ব্রেকিং:
নাসিরনগরে ভূমি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসনের মামলা ছয় জেলায় সার সরবরাহ বন্ধ আশুগঞ্জ সারকারখানার নবীনগরে সরকারি খাল ভরাটের মহা উৎসব! ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অবৈধ গ্যাস সংযোগ তদন্তে মাঠে দুদক সরাইলে পুলিশের হাতে পলাতক আসামি গ্রেপ্তার আশুগঞ্জ সার কারখানা থেকে পুনরায় সার সরবরাহ শুরু হয়েছে বিজয়নগরে পলাতক ৭ আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ পরীক্ষার মুখে আখাউড়া ছাত্রলীগ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ডেঙ্গু প্রতিরোধে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান নূর চৌধুরীর তথ্য প্রকাশে কানাডার আদালতে বাংলাদেশের পক্ষে রায় আখাউড়ায় শিক্ষকের যৌন হয়রানির প্রতিবাদে সড়কে শিক্ষার্থীরা সরাইলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চারপাশে জুয়া ও মাদকের আসর অর্থ লেনদেনের অভিযোগে সরাইল স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি বাতিল নাসিরনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান আখাউড়া উপজেলা ছাত্রলীগে পদ পেতে এ কি শর্ত দিলেন আইনমন্ত্রী! সরাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ১ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ব্রিটেনের প্রধান গির্জায় কোরআন তিলাওয়াতের বিরল ঘটনা স্মার্টফোনের বদলি হিসেবে ‘স্মার্ট গ্লাস’ আনছে ফেসবুক এডিআর বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক আওয়ামী লীগের নেতারা দুর্নীতি করলে ছাড় নয়: কাদের

শনিবার   ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৫ ১৪২৬   ২১ মুহররম ১৪৪১

৬৩

‘মাদক ধ্বংসে বিশেষ চশমা দেয়া হবে’

প্রকাশিত: ১২ জুন ২০১৯  

৪৮ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আহমেদ ইউসুফ জামিল বলেছেন, মাদকদ্রব্য উদ্ধার অভিযান ও ধ্বংস দুটোই ঝুঁকিপূর্ণ। তাই যারা মাদকদ্রব্য ধ্বংসের কাজ করবে তাদের জন্য বিশেষ চশমা ব্যবস্থা করা হবে। যাতে মাদক নষ্ট করতে বিজিবি সদস্যদের কোনো ধরনের ক্ষতি না হয়।

বুধবার ব্যাটালিয়নের প্রধান কার্যালয়ের বাস্কেটবল মাঠে সাড়ে পাঁচ কোটি টাকা মূল্যের মাদকদ্রব্য ধ্বংস অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, মাদকদ্রব্য চোরাচালান ও সেবন রোধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এককভাবে কাজ করলে হবে না। বিভিন্ন স্তরের নাগরিকদের অংশগ্রহণ থাকলে মাদক থাকবে না। এজন্য সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার মিজ সুনন্দা রায়, কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের যুগ্ম কমিশনার মোহাম্মদ মিনহাজ উদ্দিন পাহলোয়ান, জেলা বিশেষ শাখার এএসপি মো. আনিছুর রহমান খান, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের উপ-পরিদর্শক মো. হুমায়ন কবির ও পরিবশে অধিদফতরের ইন্সপেক্টর হারুনুর রশিদ পাঠানসহ বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার কর্মকর্তারা।

এর আগে ২০১৭ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি থেকে ১ জুন পর্যন্ত পাঁচ কোটি ছয় লাখ ৬৩ হাজার ২শ টাকা মূল্যের মাদক আনুষ্ঠানিকভাবে ধ্বংস করা হয়। এর মধ্যে ছিল ৩৬ হাজার ৮৭ বোতল বিভিন্ন প্রকার ভারতীয় মদ, ১ হাজার ৬৫৯ লিটার বাংলা মদ, ১ হাজার ৮১২ বোতল ভারতীয় বিয়ার, ২ হাজার ২৭২ বোতল ফেনসিডিল, ২৫৭টি ইয়াবা, ১০ কেজি গাঁজা, ৩ লাখ ৮৪ হাজার ভারতীয় সিগারেট।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর