ব্রেকিং:
সিটি নির্বাচন: দুই হাজার মণ পলিথিন বর্জ্য তৈরির শঙ্কা নবীনগরে চলছে কোরআন তেলাওয়াত প্রতিযোগিতা ভাইরাসবাহী সন্দেহে বাংলাদেশীকে ফেরত পাঠালো ভারত একমাত্র ছেলের ছবি বুকে জড়িয়ে রাস্তায় মা মরদেহ আনতে আখাউড়া বর্ডারে হাজার হাজার মানুষ লেবাননে সড়ক দুর্ঘটনায় কসবায় শোকের মাতম প্রতিবন্ধিতা ও বৈষম্যহীন স্বদেশ, কুষ্ঠমুক্ত হোক আমাদের বাংলাদেশ জমে উঠেছে নবীনগর শিক্ষক সমিতির নির্বাচন অটোরিকশা চার্জ দিতে গিয়ে কিশোরের মৃত্যু আখাউড়ায় মাদকসহ ব্যবসায়ী আটক লুকানো গাঁজাসহ মামা-ভাগিনা আটক অসহায় শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ পুকুর দূষণ রোধে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন করোনার চিকিৎসায় এইডসের ওষুধ, সুস্থ হলেন ৪৯ জন! রাতের ঢাকায় মিজানুরের মতো আরো তিন জনকে হত্যা করে তারা নারীদের সুরক্ষা দেবে জাবি শিক্ষার্থীর বানানো ‘অ্যালাই’ গ্রাহককে জিম্মি করে কোটিপতি ইভ্যালি সিভি’র যে ভুলগুলো আপনার জানা জরুরি ইসলামের দৃষ্টিতে মহামারির কারণ ও করণীয় সন্তানরা কোন ধর্মের জানালেন শাহরুখ খান

মঙ্গলবার   ২৮ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ১৫ ১৪২৬   ০২ জমাদিউস সানি ১৪৪১

৩১৬

বিএনপি ছেড়ে জাতীয় পার্টিতে যোগ দিলেন ২ নেতা!

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ২২ আগস্ট ২০১৯  

যোগ্যতার অবমূল্যায়ন, রাজনীতির নামে শোষণ ও চাঁদাবাজিতে বিরক্ত হয়ে বিএনপি ছেড়ে জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেছেন কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আবদুস সাত্তার পোদ্দার এবং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন।

সোমবার (১৯ আগস্ট) রাজধানীর বনানীতে জাতীয় পার্টি (জাপা) চেয়ারম্যানের অফিসে জাপা চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদেরের হাতে ফুল দিয়ে জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেন বিএনপির এই নেতারা। তবে দুর্দিনে দলত্যাগ করায় স্থানীয় পর্যায়ে সমালোচনারও শিকার হচ্ছেন বিএনপির এই দুই নেতা। যদিও বিএনপি ছেড়ে জাতীয় পার্টির সাথে রাজনীতি করার সিদ্ধান্তে অনড় রয়েছেন আবদুস সাত্তার পোদ্দার ও সাখাওয়াত হোসেন।

হঠাৎ বিএনপি ছেড়ে জাতীয় পার্টিতে যোগদানের বিষয়ে জানতে চাইলে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আবদুস সাত্তার পোদ্দার বলেন, বিশ বছরের বেশি সময় ধরে বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলাম। দলের জন্য অনেক কিছু করেছি। নিয়মিত চাঁদা দিয়েছি। মিছিল-মিটিং করেছি, জেল-জুলুম সহ্য করেছি। কিন্তু যোগ্যতার সঠিক মূল্যায়ন পাইনি। সর্বশেষ কমিটিতে সভাপতি হওয়ার যোগ্য সত্ত্বেও টাকার কাছে হেরে গেলাম। কেন্দ্রে টাকা পাঠিয়ে আমাকে সভাপতি পদে নির্বাচিত করা হয়নি।

তিনি আরো বলেন, সান্ত্বনা পুরষ্কার হিসেবে আমাকে উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতির পদ দেয়া হলো। যা আমার জন্য অপমানজনক। মেধা, শ্রম ও যোগ্যতার বিচারে আমাকে ঠকিয়েছে বিএনপির হাইকমান্ড। এছাড়া দলের কোন কার্যক্রম নেই উপজেলায়। পুরো কুমিল্লা জেলায় বিএনপির রাজনীতিতে যেন মরচে পড়েছে। তাই আমি বিএনপি ছেড়ে দিয়েছি। এখন জাতীয় পার্টি রাজনীতি করে জনগণের সেবা করতে চাই।

এদিকে বিষয়টিকে ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি রাবেয়া চৌধুরী জানান, শুনেছি- আবদুস সাত্তার ও সাখাওয়াত হোসেন বিএনপি ছেড়ে জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেছেন। আসলে এই দুজন সুবিধাবাদী নেতা হিসেবে এলাকায় পরিচিত। তারা দলের নাম ভাঙ্গিয়ে উপজেলার বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নিয়েছেন। এলাকায় সিন্ডিকেট গড়ে নিত্য নতুন ফন্দিতে অর্থ উপার্জন করাই তাদের পেশা। ইদানীং তাদের বাটপারি প্রচার হওয়ায় তারা দল ছেড়ে নতুন দলে ভিড়েছেন। এরা যেকোন রাজনৈতিক দলের জন্য বিষাক্ত কীট স্বরূপ। এদের কারণে বিএনপির রাজনীতি আজ প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর