ব্রেকিং:
শুধু ফুসফুস নয় হার্টে গিয়েও থাবা বসাচ্ছে করোনা! দেশের বিভিন্ন স্থানে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে গুরুতর আহত ক্রিকেটার লিটন দাসের স্ত্রী দেশের সব স্টেডিয়াম হাসপাতালের জন্য উন্মুক্ত : ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী করোনা ভাইরাস নিরাময়ে ওষুধ আবিষ্কার হয়ে গেছে সম্ভবত স্যানিটাইজার উৎপাদন করতেই কর্মকর্তা বদলী!!! দেহে করোনা প্রবেশ করলে যা যা ঘটে দেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৪৯ ভিক্ষা করলে পেটে ভাত “না করলে নাই বাড়ি বাড়ি গিয়ে খোঁজ খবর নিয়ে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলেন ইউএনও জীবানুনাশক ও পানি ছিটিয়ে পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম শুরু হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা মানুষের পাশে জাতীয় পার্টি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় সরকারি কর্মকর্তা নিহত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নতুন করে আরো ১০৭ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে জন সচেতনতায় মাইক হাতে রাস্তায় চেয়ারম্যান জনকল্যাণ সংগঠনের উদ্যোগে হেন্ড সেনিটাইজার ও মাস্ক রিতরণ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অস্ত্র-গুলিসহ দুইজন আটক পিপিই পেলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সাংবাদিকরা ‘ভাইরাল হওয়া ভিডিও ছাত্রলীগের নয়, বিএনপি নেতার ছেলের’ হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতে প্রবাসীদের বাড়িতে সেনা অভিযান
  • মঙ্গলবার   ৩১ মার্চ ২০২০ ||

  • চৈত্র ১৬ ১৪২৬

  • || ০৬ শা'বান ১৪৪১

৪৮১

‘মৃত’ স্ত্রীকে ৭ বছর পর প্রেমিকের বাসায় খুঁজে পেলেন স্বামী!

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ১২ মার্চ ২০২০  

স্ত্রীকে খুনের দায়ে এক মাস জেল খাটতে হয়েছিল। সেই ‘মৃত’ স্ত্রীকে অবশেষে ভুক্তভোগী যুবই খুঁজে বের করেছেন। সাত বছর পর গত রোববার পুলিশের সহায়তায় তিনি স্ত্রীকে প্রেমিকের সঙ্গে ধরে ফেলেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার’র এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৩ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি উড়িষ্যার বাসিন্দা অভয় সুতারের সঙ্গে ইতিশ্রী মহারানার বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ের দুই মাস পরই শ্বশুরবাড়ি থেকে পালিয়ে নিখোঁজ হন ওই গৃহবধূ। তাকে খুঁজে না পেয়ে ২০১৩ সালের ২০ এপ্রিল পাতকুরা থানায় অভিযোগ জানিয়েছিলেন স্বামী অভয়।

ইতিশ্রী নিখোঁজ হওয়ার পর তার বাবা প্রহ্লাদ মহারানা ওই বছরের মে মাসে পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন। সেখানে পণের জন্য তার মেয়েকে অত্যাচার করে মেরে ফেলার অভিযোগ করেন তিনি। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই অভয়কে গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ। সেই গ্রেপ্তারির পর এক মাস জেল খেটে জামিনে মুক্ত হন অভয়।

কিন্তু জেল থেকে ছাড়া পেয়ে অভয়ের সন্দেহ হয়, তার স্ত্রী কারও সঙ্গে পালিয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে খোঁজ-খবর চালাতেও শুরু করেন তিনি। অবশেষে পিপলিতে প্রেমিকের সঙ্গে স্ত্রীর থাকার খবর পান তিনি। সে কথা পুলিশকে জানান। তারপর পুলিশ পিপলিতে গিয়ে আটক করে ইতিশ্রী ও তার প্রেমিককে। গতকাল সোমবার তাদের দুজনকে আদালতে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন পাতকুরা থানার এক কর্মকর্তা।

পুলিশ জানায়, বিয়ের দুমাস পর প্রেমিক রাজীবের সঙ্গে গুজরাট পালিয়ে গিয়েছিলেন ইতিশ্রী। সেখানেই সাত বছর ছিলেন তারা। তাদের এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। সম্প্রতি তারা গুজরাট থেকে উড়িষ্যায় ফেরেন।

স্ত্রীর কুকীর্তি ফাঁস হওয়ার পর অভয় বলেন, ‘যখন পুলিশ খুঁজে পেল না, তখন আমিই খোঁজ শুরু করি। বহু জায়গায় খোঁজ চালানোর পর পিপলিতে তাদের খোঁজ পাই। সাত বছর পর নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করতে পেরে আমি খুশি।’

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আন্তর্জাতিক বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর