ব্রেকিং:
প্রতিদিন কয়েকবার গরম পানির ভাপ নিয়েছি করোনায় ব্যতিক্রমী উদ্যোগ এমপিওভুক্তির সুখবর পেল ১৬৩৩ স্কুল-কলেজ ২০ হাজারের বেশি আইসোলেশন শয্যা প্রস্তুত রয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে মানুষ, দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে বৈশ্বিক ক্রয়াদেশ পূরণে সক্ষম বাংলাদেশ ॥ শেখ হাসিনা লোকসান ঠেকাতে সরাসরি ক্ষেত থেকে সবজি কিনছে সেনাবাহিনী করোনা পরীক্ষায় দেশে চালু হলো প্রথম বেসরকারি ল্যাব যে দোয়ার আমলে স্মরণশক্তি বৃদ্ধি পাবে ইনশাআল্লাহ! আল্লাহ তিন ধরনের লোকের দোয়া ফিরিয়ে দেন না করোনা রোগীদের বাড়ি প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার ভেন্টিলেটর-সিসিইউ স্থাপনে জরুরি প্রকল্প বঙ্গবন্ধুর মতো নেতা পৃথিবীতে খুব কম দেখা যায়: ট্রাম্প গবেষণা প্রটোকল জমা না দিয়েই বিষোদগার করছেন জাফরুল্লাহ জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচিতে নিয়োগ করোনা আক্রান্তের শরীরের অক্সিজেনের পরিমাণ ঘরেই পরীক্ষার উপায় মধ্যবিত্তরাও খাদ্যসহায়তার আওতায়: শিল্প প্রতিমন্ত্রী কর্মস্থল ত্যাগকারীদের তালিকা চায় মন্ত্রণালয় নাসিরনগরে শিশু নিহতের ঘটনায় গ্রেফতার ২ দেশে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্ত, আরো ৮ মৃত্যু
  • শনিবার   ০৬ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২৩ ১৪২৭

  • || ১৩ শাওয়াল ১৪৪১

৫৩৯

জলবায়ু পরিবর্তন ইস্যুতে উন্নত দেশগুলোর ভূমিকা চান রাষ্ট্রপতি

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ১০ জুলাই ২০১৯  

জলবায়ু পরিবর্তন অভিযোজন (খাপ খাওয়ানো) প্রচেষ্টার প্রসারে সক্রিয় ভূমিকা পালন ও আরো বেশি অর্থ ব্যয়ে উন্নত দেশ ও দাতাসংস্থাগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

মার্শাল আইল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট হিলদা সি হেইনি মঙ্গলবার বঙ্গভবনে সৌজন্য সাক্ষাতে গেলে রাষ্ট্রপতি এ আহ্বান জানান। সাক্ষাৎ শেষে রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন সংবাদিকদের এ বিষয় জানান।

রাষ্ট্রপতি জলবায়ু পরিবর্তন অভিযোজন কার্যক্রম প্রসারে হেইনির প্রচেষ্টার প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ অন্যতম ঝুঁকিপূর্ণ দেশ হলেও এটি স্বল্প পরিমাণে কার্বন নিঃসরণ করছে। বাংলাদেশ তার ঝুঁকি কাটিয়ে উঠতে নিরলসভাবে কাজ করছে।

রাষ্ট্রপতি জানান, গত এক দশকে বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তন প্রকল্পের জন্য উন্নয়ন কর্মসূচির অংশ হিসেবে গড়ে প্রতিবছর ১০০ কোটি মার্কিন ডলার ব্যয় করেছে। এছাড়া জলবায়ু সহিষ্ণুতা অর্জনে বাংলাদেশ নিজস্ব অর্থে জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাস্ট ফান্ড গঠন করেছে।

আব্দুল হামিদ আরো বলেন, বাংলাদেশ নবায়নযোগ্য জ্বালানি, জ্বালানি দক্ষতা ও জ্বালানি সংরক্ষণে ক্রমবর্ধমান জোর দিয়ে নিম্ন-কার্বন নিঃসরণকারী উন্নয়নের পথ অনুসরণ করছে। 

বাংলাদেশ বিদ্যুৎ সংযোগহীন এলাকায় গত কয়েক বছরে প্রায় ৫০ লাখ বাড়িতে সৌরবিদ্যুৎ ব্যবস্থা স্থাপন করেছে বলেও জানান তিনি।

জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদের সদস্য হিসেবে ২০২০-২২ মেয়াদে বাংলাদেশকে নির্বাচিত করার ক্ষেত্রে মার্শাল দ্বীপপুঞ্জের সমর্থনের জন্য হিলদা সি হেইনিকে ধন্যবাদ জানান রাষ্ট্রপতি।

প্রেসিডেন্ট হেইনি জলবায়ু পরিবর্তন ইস্যুতে বাংলাদেশের ভূমিকার প্রশংসা করে বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন ইস্যুতে কথা বলার জন্য দুই দেশ অঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে এক সঙ্গে কাজ করতে পারে। 

হিলদা সি হেইনি বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন, বিশেষ করে নারীর ক্ষমতায়নেরও প্রশংসা করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন মার্শাল দ্বীপপুঞ্জের প্রেসিডেন্ট কার্যালয়ের বিশেষ সহকারী কারসান হেইনিসহ রাষ্ট্রপতির সংশ্লিষ্ট সচিবরা।

‘ঢাকা মিটিং অব দ্য গ্লোবাল কমিশন অন অ্যাডাপ্টেশন’ শীর্ষক সম্মেলনে যোগ দিতে দুই দিনের সফরে বাংলাদেশে এসেছেন হিলদা সি হেইনি।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
জাতীয় বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর