ব্রেকিং:
চুরিকৃত অটোরিক্সাসহ ৪ চোর গ্রেফতার স্কুল পরিদর্শনে গিয়ে পাঠদান করলেন ইউএনও এন.এস.আই এর মাদক বিরোধী অভিযানে আটক ২ কসবায় ভিজিডি কার্ডের চাউল বিতরণ মাদক বিরোধী অভিযানে আটক তিন কারা থাকছে আখাউড়ায় ছাত্রলীগের কমিটিতে সুশাসনের জন্য দুর্নীতিই প্রধান অন্তরায় সরাইলে অপপ্রচার নিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ বিএনপি নেতা দুদুর বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মামলা বিএনপি’র পকেট কমিটি বাতিলের দাবীতে বিক্ষোভ ও ঝাঁড়ু মিছিল ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত মুসলিম যাত্রী থাকায় আমেরিকান এয়ারলাইনসের ফ্লাইট বাতিল নির্ধারিত সময়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে: এলজিআরডি মন্ত্রী ব্যাংক নোটের আদলে বিল ব্যবহারে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হুঁশিয়ারি তিন স্পা সেন্টার থেকে ১৬ নারী ও ৩ পুরুষ আটক দেশে বেড়েই চলেছে ইন্টারনেটের গ্রাহক সংখ্যা শাবিপ্রবি উপাচার্য ফরিদ উদ্দিনের অনিয়ম ও দুর্নীতির শ্বেতপত্র রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সরকারের উদ্যোগের ঘাটতি নেই ক্যাসিনো চালাতে দেয়া হবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তেল স্থাপনায় হামলার প্রতিশোধ নেবে সৌদি আরব

সোমবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৮ ১৪২৬   ২৩ মুহররম ১৪৪১

৪৮

ফিফার রেফারি হলেন বাংলাদেশের দুই নারী

প্রকাশিত: ২৪ আগস্ট ২০১৯  

ফিফার রেফারি হলেন বাংলাদেশের দুই নারী। বাংলাদেশের প্রথম নারী হিসেবে তারাই এই সম্মান অর্জন করলেন। তারা হলেন সাবেক নারী ফুটবলার জয়া চাকমা ও সালমা ইসলাম মনি। আগামী বছরের জানুয়ারি থেকে ফিফার তালিকাভুক্ত হয়ে যাবেন তারা। তখন থেকে ফিফা আয়োজিত আন্তর্জাতিক ফুটবল ম্যাচ পরিচালনা করতে পারবেন বাংলাদেশের এই দুই নারী রেফারি। 

এ বিষয়টি নিশ্চিত করে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের রেফারিজ কমিটির ডেপুটি চেয়ারম্যান ইব্রাহিম নেসার জানান, জয়া চাকমা এবং সালমা ইসলাম মনি দুইজনই এবারের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন। এখন তাদের নাম পাঠিয়ে দেব ফিফায়। আগামী বছর জানুয়ারি থেকে ফিফার তালিকাভুক্ত হয়ে যাবেন তারা।

খেলা ছেড়ে ২০১০ সাল থেকে ফুটবল মাঠে ম্যাচ পরিচালনা করছেন রাঙ্গামাটির মেয়ে জয়া চাকমা। তবে তা ঘরের মাঠে এবং দক্ষিণ এশিয়ায় বিভিন্ন টুর্নামেন্টে। অপরদিকে ২০১৩ সাল থেকে রেফারি হিসেবে ম্যাচ পরিচালনা করছেন সালমা। অবশেষে আন্তর্জাতিক ম্যাচে পরিচালনার স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে তাদের।

শুক্রবার রাতে গণমাধ্যমকে জয়া বলেন, আমার যেনো বিশ্বাসই হচ্ছিল না। এর আগে দুইবার পরীক্ষা দিয়েও পাস করতে পারিনি। স্বপ্ন থেকে সরে যাইনি। হতাশও হইনি। অবশেষে আমার স্বপ্ন সত্যি হতে যাচ্ছে। এ আনন্দ ভাষায় প্রকাশ করতে পারব না। এবার আমি নিজের ফিটনেস পরীক্ষাটা ভালোভাবে দিয়েছি। চেষ্টা করেছি পাস করতে। শেষ পর্যন্ত আমি পেরেছি।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর