ব্রেকিং:
ব্রাহ্মণবাড়িয়া পলিটেকনিকে চিকিৎসকের বিকল্প রোবট আবিষ্কার! জুয়া বন্ধের পূর্ণাঙ্গ রায়ে কোরআনের রেফারেন্স গার্মেন্টস ওয়েস্ট থেকে সেনিটারি প্যাড! বারবার রিফ্রেশে কি কম্পিউটারের গতি বাড়ে? নারী ও শিশুদের রক্ষায় অ্যাপ চালু হচ্ছে: আইজিপি বৃষ্টি নিয়ে দুঃসংবাদ জানালো আবহাওয়া অফিস ইংরেজি উচ্চারণে যারা বাংলা বলে তাদের সমালোচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী দেয়ালে আঁকা ছবিতেই ফুল দিলো ৯৯৪ স্কুলের শিক্ষার্থী ভাষা দিবসে বাংলায় রিপোর্ট প্রকাশ করল জাতিসংঘ মুজিববর্ষে চালু হচ্ছে নতুন নতুন শিল্পকারখানা স্কুল জীবনে কলাগাছ দিয়ে শহীদ মিনার বানানোর অনুভূতি বাজার ব্যবস্থাপনা নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মতবিনিময় সভা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অভিনব পন্থায় গাঁজা পাচার ‘নিয়মিত সার পেতে সংশ্লিষ্টদের আন্তরিক হতে হবে’ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেফতার অটোরিকশার কারখানা সিলগালা, মালামাল জব্দ ব্রাহ্মণবাড়িয়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মানুষের শ্রদ্ধা বাংলা ভাষায় ওয়েবসাইট চালু করল মার্কিন দূতাবাস ভাষা আন্দোলনের শুরু থেকে শেষ ভাষা শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
  • শনিবার   ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ||

  • ফাল্গুন ৯ ১৪২৬

  • || ২৭ জমাদিউস সানি ১৪৪১

৯৭

নোয়াখালীর বাসিন্দা পরিচয় দেয়া তিন রোহিঙ্গা গ্রেফতার

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

পালিয়ে তুরস্ক যাওয়ার প্রস্তুতি নেয়ার সময় চট্টগ্রামের আকবরশাহ এলাকা থেকে বাংলাদেশি পাসপোর্টসহ তিন রোহিঙ্গা গ্রেফতার হয়েছে। এদিকে বায়েজিদ এলাকা থেকে বাংলাদেশি জাতীয় পরিচয়পত্রসহ গ্রেফতার হয়েছেন আরো চারজন। মোবাইল সিম ব্যবহারসহ বিনা বাধায় রোহিঙ্গারা পাসপোর্ট করেছিলো বলে জানায় পুলিশ।

পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের আকবরশাহ এলাকা থেকে ইউসুফ, মুসা এবং আজিজ নামে ৩ যুবককে আটক করা হয়। তাদের কাছ থেকে ৩টি পাসপোর্ট জব্দ করা হয়। 

প্রথমে তারা নিজেদের নোয়াখালীর বাসিন্দা বলে দাবি করলেও পরে রোহিঙ্গা বলে স্বীকার করে। তারা জানায়, তুরস্ক দূতাবাসে যাচ্ছিলো ভিসা নিতে। রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট পাইয়ে দেয়ার ক্ষেত্রে সহযোগিতাকারী ৪ জন দালালের নামও পেয়েছে পুলিশ।

সিএমপি’র আকবরশাহ থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী বলেন, তারা বাংলাদেশি পাসপোর্ট দিয়ে তুরস্কের ভিসা আবেদন করে সেখানে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। ইউরোপের একটি রোহিঙ্গা সংগঠনের সঙ্গে তারা যোগাযোগ করেছিলেন। তাদের পরিবারের সকল সদস্যের কাছে বাংলাদেশি মোবাইল সিমকার্ড রয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা বলেছেন, ক্যাম্প থেকেই তারা এই সিমগুলো কিনেছেন।

একই সময় বায়েজিদ থানা পুলিশ বামা্ কলোনী থেকে এনআইডি কার্ডসহ আরো ৪ রোহিঙ্গাকে আটক করে। এরমধ্যে ৩ জন নারী এবং ১জন পুরুষ। নিধারিত ক্যাম্প ছেড়ে চট্টগ্রামে আসার ব্যাপারে তারা কোনো সুনির্দিষ্ট কারণ জানাতে পারেনি।

বায়োজিদ থানার ওসি আতাউর রহমান খন্দকার বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে তাদের কাছ থেকে কোনো সন্তোষজনক উত্তর পাইনি। একবার বলছেন, বেড়াতে এসেছি, আরেকবার বলছেন, এখানে থাকতে এসেছি।

পাসপোর্ট এবং এআইডিসহ ৭ রোহিঙ্গাকে আটকের ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে পৃথক দু'টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এর আগে বৃহস্পতিবার বিকালে পাসপোর্ট করাতে এসে বিভাগীয় পাসপোর্ট কার্যালয় থেকে এক রোহিঙ্গা যুবককে আটক করা হয়েছিলো।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
সারাবাংলা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর