ব্রেকিং:
কসবায় ভিজিডি কার্ডের চাউল বিতরণ মাদক বিরোধী অভিযানে আটক তিন কারা থাকছে আখাউড়ায় ছাত্রলীগের কমিটিতে সুশাসনের জন্য দুর্নীতিই প্রধান অন্তরায় সরাইলে অপপ্রচার নিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ বিএনপি নেতা দুদুর বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মামলা বিএনপি’র পকেট কমিটি বাতিলের দাবীতে বিক্ষোভ ও ঝাঁড়ু মিছিল ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত মুসলিম যাত্রী থাকায় আমেরিকান এয়ারলাইনসের ফ্লাইট বাতিল নির্ধারিত সময়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে: এলজিআরডি মন্ত্রী ব্যাংক নোটের আদলে বিল ব্যবহারে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হুঁশিয়ারি তিন স্পা সেন্টার থেকে ১৬ নারী ও ৩ পুরুষ আটক দেশে বেড়েই চলেছে ইন্টারনেটের গ্রাহক সংখ্যা শাবিপ্রবি উপাচার্য ফরিদ উদ্দিনের অনিয়ম ও দুর্নীতির শ্বেতপত্র রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সরকারের উদ্যোগের ঘাটতি নেই ক্যাসিনো চালাতে দেয়া হবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তেল স্থাপনায় হামলার প্রতিশোধ নেবে সৌদি আরব অনুপ্রবেশকারীদের চিহ্নিত করছে আওয়ামী লীগ মাদক ব্যবসায়ীদের চেনার উপায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ১১ জন খেলাঘরের জাতীয় পরিষদে

সোমবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৮ ১৪২৬   ২৩ মুহররম ১৪৪১

৩৫১৮

বিএনপির ভোট বর্জনের প্রবণতা আছে: শেখ হাসিনা

প্রকাশিত: ২৯ ডিসেম্বর ২০১৮  

নির্বাচনের মাঝপথে বিএনপির ভোট বর্জনের প্রবণতা আছে বলে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সুষ্ঠু ভোট আয়োজনে যেন অন্যান্য দলের প্রার্থীরা শেষ পর্যন্ত মাঠে থাকে।

শনিবার বেলা ১১টার দিকে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) বিএনপি-জামায়াতের হামলায় আহত দিনাজপুর আওয়ামী লীগ নেতা ডাক্তার মাহবুবুর রহমানকে দেখতে গিয়ে এই মন্তব্য করেন তিনি।

চিকিৎসক ও পরিবারের সদস্যরা প্রধানমন্ত্রীকে জানান, হাসাপাতাল থেকে বাসায় ফেরার পথে ডাক্তার মাহবুবের উপর হামলা হয়। চাপাতির কোপ ঠেকাতে গিয়ে তার দুই হাতের চারটি আঙ্গুলে মারাত্মক আঘাত পায়। তবে অস্ত্রোপচারের পর তিনি শঙ্কামুক্ত।

পরে শেখ হাসিনা উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, নির্বাচন বানচাল করতে সন্ত্রাস ও নানা ষড়যন্ত্র চলছে। ভোটারদের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত। যেকোনো ধরনের অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্রের বিষয়ে সজাগ থাকতে তিনি ভোটার ও নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, শেষ পর্যন্ত একটা সতর্ক আমি করতে চাচ্ছি। ওদের (বিএনপি) একটা চরিত্র আছে ওরকম। হয়তো নির্বাচন চলাকালীন সময় হঠাৎ মাঝপথে বলবে, আমরা ইলেকশন করব না। আমরা প্রত্যাহার করে নিলাম। সেই ক্ষেত্রে আমি বলব, যারা যারা প্রার্থী, অন্যান্য দলের যেসব প্রার্থী বা আমাদের দলের প্রার্থী যারা আছেন, তাদের নির্বাচনটা কিন্তু সম্পূর্ণ চালিয়ে যেতে হবে এবং প্রত্যেকটা ভোটকেন্দ্রে যারা আমাদের প্রতিনিধি থাকবে বা এজেন্ট থাকবে তাদেরকে থাকতে হবে এবং রেজাল্ট নিয়ে না আসা পর্যন্ত নির্বাচনটা চালাতে হবে।’

এ সময় তিনি আরো বলেন, প্রচারণার সময় বিভিন্ন জেলায় চোরাগুপ্তা হামলায় প্রাণ গেছে ছয় আওয়ামী লীগ কর্মীর। আহত হয়েছেন চার শতাধিক। অথচ আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে নালিশ করে বেড়াচ্ছে ঐক্যফ্রন্ট।

অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠ নির্বাচন চায় আওয়ামী লীগ। তাই কোনো সংকট সৃষ্টি হোক এটি কাম্য নয় বলেও জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর