ব্রেকিং:
নবীজি (সা.) এর বিদায় হজের ভাষণ দু’দেশের অমীমাংসিত বিষয়গুলোর সমাধান হবে: কাদের মুখ দিয়ে পবিত্র কোরআনের পাতা উল্টিয়ে ৩০ পারা মুখস্থ ঈদে সড়কের পরিস্থিতি যেন গতবারের পুনরাবৃত্তি না হয়: কাদের পাঁচ বছরের মধ্যে দেশে শতভাগ ইন্টারনেট: পলক ১৬ জনকে আসামি করে নুসরাত হত্যাকাণ্ডের অভিযোগপত্র প্রস্তুত বাংলাদেশ প্রেক্ষাপট, আন্ত-অভিযানে স্থলবাহিনীর সক্ষমতা বৃদ্ধি পার্বত্য অঞ্চলের শিশুরা শিক্ষা বঞ্চিত হবে না: শিক্ষামন্ত্রী স্থগিত ৫ উপজেলায় ভোট ১৮ জুন চাল আমদানি কমাতে শুল্ক বাড়ল দ্বিগুণ তিন বছরে বাংলাদেশের সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা আটটি বেড়ে এখন ১১৪টি পরিবর্তন ছাড়াই ১৫ সদস্যে ভরসা বাংলাদেশের দেশে সর্বোচ্চ বিদ্যুৎ উৎপাদনের রেকর্ড ৮০ বছরের মধ্যেই সমুদ্রে তলিয়ে যাবে বাংলাদেশ! দেশকে উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে পরিণত করেছে সরকার: পাটমন্ত্রী কোরআন অনুবাদ করতে গিয়ে মুসলমান হলেন ধর্ম যাজক ‘জাল’ প্রতিরোধে ১০০০ টাকার নতুন নোট নতুন চমক, দেশে চালু হচ্ছে বেকার ভাতা লক্ষ্যমাত্রার বেশি ধান কিনতে সুপারিশ শেখ হাসিনাকে বরণের অপেক্ষায় জাপান: রাষ্ট্রদূত

শুক্রবার   ২৪ মে ২০১৯   জ্যৈষ্ঠ ১০ ১৪২৬   ১৯ রমজান ১৪৪০

১৫

ভাঙতে ভাঙতে ছোট হয়ে যাচ্ছে চাঁদ!

প্রকাশিত: ১৫ মে ২০১৯  

জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, চাঁদে পৃথিবীর মতো টেকটনিক প্লেট নেই। তাই কয়েকশো মিলিয়ন বছর ধরে ঠান্ডা হওয়ার সঙ্গেই কুঁচকে গিয়ে ছোট হয়ে যাচ্ছে চাঁদের পৃষ্ঠতল। আর যেহেতু চাঁদের পৃষ্ঠ ভঙ্গুর সেহেতু যেস্থানেই টান পড়েছে, সেই স্থানই ভেঙে গেছে। এভাবেই ভাঙতে ভাঙতে আগের তুলনায় আকারে অনেকটাই ছোট হয়ে গেছে চাঁদ।

বিজ্ঞানভিত্তিক পত্রিকা নেচার জিওসায়েন্স সোমবার চাঁদের ১২০০০ নতুন ছবি এবং অ্যাপোলো মহাকাশযানের সিসমোমিটারের তথ্য প্রকাশ করেছে। নাসার লুনার রেকন্সাঁ অর্বিটারের পাঠানো ওই ছবিগুলিতে দেখা যাচ্ছে চাঁদের পৃষ্ঠে বলিরেখা বাড়ছে। তার সঙ্গেই ক্রমাগত বেড়ে চলেছে চন্দ্রকম্প। 

পৃষ্ঠ কুঁচকে বলিরেখা পড়ে চাঁদের বুকে খাড়াই সিঁড়ির মতো ভাঁজ তৈরি হয়ে গেছে। ২০০৯ থেকে এপর্যন্ত অর্বিটার প্রায় ৩৫০০টি ছবি নিয়েছে চাঁদের অবতলের। 

বিজ্ঞানীরা আরো জানাচ্ছেন, চাঁদের পৃষ্ঠতল আগের থেকে প্রায় ৫০ গুণ বেশি বলিরেখাময়। আর যত পৃষ্ঠ কুঁচকে যাচ্ছে ততই বেড়ে যাচ্ছে কম্পন। 

অ্যাপোলো ১১, ১২, ১৪, ১৫ এবং ১৬ মহাকাশযানের পাঠানো ছবিতে দেখা যাচ্ছে ১৯৬৯-১৯৭৭ পর্যন্ত চাঁদে ২৮ বার কম্পন হয়েছে। তার মধ্যে আটটি কম্পন হয়েছে খাড়াই ভাঁজগুলিতে।

গবেষকরা মনে করছেন, চাঁদে এখনও কম্পন হওয়ার কারণ এই প্রক্রিয়া আজও বর্তমান। কারণ নাসার অর্বিটারের পাঠানো ছবিতে যে ধস এবং পাথরের ভগ্নস্তুপের উজ্জ্বল ছবি দেখা যাচ্ছে তা পরিষ্কার ইঙ্গিত করছে সেগুলি সদ্য ঘটেছে। বিকিরণ এবং ক্ষয়ের ফলে পুরনো ভাঙনগুলি অনেকটাই ম্লান হয়ে গেছে। এই কম্পনের কয়েকটার মাত্রা রিখটার স্কেলে সাত পর্যন্ত ছুঁয়েছে। 

যখন চাঁদের কক্ষপথ পৃথিবীর থেকে সব থেকে দূরে থাকে তখন জোয়ারভাটার জন্য পৃথিবীর মধ্যাকর্ষণের চাপে চাঁদের পৃষ্ঠতলে আরো ভাঙন ধরে। আর এভাবেই ক্রমশ ছোট হয়ে যাচ্ছে আমাদের চাঁদ। জানাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা। 

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর