ব্রেকিং:
প্রতিদিন কয়েকবার গরম পানির ভাপ নিয়েছি করোনায় ব্যতিক্রমী উদ্যোগ এমপিওভুক্তির সুখবর পেল ১৬৩৩ স্কুল-কলেজ ২০ হাজারের বেশি আইসোলেশন শয্যা প্রস্তুত রয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে মানুষ, দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে বৈশ্বিক ক্রয়াদেশ পূরণে সক্ষম বাংলাদেশ ॥ শেখ হাসিনা লোকসান ঠেকাতে সরাসরি ক্ষেত থেকে সবজি কিনছে সেনাবাহিনী করোনা পরীক্ষায় দেশে চালু হলো প্রথম বেসরকারি ল্যাব যে দোয়ার আমলে স্মরণশক্তি বৃদ্ধি পাবে ইনশাআল্লাহ! আল্লাহ তিন ধরনের লোকের দোয়া ফিরিয়ে দেন না করোনা রোগীদের বাড়ি প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার ভেন্টিলেটর-সিসিইউ স্থাপনে জরুরি প্রকল্প বঙ্গবন্ধুর মতো নেতা পৃথিবীতে খুব কম দেখা যায়: ট্রাম্প গবেষণা প্রটোকল জমা না দিয়েই বিষোদগার করছেন জাফরুল্লাহ জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচিতে নিয়োগ করোনা আক্রান্তের শরীরের অক্সিজেনের পরিমাণ ঘরেই পরীক্ষার উপায় মধ্যবিত্তরাও খাদ্যসহায়তার আওতায়: শিল্প প্রতিমন্ত্রী কর্মস্থল ত্যাগকারীদের তালিকা চায় মন্ত্রণালয় নাসিরনগরে শিশু নিহতের ঘটনায় গ্রেফতার ২ দেশে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্ত, আরো ৮ মৃত্যু
  • শনিবার   ০৬ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২৪ ১৪২৭

  • || ১৪ শাওয়াল ১৪৪১

৮৭৭

বাঁচতে চায় বিরল রোগে আক্রান্ত মোস্তাকিম

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ৩ নভেম্বর ২০১৯  

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার দক্ষিণ ইউনিয়নের হীরাপুর দক্ষিণ পাড়া গ্রামের দরিদ্র  নজরুল ইসলাম বিকাশ(২৫) পেশায় একজন রিক্সা চালক। থাকেন ছোট্ট একটি নড়বড়ে টিনের ঘরে। তবুও স্ত্রী ও দুই সন্তানকে নিয়ে রিক্সা চালানোর আয় দিয়ে বেশ ভালোই চলছিলো তাদের ছোট্ট সুখের সংসার। এখন বড় সন্তান মোস্তাকিমের বিরল রোগই যেন তাদের সকল সুখ কেড়ে নেবার কারণ। প্রায় ৫ বছর ধরেই মোস্তাকিমের পুরো শরীরে দেখা দেয় চুলকানি। একসময় চুলকাতে চুলকাতে সারা শরীরের মাংসে দেখা দেয় ক্ষত। হাত ও পায়ে দেখা দেয় বুড়ো মানুষদের মতো চামড়া জমে যাওয়া।

রিক্সা চালিয়ে নজরুল যা কিছু জমা করে ছিলেন সবই শেষ করেছেন বড় ছেলে মোস্তাকিম কে বাচাঁতে। কুমিল্লা-ঢাকা সহ বেশ কয়েকজন ডাক্তার দেখানোর পর প্রায় ১৫ টি পরিক্ষা করানোর পরেও ডাক্তার বলতে পারছেনা এ রোগের নাম। খরচ হয়েছে জীবনের সব সঞ্চয়। এখন মোস্তাকিমের চিকিৎসার জন্য প্রয়োজন অনেক টাকা। তার শরীরে চুলকাতে চুলকাতে যখন শিশুটি কেঁদে ওঠে তখন যেন মা-বাবার বুক ফেটে যায় এনময় এক হৃদয় বিদারক সময় যাচ্ছে তাদের।

শিশুটির মা শারমিন আক্তার কেঁদে কেঁদে বলেন, আমার এই ছেলেটির শরীরের চুলকানি শুরু হয় প্রায় ৫ বছর আগে। এর পর থেকে ধীরে ধীরে এ রোগটি তার সারা শরীরে ছড়িয়ে পরে। চুলকানের সময় ওর কান্না দেখলে আমার বুকটা ফেটে যায়। আমি কি করবো বুঝতে পারছিনা। আমাদের যা কিছু ছিলো সব কিছু দিয়েও ওর চিকিৎসা কার্য সম্পন্ন করতে পারিনি। আমরা দেশবাসীর কাছে আমার সন্তানকে বাচাঁতে সাহায্য চাইছি।

শিশু মোস্তাকিমের বাবা নজরুল ইসলাম বিকাশ বলেন,   আমার ছেলেটির রোগের নাম কোন ডাক্তারই বলতে পারেননি। ডাক্তার বলেছে আরো উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকার কোন ভালো হাসপাতালে নিয়ে যেতে হবে। আমি এমনিতেই ওর চিকিৎসার জন্য অনেক মানুষের কাছ থেকে ধার করে টাকা এনেছি। এখন আমি কি আমার কিডনি বিক্রি করে ওর চিকিৎসা করবো আমি বুঝতে পারছিনা। দেশের বিত্তবানরা আমাকে সাহায্য করুন আমার এ অবুঝ শিশুটিকে বাচাঁতে, আমি আপনাদের কাছে চির কৃতজ্ঞ থাকবো।

যোগাযোগঃ মোস্তাকিমের মা- ০১৬৪৬-২৬২৪৩৬

বিকাশ নাম্বারঃ পার্সোনাল ০১৯৮৩-০৭৩১৪৫

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর