ব্রেকিং:
রাজধানীতে ৫০ কোটি টাকার সাপের বিষ উদ্ধার ভারতের দূর্বল জায়গায় আঘাত করবে বাংলাদেশের স্পিন অস্ত্র! মাদকাসক্ত হলেই সরকারি কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা রিকশা চালক শিশু স্বপ্না ডাক্তার হতে চায় ১১ বছরে ৩৩৯টি কলেজ সরকারিকরণ করা হয়েছে: সংসদে শিক্ষামন্ত্রী রাজনৈতিক স্থিতিশীলতায় বাংলাদেশ এখন অনন্য উচ্চতায় রোহিঙ্গাদের ফেরাতে মিয়ানমারকে বোঝানোর জন্য চীনের প্রতি আহ্বান বৃদ্ধা মাকে সড়কে ফেলে গেলো সন্তান, ওসি দিলেন বুকে ঠাঁই জেনারেল আজিজ- একজন নিবেদিতপ্রাণ গলফার সেনাপ্রধান ‘প্রাণ-মিল্কভিটা-আড়ংসহ পাস্তুরিত সব দুধই মানহীন’ বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে লিভার প্রতিস্থাপনে সফল অস্ত্রোপচার ২০৩০ সালের মধ্যে দারিদ্র্য শূন্যের কোটায় আসবে কালো সোনা সাদা করে হাজার কোটি টাকা পাচ্ছে সরকার মেয়াদোত্তীর্ণ ইনজেকশনে আপত্তি, নার্সকে পেটাল ফার্মেসির লোক ২৮ জুন বসবে পদ্মা সেতুর ১৪তম স্প্যান ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনা ; ৯৯৯-এ ফোন করে শাহান মিয়া বাঁচালো ৩০০ প্রাণ সততার পুরস্কার পেলেন পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের ১৫ কর্মকর্তা দুদক কার্যালয়েই হবে দুর্নীতির মামলা ভারতের চেয়ে বাংলাদেশে হজ পালনের ব্যয় কম দিনের আলোয় বৃদ্ধার টাকা ভুল হাতে দিলো ব্যাংক

বুধবার   ২৬ জুন ২০১৯   আষাঢ় ১৩ ১৪২৬   ২২ শাওয়াল ১৪৪০

২১

দাবার গুটির দাম ৭ কোটি টাকা!

প্রকাশিত: ১২ জুন ২০১৯  

প্রায় ৫৫ বছর ধরে বাড়িতে পড়েই ছিল দাবার একটি গুটি। একটি প্রহরীর ছোট্ট মূর্তির মতো গুটিটির মাথায় হেলমেট, হাতে তলোয়ার রয়েছে। উচ্চতা ৮.৮ সেন্টিমিটার। কিন্তু এই একটা দাবার গুটিটির দাম প্রায় ৭ কোটি টাকা।

আগামী জুলাই মাসে একটি নিলামে ওঠানো হবে এই দাবার গুটিটি। নিলামে এর দর প্রায় ১ মিলিয়ন পাউন্ড পর্যন্ত হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। যা টাকার হিসাবে প্রায় ৭ কোটি টাকার সমান!

জানা গেছে, ১৯৬৪ সালে স্কটল্যান্ডের এক অ্যান্টিক জিনিসপত্রের বিক্রেতা অন্য এক অ্যান্টিক জিনিসপত্র বিক্রেতার কাছ থেকে সে সময় ৫ পাউন্ডের বিনিময়ে কিনেছিলেন এই দাবার গুটিটি। ওই বিক্রেতার মৃত্যুর পর থেকে তার মেয়ে এটি যত্ন করে রেখে দিয়েছিলেন পরিবারের একটি আসবাবের ড্রয়ারে।

এটির ‘অলৌকিক ক্ষমতা’ সম্পর্কে একটা বিশ্বাস ছিল ওই পরিবারে। এখনও এই পরিবারের সংগ্রহে থাকা অসংখ্য অ্যান্টিক দেখতে ভিড় জমান বহু মানুষ। এভাবেই একদিন অ্যান্টিক সংগ্রহ দেখতে এখানে এসে এই দাবার গুটির দিকে নজর পড়ে প্রত্নতত্ত্ববিদ, বিশেষজ্ঞ আলেকজান্ডার ক্যাডারের। তারপর এই গুটি নিয়ে টানা ৬ মাস ধরে গবেষণা চালিয়ে তিনি এটির ঐতিহাসিক গুরুত্ব সম্পর্কে নিশ্চিত হন।

এই দাবার গুটির সম্পর্কে আলেকজান্ডার জানান, ১৮৩১ সালে স্কটল্যান্ডের লুইস আইলের এক বালির স্তূপ থেকে উদ্ধার করা হয় ‘ওয়ালরাস টাস্ক ওয়ারিয়র চেসম্যান’র দাবার সেট। বিশেষজ্ঞদের মতে, ত্রয়োদশ শতাব্দীর প্রথমার্ধে সিন্ধুঘটকের দাঁত দিয়ে এটি নরওয়েতে তৈরি হয়েছিল সেখানকার যোদ্ধাদের অনুকরণে।

এই দাবার সেটের সঙ্গে মোট ৯৩টি গুটি উদ্ধার হয় যার ৮২টি গুটি ব্রিটিশ মিউজিয়ামে আর বাকি ১১টি স্কটল্যান্ডের ন্যাশনাল মিউজিয়ামে সংরক্ষিত রয়েছে। ব্রিটিশ প্রত্নতত্ত্ব বিশেষজ্ঞরা জানান, এই দাবার সেটের বিশেষত্ব হল এটির মোট গুটির সংখ্যা ৯৮টি। এর মধ্যে ৯৩টি গুটি উদ্ধার হয়েছে এবং ১টি যোদ্ধা ও ৪টি প্রহরীর খোঁজ মেলেনি।

আলেকজান্ডারের দীর্ঘ গবেষণায় জানা গেছে, স্কটল্যান্ডের ওই পরিবারে ৫৫ বছর ধরে সংরক্ষিত দাবার গুটিটি আসলে ‘ওয়ালরাস টাস্ক ওয়ারিয়র চেসম্যান’র দাবার সেটের ওই যোদ্ধার যেটি বিগত প্রায় ২০০ বছর ধরে ‘নিখোঁজ’ ছিল।

আগামী ২ জুলাই লন্ডনের সদবির ‘ওল্ড মাস্টার স্কালপচার অ্যান্ড ওয়ার্ক অব আর্ট’-এ নিলামে উঠবে এই দুষ্প্রাপ্য দাবার গুটিটি। তার আগে সেখানে সর্বসাধারণের দেখার জন্য একটি প্রদর্শনীর আয়োজন করা হবে।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর