ব্রেকিং:
প্রতিদিন কয়েকবার গরম পানির ভাপ নিয়েছি করোনায় ব্যতিক্রমী উদ্যোগ এমপিওভুক্তির সুখবর পেল ১৬৩৩ স্কুল-কলেজ ২০ হাজারের বেশি আইসোলেশন শয্যা প্রস্তুত রয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে মানুষ, দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে বৈশ্বিক ক্রয়াদেশ পূরণে সক্ষম বাংলাদেশ ॥ শেখ হাসিনা লোকসান ঠেকাতে সরাসরি ক্ষেত থেকে সবজি কিনছে সেনাবাহিনী করোনা পরীক্ষায় দেশে চালু হলো প্রথম বেসরকারি ল্যাব যে দোয়ার আমলে স্মরণশক্তি বৃদ্ধি পাবে ইনশাআল্লাহ! আল্লাহ তিন ধরনের লোকের দোয়া ফিরিয়ে দেন না করোনা রোগীদের বাড়ি প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার ভেন্টিলেটর-সিসিইউ স্থাপনে জরুরি প্রকল্প বঙ্গবন্ধুর মতো নেতা পৃথিবীতে খুব কম দেখা যায়: ট্রাম্প গবেষণা প্রটোকল জমা না দিয়েই বিষোদগার করছেন জাফরুল্লাহ জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচিতে নিয়োগ করোনা আক্রান্তের শরীরের অক্সিজেনের পরিমাণ ঘরেই পরীক্ষার উপায় মধ্যবিত্তরাও খাদ্যসহায়তার আওতায়: শিল্প প্রতিমন্ত্রী কর্মস্থল ত্যাগকারীদের তালিকা চায় মন্ত্রণালয় নাসিরনগরে শিশু নিহতের ঘটনায় গ্রেফতার ২ দেশে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্ত, আরো ৮ মৃত্যু
  • শুক্রবার   ০৫ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২২ ১৪২৭

  • || ১২ শাওয়াল ১৪৪১

১৪৬৮

বিষপানে স্কুলছাত্র হত্যা, ছয় আসামির জামিন নামঞ্জুর

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ১২ জুন ২০১৯  

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শরবতের সঙ্গে বিষপান করিয়ে স্কুলছাত্র হত্যা মামলার ছয় আসামিকে জেলহাজতে পাঠিয়েছে আদালত।
মঙ্গলবার দুপুরে জেলা বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সরওয়ার আলমের আদালতে আসামিরা আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। পরে তিনি জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
নিহত মো. মুরশেদ উল্লাহ জয় ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার মেড্ডা গ্রামের শাহীন কবীরের ছেলে। সে তার মায়ের সঙ্গে সদর উপজেলার সুহিলপুর ইউপির ঘাটুয়ায় বসবাস করতো ও ঘাটুরার গৌতমপাড়া বঙ্গবন্ধু উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র ছিল।
আসামিরা হলেন- সদর উপজেলার সুহিলপুর ইউপির ঘাটুরা গ্রামের বজলু মিয়ার ছেলে মো. কুতুবুর রহমান, গাউছুর রহমান ও অলিউর রহমান, একই এলাকার জুরু হাজারীর ছেলে রিয়াদ, অলিউর রহমানের ছেলে মুন্না এবং আজিজ খন্দকারের ছেলে রুবেল।
বাদী পক্ষের আইনজীবী মো. মোরজান মিয়া জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ২৫ এপ্রিল বিকেলে আসামিরা জয়কে বাড়ি থেকে ডেকে ঘাটুরার মিলন বাজারে অবস্থিত কুতুব উদ্দিনের মুদি দোকানে নিয়ে আসে। পরে দোকানে বসিয়ে শরবতের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে জয়কে পান করিয়ে বাড়িতে ফেরত পাঠায়। বাড়িতে গিয়ে সে অসুস্থ হয়ে পড়ে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে সদর হাসপাতালে নিলে চিকিৎক মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় পরদিন জয়ের বড় ভাই ছানাউল্লাহ রনি বাদী হয়ে সদর মডেল থানায় সাতজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। মামলার পর বজলু মিয়ার ছেলে ওসমান মিয়াকে গ্রেফতার করে পুলিশ। বাকি ছয়জন উচ্চ আদালত থেকে অন্তর্বর্তীকালীন জামিন নেন।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর