা আক্রান্তের শরীরের অক্সিজেনের পরিমাণ ঘরেই পরীক্ষার উপায় মধ্যবিত্তরাও খাদ্যসহায়তার আওতায়: শিল্প প্রতিমন্ত্রী কর্মস্থল ত্যাগকারীদের তালিকা চায় মন্ত্রণালয় নাসিরনগরে শিশু নিহতের ঘটনায় গ্রেফতার ২ দেশে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্ত, আরো ৮ মৃত্যু
  • সোমবার   ১৩ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২৯ ১৪২৭

  • || ২১ জ্বিলকদ ১৪৪১

৯৩২

মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রিতে শুদ্ধি অভিযান

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ১৯ মে ২০১৯  

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ওষুধ প্রশাসন এবং বাংলাদেশ কেমিস্ট অ্যান্ড ড্রাগিস্ট সমিতির যৌথ উদ্যোগে শহরের বিভিন্ন মেডিকেল হল এবং ফার্মেসিতে শুদ্ধি অভিযান চালানো হয়েছে। শহরের কুমারশীল মোড়, ল্যাবএইড মোড়, হাসপাতাল রোড, পুরাতন জেলরোড, ছাতিপট্টি এলাকায় অভিযান চালানো হয়।
এসময় শহরের হাসপাতাল রোডের, মুশকিল আহসান ফার্মেসি, খেয়াম ফার্মেসিসহ ২০টি ওষুধের দোকান থেকে অন্তত ২৫ হাজার টাকার অনিবন্ধিত ও মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ অপসারণ করা হয়।
অভিযানে নেতৃত্ব দেন ওষুধ প্রশাসন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা তত্ত্বাবধায়ক বাদল শিকদার, বাংলাদেশ কেমিষ্ট অ্যান্ড ড্রাগিষ্ট সমিতির সভাপতি জহিরুল হক, সাধারণ সম্পাদক আবু কাউছার। 
বাদল শিকদার জানান, আমরা প্রথম দিন সব ফার্মেসি মালিকদের সর্তক করেছি। শীঘ্রই অনিবন্ধিত ও মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রাখার বিষয়ে বড় ধরনের অভিযান পরিচলনা হবে। এতে জেল-জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে। তাই আগাম সর্তকতা হিসেবে আজকের শুদ্ধি অভিযান চালানো হয়েছে। 
এদিকে ওষুধ প্রশাসন এবং বাংলাদেশ কেমিষ্ট অ্যান্ড ড্রাগিষ্ট সমিতির এ অভিযানকে স্বাগত জানিয়ে ওষুধ নিতে আসা রোগী জানান, এ অভিযানকে আমরা স্বগত জানাচ্ছি। ওষুধ বিভাগে অরাজকতা বিরাজ করছে। বলা হয় এক ধরনের ওষুধ দেয়ার জন্যে। দেয়া হচ্ছে আরেক ধরনের ওষুধ। এছাড়া মেয়াদ আছে কিনা অনেক সাধারণ রোগী সেটা পরীক্ষা করার সুযোগ পান না অজ্ঞতার কারণে। আর এ সুযোগে অসাধু দোকান-মালিকরা মেয়াদোত্তীর্ণ ও অনিবন্ধিত ওষুধ বিক্রি করেন।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
নগর জুড়ে বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর