ব্রেকিং:
শেখ হাসিনায় আস্থা বিএনপি স্থায়ী কমিটির একাংশের খালেদার মুক্তিতে তারেকের অনীহা, হতভম্ব বিএনপি নেতৃবৃন্দ! নিউজ টুয়েন্টিফোরের ১ম বর্ষপূর্তি উদযাপন সরাইলে অবৈধ গাইড বই’র বিরুদ্ধে অভিযান বীর মুক্তিযোদ্ধা ইদ্রিছ মিয়া আর নেই সদর সার্কেলে নতুন অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের যোগদান ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অস্ত্র-মাদকসহ তিনজন গ্রেফতার গাছের চারার মধ্যে গাঁজা পাচারেও শেষ রক্ষা হলো না নারীর টিফিন বক্সে হাজার টাকার মাদক! নদী দূষণ ও দখল প্রতিরোধ বিষয়ক মতবিনিময় হত্যা মামলা তুলে নিতে বাদীর ওপর হামলা সরাইলে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে লাখো মানুষ! ভুল আসামির সাজা খাটার বিষয় খতিয়ে দেখার নির্দেশ বই পাঠ্যসূচি ও পরীক্ষায় বদল আনছে সরকার বন্ধ হয়ে যাচ্ছে দেশের তিন কোটি অবৈধ স্মার্টফোন! ইসলামে ধর্ষণ-হত্যা প্রতিরোধে করণীয় অনূর্ধ্ব-১৯ থেকে মহাতারকা হয়েছেন যারা ‘অন্তঃস্বত্ত্বা’ বুবলীকে ডলার দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র পাঠিয়েছেন শাকিব! দেশপ্রেমীরা দুর্নীতি করে না: পরশ করোনায় মৃতের সংখ্যা দুই হাজার ছাড়ালো
  • বুধবার   ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ||

  • ফাল্গুন ৭ ১৪২৬

  • || ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪১

৩৪১

বি.বাড়িয়ায় অংশীদারিত্ব বুঝে পেতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ওয়ারিশরা

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া পৌরসভাস্থ সাবেক চেয়ারম্যান প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা মাইনুল ইসলামের ডুপ্লেক্স বাড়ীর নিজেদের অংশীদারিত্ব বুঝে পেতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন তার ভাই মোঃ ফকরুল ইসলাম ও তার তিন বোন আয়েশা বেগম, দিলারা বেগম, ফেরদৌস রহমান।

গতকাল রবিবার বিকেলে মাইনুল ইসলামের বাড়ীর সামনে ফকরুল ইসলামের দখলীয় জমির অংশে সংবাদ সম্মেলন করে তারা এ দাবি করেন। 

সংবাদ সম্মেলনে ফকরুল ইসলাম ও তার তিন বোন অভিযোগ করে বলেন, প্রয়াত সাবেক চেয়ারম্যান মাইনুল ইসলাম এই দুতলা ডুপ্লেক্স বাড়ী নির্মান করার সময় কয়েক কিস্তিতে ৫৬ লাখ টাকা নিয়েছেন, বিনিময়ে ডুপ্লেক্স বাড়ীর দূ’তলার তিন রুমের দুই রুম তাদের কে দিয়েছেন কিন্তু মাইনুল ইসলাম মারা যাওয়ার পর তার ছেলে রাজীব তাদের কে বাড়ী থেকে বের করে দিয়েছেন তাদের দুই রুমে থাকতে না দিয়ে তাদের সাথে দূর্ব্যবহার করছেন। এসময় মাইনুল ইসলামের তিন বোন বলেন আমরা আমাদের পৈতৃক সম্পত্তির আমাদের অংশ দাবি করছি, আমরা দীর্ঘদিন ধরে এই দাবি করলেও তারা বিভিন্নভাবে কালক্ষেপণ করে আসছেন। তারা আরো অভিযোগ করে বলেন, আমরা তিন বোন ঢাকা থেকে এসেছি কিন্তু আমরা আসবো জেনে আমাদের ভাইপো মাজহারুল ইসলাম রাজিব বাড়ীতে তালা লাগিয়ে তার পরিবার নিয়ে বাহিরে চলে গেছে।  ফকরুল ইসলাম ও তার তিন বোন বলেন আমার ভাই মুক্তিযোদ্ধা না  এবং এই বাড়ীর জায়গা এখনো বাবার নামে আছে মাইনুল ইসলাম কোন কাজ করতেন না। এসময় বিভিন্ন সময় ঘটে যাওয়া ঘটনার বিস্তারিত বর্ননা দিয়ে সাংবাদিকদের রোটারী একটি দলিল ও বাবার নামে দলিল দেখিয়ে এসব দাবি করেন ফকরুল ইসলাম ও তার তিন বোন।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে,  মাজহারুল ইসলাম রাজিব তার বিরুদ্ধে করা ফকরুল ইসলাম ও তিন বোনের সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তারা আমার বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন অভিযোগ করে অনৈতিকভাবে আমার পিতা প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা মাইনুল ইসলামের এককভাবে নির্মাণ করা ডুপ্লেক্স বাড়ীর অংশীদার দাবি করছেন, আমার পিতা বেচেঁ থাকতেই ওয়ারিশদের আমার চাচা ও ফুফুর যাবতীয় পাওনা সমাধান করে গেছেন, এখন আমার পিতার মৃত্যুর পর এ দাবি হাস্যকর। রাজিব আরো বলেন,  আপনারা সাংবাদিকেরা দেখুন তিনি দাবির স্বপক্ষে কোন প্রমান দেখাতে পারেনি শুধু একটি ভুয়া নোটারী দলিল দেখিয়ে সবাই কে বিভ্রান্ত করছেন।

উক্ত সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিক সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর