ব্রেকিং:
নূর চৌধুরীর তথ্য প্রকাশে কানাডার আদালতে বাংলাদেশের পক্ষে রায় আখাউড়ায় শিক্ষকের যৌন হয়রানির প্রতিবাদে সড়কে শিক্ষার্থীরা সরাইলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চারপাশে জুয়া ও মাদকের আসর নাসিরনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান আখাউড়া উপজেলা ছাত্রলীগে পদ পেতে এ কি শর্ত দিলেন আইনমন্ত্রী! সরাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ১ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ব্রিটেনের প্রধান গির্জায় কোরআন তিলাওয়াতের বিরল ঘটনা স্মার্টফোনের বদলি হিসেবে ‘স্মার্ট গ্লাস’ আনছে ফেসবুক এডিআর বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক আওয়ামী লীগের নেতারা দুর্নীতি করলে ছাড় নয়: কাদের জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাবাব ফাতেমা ভাবির পরকীয়া দেখে ফেলায় জীবন দিতে হলো দেবরকে সর্বোচ্চ শক্তি দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে হামলার হুমকি ইরানের বেশি খাস জমি উদ্ধারকারী ডিসিকে পুরস্কৃত করা হবে: ভূমিমন্ত্রী বকেয়া পরিশোধে সময় পাচ্ছে রবি-গ্রামীণফোন ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের ফাইনালে বাংলাদেশ স্বর্ণজয়ী রোমান সানার মায়ের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন প্রধানমন্ত্রী জনগণের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে আন্তরিক সরকার: প্রধানমন্ত্রী আজ থেকে টানা তিন দিনের ছুটিতে আখাউড়া স্থল বন্দর ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শিক্ষার্থী সম্পৃক্তকরণ বিষয়ক কর্মসূচি অনুষ্ঠিত

বৃহস্পতিবার   ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৪ ১৪২৬   ১৯ মুহররম ১৪৪১

১১৪৯

বিপিএল ২০১৯ দ্বিতীয়বার শিরোপার স্বাদ পেল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স

প্রকাশিত: ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯  

পর্দা নামল ঘরোয়া ক্রিকেটের সব থেকে জনপ্রিয় আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল)। ঢাকা ডাইনামাইটস ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের মধ্যকার ফাইনাল ম্যাচ দিয়ে শেষ হল বিপিএলের ষষ্ঠ আসর। আর এ ম্যাচে ১৭ রানে ঢাকাকে হারিয়ে শিরোপা জয় করে নিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। ফাইনালে হেরে টানা দ্বিতীয়বারের মতো শিরোপার কাছে গিয়েও ছুঁতে পারল না ঢাকা। শিরোপা পুনরুদ্ধারে এ চেষ্টাও ব্যর্থ হল ঢাকার। 

মিরপুর শের-ই- বাংলা ক্রিকেটে স্টেডিয়ামে ফাইনালে টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় ঢাকা ডাইনামাইটসের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। কিন্তু আগে বল করে কুমিল্লাকে আটকাতে পারেনি ঢাকা। আগে ব্যাট করে ৩ উইকেট হারিয়ে কুমিল্লার ১৯৯ রান সংগ্রহ করে। ২০০ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে ১৮২ রানে ৯ উইকেট হারিয়ে ওভার শেষ হওয়াতে থেমে যায় ঢাকা। আর এতে দ্বিতীয়বারের মতো বিপিএল শিরোপার স্বাদ পেল কুমিল্লা।

২০১৭-১৮ সালে বিপিএলের পঞ্চম আসরের ফাইনালেও রংপুরের মুখোমুখি হয় ঢাকা। কিন্তু রংপুরের ছুঁড়ে দেয়া ২০৬ রানে জবাবে ১৪৯ রানেই থেমে গিয়ে শিরোপা হারায় ঢাকা। ৫৭ রানের জয়ে শিরোপা নিজেদের করে নেয় রংপুর।

এদিকে, ২০১৫-১৬ তে বিপিএলের তৃতীয় আসরে মাশরাফীর নেতৃত্বে বরিশাল বুলসকে ৩ উইকেটে হারিয়ে প্রথম শিরোপার স্বাদ পায় কুমিল্লা ভিক্টরিয়ান্স।

বড় স্কোর ২০০ রানের টার্গেটে আত্মবিশ্বাসী হয়েই ব্যাট করতে নামে সাকিবের ঢাকা। থারঙ্গা ও সুনিল নারাইন জুটি হয়তো ফাইনাল ম্যাচে একটা চমক দেখাবে বরাবরের মতো। এমনটাই প্রত্যাশা ছিল সবার। কিন্তু ভাগ্য আজ সুনিল নারাইনের পক্ষে ছিল না। ওভারের দ্বিতীয় বলে থারাঙ্গার শটে রান নিতে গেলে সাইফউদ্দিনের অসাধারণ থ্রোতে রান আউট হয়ে বিপিএল শেষ করে নারাইন। এরপর রনি তালুকদার তার রূপ দেখাতে ভুল করেনি।

থারাঙ্গা ও রনির জুটিতে রান যখন দলীয় শতক পার করেছে ঠিক তখনি ঘটল অঘটন। পেরেরার বলে উড়িয়ে মারতে গেলে ক্যাচ হয়ে আবু হায়দার রনির হাতে ধরা দেন থারাঙ্গা (৪৮)। ১০২ রানেই ভেঙে যায় তাদের পার্টনারশিপ। এরপর অধিনায়ক সাকিব এসেও সুবিধা করতে পারেনি। মাত্র ৫ বলে ৩ রান করে ওহাব রিয়াজের বলে তামিমের হাতে ক্যাচ তুলে দেন সাকিব। বেশ দূর থেকেই ছুটে এসে ক্যাচটি লুফে সাকিবকে প্যাভিলিয়নে পাঠান তামিম। তবু রানের চাকা সচল রেখেছিল রনি তালুকদার। কিন্তু ভাগ্য আর তাকে সঙ্গ দিল না। আফ্রিদির বলে রান আউট করে রনিকে (৬৬) ঘরে ফেরান এনামুল হক বিজয়।

আন্দ্রে রাসেলের উপর একটা ভরসা ছিল ঢাকার। কিন্তু আজ রাসেলও দাঁড়াতে পারল না কুমিল্লার বলের সামনে। পেরেরার বলে মাত্র ৪ রান করে ওহাব রিয়াজের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ঘরে ফেরেন রাসেল। আবারো সেই ওহাব রিয়াজের বলে তামিমের হাতেই ক্যাচ হয়ে সাঁজঘরে ফেরেন কাইরন পোলার্ড (১৩)। এতে ঢাকার শিরোপার আলো নিভতে শুরু করে। দলীয় ১৪৩ রানে ক্যাচ হয়ে ফেরেন শুভাগত হোম (০)।

তবু ঢাকা যেন কিছু আশার আলো দেখছিল সোহানের ব্যাটে। কিন্তু ক্যাচ হয়ে তাকেও ফিরতে হল ১৪ বলে ১৮ রানের এক স্কোর করে। সাইফউদ্দিনের বলে ওহাব রিয়াজের হাতে ক্যাচ হলে মাহুমুদুল হাসান লিমন (১৫)। শেষ পর্যন্ত আর কোনো উইকেট না পড়লেও ওভার শেষ হওয়াতে থেমে যেতে হয় ঢাকাকে। ১৮২ রানেই আটকে থাকে ঢাকার ইনিংস।

সবশেষে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৮২ রান সংগ্রহ করে ঢাকা ডাইনামাইটস। আর এতে ১৭ রানের জয় নিয়ে বিপিএলের ষষ্ঠ শিরোপা নিজেদের করে নিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

এর আগে টসে হেরে শিরোপার লক্ষ্যে ব্যাট নিয়ে মাঠে নামেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের তামিম ইকবাল ও এভিন লুইস। কিন্তু শুরুটাই ভালো হল না তাদের। খেলার দ্বিতীয় ওভারে রুবেলের পঞ্চম বলে এলবি আউট হয় লুইস। দলীয় রান যখন ৯। রিভিউ নিয়েও লুইসকে বাঁচাতে পারেনি কুমিল্লা। এরপর ফেরেন এনামুল হক বিজয় ও শামসুর রহমান। বিজয় এলবিতে আউট হলেও শমাসুর রহমান ফেরেন রান আউটে। আর দু’জনকেই ফেরান ঢাকার অধিনায়ক। এরপর আর কোনো উইকেট নিতে সক্ষম হয়নি ঢাকা। তামিম ইকবাল একাই নিজের কাঁধে করে কুমিল্লাকে এনে দিয়েছেন ফাইটিংয়ের বড় স্কোর।

তামিম ইকবাল অপরাজিত থেকে ১৪১ রানের ইনিংস উপহার দেন দলকে। ১১টি ওভার বাউন্ডারি ও ১০টি বাউন্ডারিতে সাজানো ছিল তার ইনিংস। অধিনায়ক ইমরুল কায়েসও অপরাজিত ১৭ রানের ইনিংস খেলেন। শিরোপা জিততে ঢাকার সামনে ২০০ রানের বড় টার্গেট ছিল। কিন্তু টার্গেট অর্জন করতে ব্যর্থ হয় তৃতীয়বারের শিরোপাজয়ী ঢাকা।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর