ব্রেকিং:
নবীজি (সা.) এর বিদায় হজের ভাষণ দু’দেশের অমীমাংসিত বিষয়গুলোর সমাধান হবে: কাদের মুখ দিয়ে পবিত্র কোরআনের পাতা উল্টিয়ে ৩০ পারা মুখস্থ ঈদে সড়কের পরিস্থিতি যেন গতবারের পুনরাবৃত্তি না হয়: কাদের পাঁচ বছরের মধ্যে দেশে শতভাগ ইন্টারনেট: পলক ১৬ জনকে আসামি করে নুসরাত হত্যাকাণ্ডের অভিযোগপত্র প্রস্তুত বাংলাদেশ প্রেক্ষাপট, আন্ত-অভিযানে স্থলবাহিনীর সক্ষমতা বৃদ্ধি পার্বত্য অঞ্চলের শিশুরা শিক্ষা বঞ্চিত হবে না: শিক্ষামন্ত্রী স্থগিত ৫ উপজেলায় ভোট ১৮ জুন চাল আমদানি কমাতে শুল্ক বাড়ল দ্বিগুণ তিন বছরে বাংলাদেশের সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা আটটি বেড়ে এখন ১১৪টি পরিবর্তন ছাড়াই ১৫ সদস্যে ভরসা বাংলাদেশের দেশে সর্বোচ্চ বিদ্যুৎ উৎপাদনের রেকর্ড ৮০ বছরের মধ্যেই সমুদ্রে তলিয়ে যাবে বাংলাদেশ! দেশকে উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে পরিণত করেছে সরকার: পাটমন্ত্রী কোরআন অনুবাদ করতে গিয়ে মুসলমান হলেন ধর্ম যাজক ‘জাল’ প্রতিরোধে ১০০০ টাকার নতুন নোট নতুন চমক, দেশে চালু হচ্ছে বেকার ভাতা লক্ষ্যমাত্রার বেশি ধান কিনতে সুপারিশ শেখ হাসিনাকে বরণের অপেক্ষায় জাপান: রাষ্ট্রদূত

শুক্রবার   ২৪ মে ২০১৯   জ্যৈষ্ঠ ১০ ১৪২৬   ১৯ রমজান ১৪৪০

১২

প্রেম করতে মমতার বিশাল ছাড়!

প্রকাশিত: ১৫ মে ২০১৯  

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী এবং সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিষ্ঠাতা-সভানেত্রী মমতা ব্যানার্জি বলেছেন, বিয়ের আমন্ত্রণপত্রে মুসলিম নাম লিখতে লজ্জা পেলে আমার নামে করে দেবেন। 

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দক্ষিণ কলকাতার টালিগঞ্জ ফাঁড়ি এলাকায় একটি নির্বাচনী জনসভায় উপস্থিত হয়ে মমতা বলেন, ‘আমার কাছে একদিন খুব পরিচিত এসে বলল মনটা খুব খারাপ। আমি বললাম কি হয়েছে? সে বলল আর বলবেন না, আমার মাইয়াটা বাংলাদেশের একটা মুসলিম ছেলের সঙ্গে প্রেম করছে। আমার পরিবার পরিজনেরা তো খুব গালি দিতেছে। আমি কি করি বলুন তো, আমি ধর্ম সংকটে পইড়া গেছি। 

আমি তাকে বললাম, ওরা দুইজনে কোথায় দেখা হয়েছিল? সে বলল লন্ডনে পড়তে গিয়েছিল, দুইজনের দেখা হয়েছিল এবং তাদের মধ্যে প্রেম হয়। আমি তাকে বলেছিলাম ছেড়ে দিন না, ওরা যা ভাল বুঝবে তাই করবে। আপনার এ ব্যাপারে মাথা খারাপ করার কি দরকার? আর যদি মনে করেন যে আমন্ত্রণপত্রে এটা লিখতে লজ্জা পাচ্ছেন, তবে আমন্ত্রণপত্র আমার নামে করে দেবেন।’ 

এ সময় সভায় জনগণের উদ্দেশ্যে মমতা বলেন, আপনারা যদি ওই ভদ্রলোকের নাম জিজ্ঞাসা করেন, আমি বলবো আমাদের মন্টুদা।  জাত-পাত, ধর্ম নিয়ে বিজেপিকে খোঁচা দিতে গিয়ে নিজের এই পরিচিত ব্যক্তির উদাহরণ তুলে ধরেন মমতা। 

মমতা আরো বলেন, দেখুন আমি খুব লিবারেল (স্বাধীন)। একটা অল্পবয়সী ছেলে কো-এডুকেশন স্কুলে পড়ে, কো-এডুকেশন কলেজে পড়ে। এক সঙ্গে বিভিন্ন জায়গায় কাজ করে। একটা ছেলে-মেয়ে যদি গল্প করে, এক সঙ্গে বেড়াতে যায়-সেটাতে আমি খারাপ দেখি না। মনটা ভাল থাকলে সবটাই ভাল থাকে। বরং আমি নব প্রজন্মের এই যে অ্যাটিটিউড বা স্বাধীনভাবে মেলামেশা-এটাকে আমি পছন্দ করি। 

তিনি আরো বলেন, আমাকে আপনারা অনেকে বলতে পারেন আপনি কি এতটা নমনীয়? আমি বলবো হ্যাঁ, আমি এতটাই নমনীয়। আপনারা হয়তো জানেন না যে আমি একসময় বাড়ির বউদের বলতাম যে, তোমরা যদি মনে করো কারো সঙ্গে প্রেম করবে, করতে পারো। আমার তোমাদের অনুমতি দেয়া থাকলো। কারণ আমাদের যতগুলো বিয়ে হয়েছে-তার একটাও দেখে করিনি। তার কারণ হচ্ছে আমার মা কখনও বাধা দেয়নি। যে যেটা পছন্দ করেছে, ঠিক করেছে-সেটা তার মতো করতে দেয়া উচিত। 

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর