ব্রেকিং:
করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ফিরলেন জাস্টিন ট্রুডোর স্ত্রী সোফি বাংলাদেশে তৈরি হল প্রথম ভেন্টিলেটর যন্ত্র ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানিয়ে পথচারীদের বাড়ি ফেরাচ্ছে সেনাবাহিনী চীনে সুস্থ হওয়া ৩ থেকে ১০ শতাংশ ফের আক্রান্ত সংসদ টিভিতে মাধ্যমিকের ক্লাস শুরু করোনাভাইরাস কীভাবে ছড়াচ্ছে, জানা নেই বিজ্ঞানীদেরও! অনলাইন কাঁপাচ্ছে ‘বড় লোকের বেটি’ ‘হক্কলে শুধু মুখোশ আর ওষধ দেয়, খাওন দেয় না’ দেশে নতুন করে কেউ করোনায় আক্রান্ত হননি কোয়ারেন্টাইন না মানায় ২৫ জনকে ৪ লাখ টাকা জরিমানা বাঞ্ছারামপুরে করোনা রোধে জীবাণুনাশক স্প্রে হোম কোয়ারেন্টাইনে না থাকায় দুবাই ফেরত যুবককে জরিমানা নিষেধাজ্ঞা অমান্য করায় কারাদন্ড ও অর্থদন্ড প্রদান করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে যুবসমাজের সচেতনতা মূলক উদ্যোগ বিষ প্রয়োগে ৩০ লক্ষ টাকার মাছ নিধন নাসিরনগরে ২ ভাইয়ের ঝগড়ায় প্রাণ গেল শিশুর নবীনগরে পিপিই , হ্যান্ডগ্লাপস, মাস্ক ও স্যানিটাইজার বিতরণ দৈনিন্দিন রুজি বন্ধ হওয়া খুচরা পান বিক্রেতার পাশে দাঁড়ালেন ইউএনও দূরত্ব বজায় রাখতে দোকানে দোকানে বৃত্ত এঁকে দিলেন ইউএনও থানা ভিত্তিক কুইক রেসপন্স টিমের অফিসারদের নাম ও মোবাইল নম্বর
  • রোববার   ২৯ মার্চ ২০২০ ||

  • চৈত্র ১৫ ১৪২৬

  • || ০৪ শা'বান ১৪৪১

১৪

ছেলে-মেয়ে ফিরতেই শ্বাসকষ্টে বাবার মৃত্যু, বাড়িতে উড়ছে লাল পতাকা

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ২৬ মার্চ ২০২০  

যশোরের বেনাপোলে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে  ওজিয়ার নামে এক বৃদ্ধ মারা যাওয়ার সন্দেহে ওই বৃদ্ধের বাড়িতে লাল পতাকা টানিয়ে দেয়া হয়েছে।

ওজিয়ার রহমান বুধবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে মারা যায়। তার বাড়ি বেনাপোল পোর্ট থানার কাগজপুকুর গ্রামে।

বৃদ্ধের পরিবারের সদস্যরা ভারতের বোম্বে শহর থেকে চোরাইপথে দেশে আসার পর ওই বৃদ্ধের শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়। এর এক সপ্তাহ পর সে মারা যায়। ঘটনাস্থল বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশ পরিদর্শন করেছে।

স্থানীয়রা জানান, ওজিয়ারের মেয়ে আম্বিয়া এবং ছেলে তরিকুল ইসলাম ভারতের বোম্বে শহরে দীর্ঘদিন ধরে থাকেন। সেখান থেকে তারা চোরাইপথে দেশে প্রবেশ করার পর বাড়িতে লুকিয়ে ছিলেন। এরপর তাদের বাবার মৃত্যুর পর ধারণা করা হচ্ছে যে, ওই বৃদ্ধ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

স্থানীয় বেনাপোল পৌর সভার কাউন্সিলর আমিরুল ইসলাম বলেন, ওজিয়ার রহমান একজন বৃদ্ধ লোক। তার শ্বাস কষ্ট ছিল। তবে তার পরিবারের সদস্যরা ভারত থেকে আসার পর শ্বাসকষ্ট বেশি দেখা দেওয়ায় ধারণা করা হচ্ছে করোনাভাইরাসে তার মৃত্যু হয়েছে।

স্থানীয় ডাক্তার ইদ্রিস আলী বলেন, গত রাতে রোগীর প্রেসার না পেয়ে আমি স্যালাইন ও গ্যাসের ওষুধ দিয়েছিলাম। এ ছাড়া ওই রোগী দীর্ঘদিন ধরে শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। সে বার্ধক্য ও হাঁপানি কাশিতে মারা যেতে পারে।

শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রের মেডিকেল অফিসার শুভাংকর কুমার রায় বলেন, ওজিয়ার রহমান কী রোগে মারা গেছে এটা এখনো আমরা নিশ্চিত না। আমাদের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বিষয়টি অবগত করা হয়েছে  আমরা তাদের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি। তার শরীরে করোনাভাইরাস আছে কিনা তা পরীক্ষা নিরীক্ষা না করে বলা যাবে না।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
করোনাভাইরাস বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর