ব্রেকিং:
দুর্ধর্ষ মাদক ব্যবসায়ী আটক সাংবাদিকতায় দেশ সেরা অ্যাওয়ার্ড পেলেন মিশু জেলা উন্নয়ন সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত বিষ প্রয়োগে সর্বশান্ত মৎস্য চাষী বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সচিবকে সংবর্ধনা পাঁচ দফা দাবিতে ফারিয়ার মানববন্ধন মসজিদের দেয়ালে ফাটল, আতঙ্কে মুসল্লিরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মাদক উদ্ধার মাদক বিরোধী প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত মাদকসেবীর হুমকিতে স্কুলে যাওয়া বন্ধ শিক্ষার্থীর ফুটপাত দখলমুক্ত করলেন ইউএনও শারীরিক সক্ষম হলেই রক্তদান করবে শিক্ষার্থীরা একই তেলে বার বার রান্না ক্যান্সার ও হৃদরোগের কারণ বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণার ওপর জোর দেয়ার তাগিদ তথ্যমন্ত্রীর মুক্ত বাণিজ্য চুক্তিকে অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে: বাণিজ্যমন্ত্রী নারীর মনে জায়গা পাওয়ার উপায় পানিতে পড়া ফোন যেভাবে দ্রুত সারিয়ে তুলবেন যে কারণে ‘সুদ’ হারাম উদ্বোধন হলো শেখ কামাল ক্লাব কাপ আওয়ামী লীগের সম্মেলন মানেই নতুন মুখ: কাদের

সোমবার   ২১ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৫ ১৪২৬   ২১ সফর ১৪৪১

৮৬

ভূত কি আত্মা? কেনই বা মৃত্যুর পর মানুষের ওজন ২১ গ্রাম কমে!

প্রকাশিত: ৯ আগস্ট ২০১৯  

ভূত নামক এই বিষয়টি নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই! পুরো বিশ্ব জুড়েই গল্প আড্ডার এক জনপ্রিয় বিষয় হয়ে ওঠে এই ভূত চর্চা। কেউ বিশ্বাস করে ভূতের অস্তিত্বে আবার কেউ সেটা নিয়ে মাথা-ই ঘামায় না। তবে হাজারখানি যুক্তি তর্ক শেষে কেউই একটি নিশ্চিত নয় ভূতের অস্তিত্বের বিষয়ে।

অনেকেরই অদ্ভুত কিছু অভিজ্ঞতা রয়েছে। এমন কি যারা ভূতে অবিশ্বাসী, রাতের অন্ধকারে তারাও আচমকা কোনো এক অতৃপ্ত অনুভূতিতে আতঙ্কিত বোধ করে। তবে এর চূড়ান্ত বক্তব্যে এখনো পৌঁছাতে পারেনি নানা ভূত বিষয়ক গবেষণাবিদরা। আজো চলে নানা ধরণের তর্ক বিতর্ক। কিন্তু এ বিষয়ে বিজ্ঞান কি বলে? আজ চলুন জেনে নেয়া যাক বিজ্ঞানীরা এবং ভূত বিশ্বাসীরা আসলে এ নিয়ে কী ভাবে?

প্যারানরমাল ইনভেস্টিগেটর বা যারা ভূত বিশ্বাসী তারা বলেন, মানুষ মরে গেলেও তার ভেতরের যে শক্তি অর্থাৎ আত্মা সেটি বেঁচে থাকে। যদি কোনো মৃত মানুষের আত্মা অতৃপ্তি বা হতাশা নিয়ে মারা যায় তবে মৃত্যুর পরও উক্ত মানুষের আত্মা সেই অতৃপ্তি ঘোঁচাতে ফিরতে চায়। আর এতেই নানা ধরণের আতঙ্ক তৈরী হয়! অনেক মানুষই এসব মৃত মানুষের অশরীরি ছায়া কিংবা উপস্থিতি টের পেয়ে থাকে। 

অশরীরির উপস্থিতি

অশরীরির উপস্থিতি

খুব অদ্ভুত বিষয় হলো সবাই কেনো রাতেই এই ভূতে ভয় পায়? ভূত বিশ্বাসীদের মতে, রাতে পরিবেশ থাকে সুশান্ত এবং নিরিবিলি। এছাড়াও তখন ইলেকট্রোমেগনেটের প্রভাব থাকে খুব কম। যেটি আত্মাকে ঘুরে বেড়াতে সহায়তা করে! তবে এগুলো সম্পূর্ণই ভূত বিশ্বাসীদের আলাপন। আমরা এর বিপরীতে বিজ্ঞান ও বিজ্ঞানীরা কী বলেন সে সম্পর্কেও জানবো- 

বিজ্ঞানীরা ভূত নামক এই বিষয়টিকে প্রায় রূপকথা বলে উড়িয়ে দেয়। এমন কিছুর অস্তিত্ব নেই বলেই তাদের বিশ্বাস করে। কিন্তু মৃত্যুর পর মানুষের এনার্জি ঠিকই থাকে এ বিষয়ে পুরোপুরি অস্বীকার ও করেনি। কারণ সর্বকালের সেরা বিজ্ঞানী আইনস্টাইন বলেছিলেন, Energy never disappears from the universe। 

সে কথার উপর ভিত্তি করেই, বিজ্ঞানীরা ভূত বিষয়টিকে এক কথায় উড়িয়েও দিতে পারেন না। কারণ শক্তি বা তেজ কখনোই পৃথিবী থেকে বিলীন হয়ে যেতে পারে না। তবে কি ভূত সত্যিই আছে? ভূতে বিশ্বাসীরা আইনস্টাইনের এই সূত্র ধরেই বলেন, এটিই প্রমাণ করে যে মানুষের ভেতরে আত্মা বিদ্যমান যেটি মানুষের শক্তি রূপে মৃত্যুর পরও বেঁচে থাকে। 

 

রাতেই মানুষ বেশি ভয় পায়

রাতেই মানুষ বেশি ভয় পায়

তবে এ নিয়েও নানা বিজ্ঞানীরা পরীক্ষা নিরীক্ষা চালিয়েছেন। তার মধ্যে একটি পরীক্ষা ছিলো সাড়া জাগানো যেটি কি-না ২১ গ্রাম থিওরি নামে পরিচিত। ডক্টর ম্যাকডোলাস নামে এক বিজ্ঞানী পরীক্ষা করে দেখেন, মৃত্যুর পর মানুষের ওজন ২১ গ্রাম করে কমে যায়। অর্থাৎ মৃত্যুর আগে ওজন ২১ গ্রাম বেশী থাকে মৃত্যুর পর তা কমে যায়। তাহলে কোথায় যায় এই ২১ গ্রাম? 

ধারণা করা হয় এটি হলো সেই শক্তি বা আত্মা যেটি মৃত্যুর পর আমাদের শরীর থেকে বেড়িয়ে যায়। তবে বিজ্ঞানীদের এ বিষয়েও যুক্তি আছে। অনেকে মনে করেন জীবিত থাকা অবস্থায় মানুষে দেহে অনেক মেটাবলিক কার্যক্রম চলতে থাকে যেটি মৃত্যুর পর বন্ধ হয়ে যায় বলে ওজন কমে যায়। 

কিন্তু অদ্ভুত হলো প্রতিটি মানুষেরই কেনো শুধু ২১ গ্রাম ই কমে? এটিও জন্ম দিয়েছে নানা ধরণের বিতর্কের। তবে সে যাই হোক না কেনো, ভূত থাকুক বা না থাকুক এটি কল্পনা করেই হোক বা না হোক, কারণে বা অকারণে ভূতে আতঙ্গিত হওয়া আমাদের জন্মগত ভয়। 

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর