ব্রেকিং:
শিশু মৃত্যু ৬৩ শতাংশ কমিয়েছে বাংলাদেশ শনিবার সকাল পর্যন্ত ৩১ ব্যাংকের বুথ বন্ধ প্রাথমিক শিক্ষায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শ্রেষ্ঠ আশুগঞ্জের ইউএনও বিজয়নগরে ট্রাক্টর চাপায় শিশু নিহত শাহ মোহাম্মদ শামছুল আলম আর নেই ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতাল যেনো ভূতের আখড়া! ধর্ষণ শেষে শ্বাসরোধে হত্যা....... নবীনগর ছাত্রকল্যাণ পরিষদের সভাপতি মিনহাজ, সম্পাদক জয় ২০ লাখ পাসপোর্ট কেনার প্রস্তাব অনুমোদন থার্টিফার্স্ট নাইটে রাস্তায় গান-বাজনা নিষেধ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মেঘালয়ে মোবাইল ইন্টারনেট বন্ধ, শিলংয়ে কারফিউ রোহিঙ্গা গণহত্যার বিষয়ে শিগগিরই সিদ্ধান্ত: আইসিজে প্রেসিডেন্ট রঙিন চেয়ারে বসিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা কার্ড জালিয়াতি করে ভাতা উত্তোলন, অতঃপর... ফেন্সিডিল-স্কফ ও ইয়াবাসহ নারী ব্যবসায়ী আটক উন্নয়ন কাজে চাঁদাবাজি ও হুমকি, ঠিকাদারদের নিন্দা ‘সত্য মিথ্যা যাচাই আগে,ইন্টারনেটে শেয়ার পরে’ পিএর বিরুদ্ধে স্ত্রী নির্যাতনের অভিযোগ আধুনিক ও আদর্শ পৌরসভা করতে সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

শনিবার   ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৯ ১৪২৬   ১৬ রবিউস সানি ১৪৪১

৯২

পিএসসিতে প্রক্সি, ১৯ শিক্ষার্থী বহিষ্কার

প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর ২০১৯  

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় পঞ্চম শ্রেণির সমাপনীতে (পিএসসি) অন্যদের দিয়ে পরীক্ষা দেওয়ানোর অভিযোগে ১৯ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এছাড়া প্রক্সি দিতে আসা শিক্ষার্থীদের অভিভাবক ও দুই স্কুল শিক্ষিকাকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মঙ্গলবার (২০ নভেম্বর) সকালে গণিত পরীক্ষা চলাকালে উপজেলার তুলাই শিমুল উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ জালিয়াতি ধরা পড়ে। ওই কেন্দ্রে উপজেলার মনিয়ন্দ ইউনিয়নের সাতটি একই এলাকার আনন্দ স্কুলের ৩৮ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেয়। এর মধ্যে ১৯ জনের হয়ে পরীক্ষা দিচ্ছিল উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

বিষয়টি জেনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাহমিনা আক্তার রেইনা, কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বিআরডিবি কর্মকর্তা মো. খোরশেদ আলমসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত হয়ে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেন।

তুলাই শিমুল কেন্দ্রের কেন্দ্র সচিব ও তুলাই শিমুল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুল করিম বলেন, এক শিক্ষার্থীর হাতের লেখা সুন্দর দেখে কক্ষ পরিদর্শক তার প্রসংশা করেন। তখন অন্য শিক্ষার্থীরা জানায় ওই পরীক্ষার্থী অষ্টম শ্রেণিতে পড়ে। বিষয়টি তিনি কেন্দ্র সচিবকে জানান। পরে খোঁজ নিয়ে দুটি কক্ষে ১৯ জন শিক্ষার্থীকে পাওয়া যায় যারা প্রক্সি দিচ্ছে। পরে তাৎক্ষণিকভাবে ওই শিক্ষার্থীদের বহিষ্কার করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাহমিনা আক্তার রেইনা বলেন, প্রক্সি পরীক্ষার খবর পেয়ে ওই স্কুলে যাই। বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে ১৯ পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করি। সেই সঙ্গে প্রক্সি দিতে আসা শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের ডেকে এনে ৫০০ টাকা করে জরিমানা করা হয়।

এ সময় ওই কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা দুই শিক্ষককে সাথী আক্তার ও পপি আক্তারকে কর্তব্যে অবহেলার জন্য ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর