ব্রেকিং:
যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত স্বামী-স্ত্রী গ্রেফতার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিজয় মেলা শুরু ‘উগ্রবাদীর হামলা কমলেও বাড়ছে জড়িয়ে পড়ার শঙ্কা’ মাইগ্রেনের অসহ্য যন্ত্রণা দূর করবে ২টি পানীয় কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে অবৈধ স্থাপনা ধ্বংসে রুল উৎসবমুখর পরিবেশে ঢাবির ৫২তম সমাবর্তন অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ ২০২০ সালে ফাইভ-জিতে পা দেবে একটি ব্যবহৃত ‘টি-ব্যাগ’ হাজার সমস্যার সমাধান! যে ৩ আমলে মৃত্যুর সঙ্গে সঙ্গে জান্নাত বঙ্গবন্ধু বিপিএলের টিকিটের দাম চূড়ান্ত জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারজয়ীদের কী দেয়া হয়? ‘সবার প্রেরণা ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’ বাড়ির ছাদে গাঁজা চাষ বিশ্বজুড়ে মিয়ানমার বয়কটের ডাক সিলিন্ডারের ভেতরে গ্যাসের বদলে গাঁজা চালু হচ্ছে ঢাকা-সিকিম সরাসরি বাস সার্ভিস গাম্বিয়াকে সহায়তার ঘোষণা কানাডা-নেদারল্যান্ডসের কোনো শিশু-নারী যেন নির্যাতিত না হয়: প্রধানমন্ত্রী কর্মকর্তাকে কুপিয়ে টাকা ছিনিয়ে নিল দুর্বৃত্তরা বিশ্ব মানবাধিকার দিবস

মঙ্গলবার   ১০ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৫ ১৪২৬   ১২ রবিউস সানি ১৪৪১

৫৪০

মাকে সরিয়ে বউকে আনছেন তারেক, বিরোধে বিএনপি নেতারা

প্রকাশিত: ১৪ জুলাই ২০১৯  

খালেদা জিয়ার কারাবাস দীর্ঘায়িত হচ্ছে তারেক রহমানের গাফিলতিতে- এমন ধারণা এতদিন গুঞ্জন আকারে ঘুরলেও তা বাস্তবে রূপ নিতে চলেছে। জানা গেছে দলীয় প্রধান হিসেবে বেগম খালেদা জিয়ার বিকল্প হিসেবে তার পুত্রবধূ ডা. জোবায়দা রহমানকে ভাবা হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে দলের মধ্যে আলোচনা হলেও প্রকাশ্যে কেউ মুখ খুলছেন না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দলটির এক আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক বলেন, বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে দলের কাউন্সিল হোক বা তার মুক্তির পর কাউন্সিল হোক, দলীয় প্রধান হিসেবে দলের মধ্য থেকে তার বিকল্প ভাবা হচ্ছে। দলকে শক্তিশালী করতেই ড. জোবায়দা রহমানকে দলীয় প্রধানের দায়িত্বে আনতে চাইছেন তারেক রহমান।

তিনি আরও বলেন বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক যে অবস্থা তাতে তিনি মুক্তি পেয়ে দলের হাল কতটুকু ধরতে পারবেন, তা নিয়ে নেতাদের মধ্যে অনিশ্চয়তা রয়েছে। সেক্ষেত্রে স্বাভাবিকভাবে ধরে নেয়া যেতে পারে যে, খালেদা জিয়া দলীয় প্রধান না হলে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান দলের প্রধান হবেন। তবে যেহেতু তারেক রহমান দেশে ফিরতে পারছেন না তাই জোবায়দা রহমানকেই যোগ্য বিকল্প বলে ভাবা হচ্ছে।

বিষয়টিতে ক্ষোভ প্রকাশ করে দলের এক সাংগঠনিক সম্পাদক বলেন, এরকম সিদ্ধান্ত অযৌক্তিক। রাজনীতিতে অনভিজ্ঞ একজনকে দলের প্রধান করার অর্থ হচ্ছে দলের ভীত নড়বড়ে হয়ে যাওয়া। যেখানে দলকে বাঁচিয়ে রাখা জরুরি সেখানে তারেক রহমান আছেন বিএনপির ক্ষমতা জিয়ার পরিবারের মধ্যে ধরে রাখতে। যদি বেগম জিয়ার বিকল্প কাউকে খুঁজতে হয় তবে তাকে অবশ্যই রাজনীতি সচেতন ব্যক্তি হতে হবে। আমি মনে করি জোবায়দা রহমান সেখানে যোগ্য নয়।

তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, বেগম খালেদা জিয়া যতদিন বেঁচে থাকবেন ততদিন পর্যন্ত তিনিই দলের প্রধান হিসেবে থাকবেন- এটা দলের সকল স্তরের নেতাদের প্রত্যাশা এবং একমাত্র চাওয়া। সংগঠনে তার শূন্যতা অনুভূত হলে ভারপ্রাপ্ত প্রধান হিসেবে তারেক রহমান নেতৃত্ব দিতেই পারেন। কিন্তু মায়ের স্থলে বউকে আনার চিন্তা সমীচীন নয়।

এদিকে তারেক রহমানের এমন সিদ্ধান্তের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছেন দলের অনেকেই। বিরোধী অবস্থান থেকে মতামত দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. সুকোমল বড়ুয়া। তিনি বলেন, আমি মনে করি, কাউন্সিলের আগে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়টি প্রাধান্য দেয়া উচিত। তার মুক্তির আগে কাউন্সিল করা উচিত হবে না বলে আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি। আর জোবায়দা রহমানকে ভাবাটাও অযৌক্তিক। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির পর তারপর দলীয় নেতৃত্ব পরিবর্তনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া যাবে কেননা তার যে দীর্ঘ রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা সেটা কাজে লাগানো উচিত।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর