ব্রেকিং:
প্রতিদিন কয়েকবার গরম পানির ভাপ নিয়েছি করোনায় ব্যতিক্রমী উদ্যোগ এমপিওভুক্তির সুখবর পেল ১৬৩৩ স্কুল-কলেজ ২০ হাজারের বেশি আইসোলেশন শয্যা প্রস্তুত রয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে মানুষ, দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে বৈশ্বিক ক্রয়াদেশ পূরণে সক্ষম বাংলাদেশ ॥ শেখ হাসিনা লোকসান ঠেকাতে সরাসরি ক্ষেত থেকে সবজি কিনছে সেনাবাহিনী করোনা পরীক্ষায় দেশে চালু হলো প্রথম বেসরকারি ল্যাব যে দোয়ার আমলে স্মরণশক্তি বৃদ্ধি পাবে ইনশাআল্লাহ! আল্লাহ তিন ধরনের লোকের দোয়া ফিরিয়ে দেন না করোনা রোগীদের বাড়ি প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার ভেন্টিলেটর-সিসিইউ স্থাপনে জরুরি প্রকল্প বঙ্গবন্ধুর মতো নেতা পৃথিবীতে খুব কম দেখা যায়: ট্রাম্প গবেষণা প্রটোকল জমা না দিয়েই বিষোদগার করছেন জাফরুল্লাহ জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচিতে নিয়োগ করোনা আক্রান্তের শরীরের অক্সিজেনের পরিমাণ ঘরেই পরীক্ষার উপায় মধ্যবিত্তরাও খাদ্যসহায়তার আওতায়: শিল্প প্রতিমন্ত্রী কর্মস্থল ত্যাগকারীদের তালিকা চায় মন্ত্রণালয় নাসিরনগরে শিশু নিহতের ঘটনায় গ্রেফতার ২ দেশে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্ত, আরো ৮ মৃত্যু
  • মঙ্গলবার   ১১ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৮ ১৪২৭

  • || ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

৭২

বিশ্ব মাতানো নিউইয়র্ক ফ্যাশন উইকে এই প্রথম ‘বাংলাদেশ’

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ১৩ জানুয়ারি ২০২০  

বিশ্বের অন্যতম তিনটি ফ্যাশন উৎসব বসে প্যারিস, লন্ডন ও নিউ ইয়র্কে। গ্রীষ্ম ও শীত এই দুটি সিজনে ভাগ হয়ে চলে এই উৎসব। এখানে হলিউড-বলিউডসহ বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে এসে ভিড় করেন নামজাদা সব ফ্যাশন ডিজাইনার ও মডেলরা। থাকেন ফ্যাশন দুনিয়া মাতানো সাংবাদিকেরাও।

ক্যামেরার আলো ঝলকানির মধ্যে চলে নানা দেশের পোশাকের প্রদর্শনী। গ্ল্যামার ওয়ার্ল্ডে এই উৎসবগুলোর গুরুত্ব ও মর্যাদা অনেক। প্রতি বছরের ন্যায় এবারেও নিউইয়র্কের ম্যানহাটনে বসতে চলছে ফ্যাশন উইক। নিউইয়র্ক ফ্যাশন উইক নামে শীতকালীন এই আসর বসবে ৬ ফেব্রুয়ারি থেকে। চলবে ১৩ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

সুখবরটি হলো এবারের আসরে অংশ নিতে যাচ্ছে বাংলাদেশও। বাংলাদেশের জন্য এটি প্রথম অংশগ্রহণ, যা হতে চলেছে কোনো পুরুষ ডিজাইনারের মাধ্যমে। আমেরিকা প্রবাসী ওমর চৌধুরীর তত্বাবধানে অভিনেতা, প্রযোজক ও ফ্যাশন ডিজাইনার পিয়াল হোসেন নিউইয়র্ক ফ্যাশন উইকে অংশ নেবেন বলে চূড়ান্ত হয়েছে।

আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ স্যাগমেন্টে তিনি হাজির হবেন ঐতিহ্যবাহী মসলিন, জামদানি, তাঁত ও পাটের পোশাক নিয়ে। পিয়াল হোসেনের নকশা করা পোশাক পরে রানআউটে হাঁটবেন বিশ্বের নামী দামী মডেলরা। এই ভাবনায় বেশ উচ্ছ্বসিত পিয়াল হোসেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের ফ্যাশনে ঐতিহ্য মসলিন, জামদানি, তাঁত ও পাটের গুরুত্ব অনেক। এসব কাপড়ে তৈরি পোশাক তুলে ধরবো বিশ্বমঞ্চে। খুব আনন্দ হচ্ছে। অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি ৭ ফেব্রুয়ারির। আশা করছি খুব ভালো অভিজ্ঞতা হবে।

তিনি আরো বলেন, আমি ধন্যবাদ দিতে চাই নিউ ইয়র্ক ফ্যাশন উইকের পার্টনার এবং এশীয় অঞ্চলের সমন্বয়কারী ওমর চৌধুরীকে। তার হাত ধরেই অত্যন্ত সম্মানিত এই মঞ্চে যাচ্ছি আমি, হাজির থাকবে বাংলাদেশ। তিনি লন্ডনে কৈশোর কাটিয়েছেন এবং নিউ ইয়র্কে বেড়ে উঠেছেন। তবু বাংলাদেশের প্রতি তার টান ও প্রেম আমাকে মুগ্ধ করে। তিনি তার জন্মভূমিকে বিশ্বের অনন্য মর্যাদার আসনে প্রতিষ্ঠিত করতে চান বলেই এই ফ্যাশন উৎসবে আমাকে সঙ্গী করেছেন।

ওমর চৌধুরী বলেন, ফ্যাশনে বাংলাদেশ এখন অনেক এগিয়ে। এখানে অনেক চমৎকার সব ডিজাইনাররা আছেন। অনেক গুণী ও গ্ল্যামারাস মডেল রয়েছে। তারা সুযোগ পেলে বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের যোগ্য প্রতিনিধি হতে পারবে বলেই বিশ্বাস করি। আমি বেশ কয়েকজন ডিজাইনারের সঙ্গে কথা বলেছি। পিয়ালকে পারফেক্ট মনে হয়েছে। তাই এই বছরে সেই যাচ্ছে বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে। একজন মডেলও যোগ দেবেন আমাদের সঙ্গে। এরইমধ্যে সৈয়দ রুমাসহ তিনজন মডেলের সঙ্গে কথাও হয়েছে। শিডিউল ও ভিসা জটিলতায় তিনজনের মধ্যে যার সঙ্গে ব্যাটে বলে মেলানো যাবে তিনিই যোগ দেবেন নিউ ইয়র্ক ফ্যাশন উইকে।

বলিউডের মণীষ মালহোত্রা যেমন নিজেকে ডিজাইনার হিসেবে পৃথিবীতে বিখ্যাত করে তুলেছেন, তেমনিভাবে বাংলাদেশের ডিজাইনাররাও এই মঞ্চে নিয়মিত হয়ে নিজেকে বিকশিত করতে পারবেন। এটাই প্রত্যাশা করেন ওমর চৌধুরী।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
লাইফস্টাইল বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর