ব্রেকিং:
নূর চৌধুরীর তথ্য প্রকাশে কানাডার আদালতে বাংলাদেশের পক্ষে রায় আখাউড়ায় শিক্ষকের যৌন হয়রানির প্রতিবাদে সড়কে শিক্ষার্থীরা সরাইলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চারপাশে জুয়া ও মাদকের আসর নাসিরনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান আখাউড়া উপজেলা ছাত্রলীগে পদ পেতে এ কি শর্ত দিলেন আইনমন্ত্রী! সরাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ১ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ব্রিটেনের প্রধান গির্জায় কোরআন তিলাওয়াতের বিরল ঘটনা স্মার্টফোনের বদলি হিসেবে ‘স্মার্ট গ্লাস’ আনছে ফেসবুক এডিআর বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক আওয়ামী লীগের নেতারা দুর্নীতি করলে ছাড় নয়: কাদের জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাবাব ফাতেমা ভাবির পরকীয়া দেখে ফেলায় জীবন দিতে হলো দেবরকে সর্বোচ্চ শক্তি দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে হামলার হুমকি ইরানের বেশি খাস জমি উদ্ধারকারী ডিসিকে পুরস্কৃত করা হবে: ভূমিমন্ত্রী বকেয়া পরিশোধে সময় পাচ্ছে রবি-গ্রামীণফোন ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের ফাইনালে বাংলাদেশ স্বর্ণজয়ী রোমান সানার মায়ের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন প্রধানমন্ত্রী জনগণের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে আন্তরিক সরকার: প্রধানমন্ত্রী আজ থেকে টানা তিন দিনের ছুটিতে আখাউড়া স্থল বন্দর ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শিক্ষার্থী সম্পৃক্তকরণ বিষয়ক কর্মসূচি অনুষ্ঠিত

বৃহস্পতিবার   ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৪ ১৪২৬   ১৯ মুহররম ১৪৪১

৪৯

গুইসাপ খেয়ে মরল বাঘ!

প্রকাশিত: ১৭ আগস্ট ২০১৯  

গুইসাপ খেয়ে মরল বাঘ। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি ঘটেছে গাজীপুরের শ্রীপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে।
গুইসাপ খাওয়ার পরই অসুস্থ হয়ে পড়ে বাঘটি। পরে সাতদিন অসুস্থতায় ভুগে ঈদের দিন বাঘটির মৃত্যু হয়। এখন এ পার্কে বাঘ পরিবারের সদস্য সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২টিতে।

সাফারি পার্কের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. তবিবুর রহমান জানান, গত ৫ আগস্ট দুপুরে পার্কের বাঘ বেষ্টনীতে এক বাঘ বড় আকৃতির একটি গুইসাপ খেয়ে ফেলে। পরে এদিন অন্যান্য বাঘ খাবার খেতে নির্দিষ্ট ঘরে গেলেও ওই বাঘটি আর ফেরেনি। পরদিন বাঘ বেষ্টনীর গেটম্যান নজরুল ইসলাম বাঘের গুইসাপ খাওয়ার কথা জানান আমাকে। বাঘটি গুইসাপ খাওয়ার পর থেকেই কোনো খাবার না খেয়ে ঝিমুতে শুরু করে। এরপর একে চিকিৎসার জন্য ৭ আগস্ট ট্রাঙ্কুলাইজার ব্যবহার করে, অচেতন করে চিকিৎসা দেয়া হয়। ৯ আগস্ট থেকে বাঘটি প্রকাশ্যে কোথাও দেখা যাচ্ছিল না। পরে ঈদের দিন বেলা পৌনে ১২টার দিকে বাঘ বেষ্টনীর ভেতরে রাস্তার উপরে মৃতাবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায় বাঘটিকে।

তিনি বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে গুইসাপ খেয়েই বাঘটি অসুস্থ হয়ে পড়ে এবং অন্য স্বাভাবিক খাবার না খেয়ে মারা গেছে। এ ছাড়া এটিকে বিষধর কোনো সাপেও কেটে থাকতে পারে।

এ ব্যাপারে মেডিকেল বোর্ড ও তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়নি। তবে শ্রীপুর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা উকিল উদ্দিন মৃত বাঘের ময়নাতদন্ত করার পর তার দেহের নমুনা পরীক্ষার জন্য ১৩ আগস্ট ঢাকার কেন্দ্রীয় রোগ গবেষণালয়ে পাঠানো হয়েছে। ওই রিপোর্ট পাওয়ার পর বাঘ মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

শ্রীপুর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা উকিল উদ্দিন জানান, খাদ্যের বিষক্রিয়া থেকেই বাঘটির মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর