ব্রেকিং:
টিউশনির টাকায় গুজবের বিরুদ্ধে ৩১ দিন হাঁটলেন সাইফুল কন্ডিশনিং ক্যাম্পেই যাত্রা শুরু নতুন দুই কোচের প্রথম সমকামী ক্রিকেটার হিসেবে মা হচ্ছেন স্যাটারওয়েট তারেকের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি কাদেরের স্মার্ট কার্ড অনলাইনে সংশোধন করবেন যেভাবে একজনের কিডনি ও লিভারে বাঁচলো তিনজনের প্রাণ পিতলের পুতুলকে সোনার মূর্তি বলে বিক্রি করে, চার জীনের বাদশা আটক বাংলাদেশ ও ইন্দোনেশিয়ার সেনাপ্রধানদের সৌজন্য সাক্ষাৎ প্রধানমন্ত্রীকে ভারত সফরে মোদির আমন্ত্রণ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার মান নিশ্চিত করতে হবে: রাষ্ট্রপতি আজ ভয়াল ২১ আগস্ট পানিবণ্টন সমস্যার সমাধান হবে: জয়শঙ্কর কুকুরের মুখ থেকে নবজাতককে বাঁচালেন পুলিশ কর্মকর্তা রক্তদানে সবাইকে এগিয়ে আসা উচিত: সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নয় বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী পালনের আগ্রহ প্রকাশ ভারতের মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষা ৪ অক্টোবর বৃহস্পতিবার ‘গাঙচিল’ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগী কমছে মিন্নির দোষ স্বীকার নিয়ে এসপির মন্তব্য জানতে চান হাইকোর্ট

বৃহস্পতিবার   ২২ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৬ ১৪২৬   ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

৭২৯

ক্যান্সারকে হারিয়ে টেবিল টেনিসে বাঙালি বালকের বিশ্বজয়

প্রকাশিত: ১৬ জুলাই ২০১৯  

ক্যান্সার কুঁড়ে কুঁড়ে খাচ্ছে অরণ্যতেশ গঙ্গোপাধ্যায়কে। বয়স তার ৮ বছর, তবুও আত্মবিশ্বাসের কমতি নেই। নিজের ইচ্ছে শক্তির কারণেই মস্কোতে আয়োজিত ওয়ার্ল্ড চিলড্রেনস উইনার্স গেমসে সোনা জিতেছে এই বাঙালি বালক।

মস্কোতে আয়োজিত এই গেমসে ক্যান্সার যোদ্ধাদের নিয়ে প্রতিযোগিতা হয় গত ৪ থেকে ৭ জুলাই পর্যন্ত। সেখানেই টেবিল টেনিসে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের হুগলী নদীর তীরের এই বালক।

অরণ্যতেশের লিউকিমিয়া ধরা পড়ে ২০১৬ সালের এপ্রিল মাসে। তারপর মুম্বাইতে প্রায় এক বছর থাকতে হয় তাকে। ২০১৮ সালে ক্যান্সার যুদ্ধে অনেকটাই জয়ী হয় সে। পুরোপুরি সুস্থ হতে এখনো অনেক সময়ের প্রয়োজন। মুম্বাইয়ের টাটা মেমোরিয়াল হাসপাতালে অরণ্যের চিকিৎসা চলছে।

 

সোনার জেতার পর অরণ্যতেশ

সোনার জেতার পর অরণ্যতেশ

অরণ্যতেশের মা কাবেরী বলেছেন, প্রতিযোগীতায় অংশ নেবে শুনেই খুবই উচ্ছ্বসিত ছিল সে। সে যে ক্যান্সারে আক্রান্ত, সেটা ভুলেই গেছে। তার মনোযোগ ছিল খেলায়। এখন সে বিশ্বজয়ের আনন্দে মাতোয়ারা।

কাবেরী আরো বলেছেন, গত দু’মাস ধরে অনেক পরিশ্রম করেছে অরন্যতেশ। সকাল সাড়ে পাঁচটায় শুরু হত ওর দিন। ৬টা থেকে দেড় ঘণ্টা চলত ট্র্যাক এবং ফুটবল প্র্যাকটিস। আর তারপরেই সাঁতার, দাবা এবং টেবিল টেনিস খেলত। সন্ধ্যা বেলায় শ্যুটিং ক্লাসে যেত অরণ্য।

শ্যুটিং কোচ পঙ্কজ পোদ্দার বলেন, অরণ্যতেশ যে ধরনের শান্ত ছেলে আর খেলার প্রতি ওর মনোনিবেশ। আমি তাকে দেখে মাঝেমধ্যে অবাক হয়ে যাই। আমরা এখনো ওকে ট্রেনিং দিয়ে যেতে চাই।

মস্কোতে আয়োজিত এই প্রতিযোগিতায় ট্র্যাক এন্ড ফিল্ড, ফুটবল, দাবা, টেবিল টেনিস, সাঁতার এবং রাইফেল শুটিং ছিল।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর