ব্রেকিং:
পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষনা ২৬ অক্টোবর গ্রাহক সেবায় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির উঠান বৈঠক ওসির হাতে রজনীগন্ধা চালকের মুখে হাসি দালাল নির্মূলে জেলা প্রশাসনের বিশেষ অভিযান অজ্ঞাত ব্যক্তির অর্ধ-গলিত লাশ উদ্ধার ৪ কেজি চালের দামে ১ কেজি পেঁয়াজ! মিড ডে মিলের টিফিন বক্স বিতরণ ড্রেজার ব্যবহারে হুমকীর মুখে মহাসড়ক নারীদের স্বাবলম্বী করতে ছাগল বিতরণ ‘জীবনের আগে জীবিকা নয়, সড়ক দূর্ঘটনা আর নয়’ হেফাজতে ইসলামের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ ট্রাফিক সেবায় নতুন মাত্রা যোগ ওটিটি প্লাটফর্ম ব্লেসবিট তৈরির স্বীকৃতি পেল টিকন বাঘের দেশের সমুদ্র সৈকত শিশুদের কৃমি হবার কারণ, লক্ষণ ও প্রতিরোধে করণীয় এক মিনিটেই খোলা যাবে ‘নগদ’ অ্যাকাউন্ট কেটে গেছে? জেনে নিন রক্তপাত বন্ধের সহজ উপায় মানসিক অসুস্থ আব্দুল্লাহ মুখস্ত করলেন পুরো কোরআন! (ভিডিও) মুখোমুখি ক্রিকেটার-বিসিবি, লাভ কার? সুস্মিতা সেন আজ ঢাকায় আসছেন

বৃহস্পতিবার   ২৪ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৮ ১৪২৬   ২৪ সফর ১৪৪১

৭৪৫

ভয়েস কলের দিন প্রায় শেষ: মোস্তাফা জব্বার

প্রকাশিত: ১৯ মে ২০১৯  

ভয়েস কলের দিন প্রায় শেষ হয়ে আসছে বলে জানিছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার। তিনি বলেন, কিছুদিন পরেই মানুষ নতুন প্রজন্মের কল প্রযুক্তির সঙ্গে পরিচিত হবে। কথা বলার জন্য তখন শুধু মাত্র ডাটা খরচ হবে।

শনিবার বিকেলে রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস উপলক্ষে বিটিআরসি আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোস্তাফা জব্বার তিনটি চ্যালেঞ্জের কথা উল্লেখ করে বলেন, ভয়েস কলের দিন শেষ হয়ে আসছে, সামনে ডেটা কলের দিন। ভয়েস টেকনোলজি হয়ে যাবে আইপি নির্ভর।

তিনি বলেন, এরপর আসছে ফোর্থ ইন্ডাস্ট্রিয়াল রেভ্যুলেশনের কথা। তবে দেশের ফোর্থ ইন্ডাস্ট্রিয়াল রেভ্যুলেশনের দিকটা আলাদা। আমরা বলছি, ব্লক চেইন প্রযুক্তি, রোবোটিকস, বিগ ডেটার কথা। এসব প্রযুক্তির মাধ্যমে জীবনযাত্রার মান কতটা উন্নত করতে পারব, তা ভাবতে হবে।

বাংলাদেশে মোবাইল ফোন টাওয়ারের স্পেসিফিক অ্যাবজর্পশন রেট ০.৬ এর ওপর নয় জানিয়ে মোস্তাফা জব্বার জানান, মোবাইল ফোন টাওয়ারেরর রেডিয়েশনের মাধ্যমে পরিবেশ ও জনস্বাস্থ্য হুমকির সম্মুখীন হচ্ছে এমন অভিযোগ যারা করছেন তারা বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন- তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব অশোক কুমার বিশ্বাস। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিটিআরসির চেয়ারম্যান মো. জহুরুল হক। 

অনুষ্ঠানে ‘ব্রিজিং দ্য স্ট্যান্ডারাইজেশন গ্যাপ’ শিরোনামে কি-নোট পেপার উপস্থাপন করেন গ্রামীণফোনের নেটওয়ার্ক প্ল্যানিং অ্যান্ড ডেপ্লয়ম্যান্ট বিভাগের প্রধান মো. সাইফুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেন, মোবাইল ফোন অপারেটরদের কল ড্রপে গ্রাহক অসন্তুষ্টিতে সরকার বিব্রত হচ্ছে। এ সমস্যা থেকে বের হতে থার্ড পার্টির মাধ্যমে টেকনিক্যাল অডিট করে মোবাইল অপারেটরদের ত্রুটি খুঁজে বের করার প্রস্তাব দেন।

তিনি জানান, বিটিআরসির হিসাবে, ২০১৮ সালের অগাস্ট মাস পর্যন্ত গ্রামীণফোনের কলড্রপের সংখ্যা ১০৩ কোটি। দ্বিতীয় স্থানে থাকা রবি’র কলড্রপ ৭৬ কোটি, বাংলালিংকের কলড্রপ ৩৬ কোটি ও রাষ্ট্রয়ত্ত্ব অপারেটর টেলিটকের কলড্রপ ৬ কোটি।

প্রতিন্ত্রী বলেন, কল ড্রপ নিয়ে বিটিআরসি বলছে এক কথা, মোবাইল অপারেটররা বলছে আরেক কথা। আমরা এখন ডিজিটাল সার্ভিসে কোয়ালিটির কথা বলছি, তখন এই কল ড্রপ নিয়ে সরকারকে নানা বিরূপ মন্তব্য শুনতে হচ্ছে। বিটিআরসি ফিন্যান্সিয়াল অডিট করে, এবার টেকনিক্যাল অডিট হওয়ার প্রয়োজন। থার্ড পার্টির এই অডিটের মাধ্যমে কারণ জানা প্রয়োজন। জানা দরকার ত্রুটি আসলে কোথায়।

তিনি বলেন, সাড়ে ৯ কোটি ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর দেশে এখন সময় এসেছে সবগুলো ডিজিটাল সার্ভিসের গুণগত মান ঠিক রাখা। আমাদের সার্ভিস ডিজাইনগুলো স্ট্যান্ডারাইজেশনের জন্য প্রয়োজন একটা ডিজিটাল সার্ভিস সেন্টার।

প্রতিমন্ত্রী আরো জানান, পদ্মা সেতুর পাশে ৭০ একর জায়গা নিয়ে গড়ে তোলা হবে শেখ হাসিনা ইনস্টিটিউট ফর ফ্রন্টিয়ার টেকনোলজি, যেখানে আরো প্রশিক্ষিত করা হবে আগামী দিনের প্রযুক্তিবিদদের।

অনুষ্ঠানে স্ট্যান্ডারাইজেশন অব ফাইভ জি শিরোনামে গবেষণা প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন হুয়াওয়ে টেকনোলজিসের প্রধান কর্মকর্তা ওয়াং শিউ জেরি। পরে ফাইভ জি নিয়ে গবেষণা প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন নোকিয়ার এশিয়া প্যাসিফিক রিজিয়নের গভর্নমেন্ট রিলেশনস বিভাগের প্রধান গিয়ম মাসকট।

উল্লেখ্য, এবার ‘ব্রিজিং দ্য স্ট্যান্ডারাইজেশন গ্যাপ’ প্রতিপাদ্যে বিশ্ব টেলিযোগাযোগ দিবস উদযাপিত হচ্ছে।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর