ব্রেকিং:
একনেকে ৫ হাজার কোটি টাকার ৮ প্রকল্প অনুমোদন ব্যাংক কর্মকর্তাকে ধর্ষণের পর হত্যা, পাঁচজনের মৃত্যুদণ্ড বেশির ভাগ দুধেই সিসা: হাইকোর্টে বিএসটিআইয়ের রিপোর্ট বিশ্বকাপ শেষেও বিশ্বসেরা ওয়ানডে অলরাউন্ডারের মসনদে সাকিব বসানো হবে বজ্রপাত নিরোধক টাওয়ার বউয়ের তালাক নোটিশ পেয়ে খুশিতে দুধ দিয়ে গোসল করলেন স্বামী শান্তিরক্ষা মিশনে বঙ্গবন্ধুর নামে সম্মেলন কক্ষ আসল নয়, বিশ্বকাপজয়ীদের রেপ্লিকা ট্রফি দেয়া হয়! গাড়িতে ‘পুলিশ’ স্টিকার লাগিয়ে প্রতারণা করতেন কবির হোসেন এইচএসসির ফল প্রকাশ বুধবার রাজধানীতে চালু হচ্ছে শাটল ট্রেন ট্রেনের ধাক্কায় বর-বধূসহ নিহত ১০ ৫০ বছর ধরে ‘আল্লাহু’ লেখা কাগজ সংরক্ষণ করছেন আবু জাকারিয়া জন্মভিটাতে ফেরা হলো না এরশাদের রোহিঙ্গা নির্যাতন তদন্তে ঢাকায় আসছে আইসিসি প্রতিনিধিদল একাদশে ভর্তিকৃতদের রেজিস্ট্রেশন ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে শিগগিরই কোচিং-নোটবই বন্ধ হচ্ছে! ‘অপরিকল্পিত শিল্প এলাকায় বিদ্যুৎ-গ্যাস নয়’ স্কুল টিভি চালুর পরিকল্পনা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বেসরকারি চাকরিজীবী ও বস্তিবাসীরাও ফ্ল্যাট পাবে: প্রধানমন্ত্রী

মঙ্গলবার   ১৬ জুলাই ২০১৯   শ্রাবণ ১ ১৪২৬   ১৩ জ্বিলকদ ১৪৪০

৬২৮

কৃষি বান্ধব বাজেটে কৃষকের মুখে হাসি, খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ দেশ

প্রকাশিত: ১৯ জুন ২০১৯  

দেশের সামগ্রিক উন্নয়নে কৃষি খাতের অবদান সবচেয়ে বেশি। তাই ক্ষমতায় আসলেই কৃষির প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রতিবারই ঢেলে সাজান কৃষিনির্ভর বাংলাদেশকে, গ্রহণ করেন নানামুখী পদক্ষেপ। এরই ধারাবাহিকতায় কৃষিতে চলমান অগ্রগতি ধরে রাখতে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটকে কৃষি বান্ধব করে সাজানো হয়েছে। যা কৃষকের মুখে এনে দিয়েছে হাসি, আর খাদ্যে আরো স্বয়ংসম্পূর্ণ হচ্ছে দেশ।

বিশ্বে ধান উৎপাদনে বাংলাদেশের অবস্থান চতুর্থ। যেখানে আগে দেশের সাড়ে সাত কোটি মানুষের জন্য দেড় কোটি মেট্রিক টন চাল প্রয়োজন হতো। এর মধ্যে দেশের উৎপাদন হতো ১ কোটি ১০ লাখ ১০ মেট্রিক টন। ফলে ৪০ মেট্রিক টন খাদ্য শস্য ঘাটতি পূরণে অন্যান্য দেশ ও আন্তর্জাতিক সাহায্য সংস্থাগুলোর দয়ার ওপর অপেক্ষা করতে হতো দেশকে।

সরকারের কৃষি বান্ধব বাজেটের ফলে ২০১৮ সালে দেশে ৩ কোটি ৬২ লাখ মেট্রিক টন ধান, ৩০ লাখ মেট্রিক টন ভুট্টা, ১৫ লাখ মেট্রিক টন গমসহ ৪ কোটি ১৩ লাখ মেট্রিক টন খাদ্য শস্য উৎপাদিত হয়। আরো ১ কোটি ৫ লাখ মেট্রিক টন আলু উৎপাদন করে প্রায় ৩০ লাখ মেট্রিক টন উদ্বৃত্ত রাখা সম্ভব হয়েছে।

বর্তমান বাংলাদেশের জনসংখ্যা বেড়ে প্রায় ১৭ কোটিতে দাঁড়িয়েছে। কৃষিক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নয়ন ও কৃষি উৎপাদনে সাফল্য আমাদের খাদ্য আমদানি নির্ভরতা থেকে রফতানিমুখী রাষ্ট্রে পরিণত করেছে। দেশের প্রত্যেক মানুষ আজ তিন বেলা পেট ভরে খেতে পারছে। কৃষকরা উদ্ভাবন ও উদ্ভাবনী ক্ষমতা উভয়কেই সাদরে গ্রহণ করে ঢেলে সাজিয়েছে বাংলাদেশের কৃষিকে। তাতেই গতি সঞ্চারিত হয়েছে কৃষি অর্থনীতিতে। কৃষকদের প্রণোদনা দেয়ায় চাষাবাদে এখন অল্প অর্থ ব্যয় করতে হয় কৃষকদের। 

সরকার কৃষকদের এত সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছে বিধায় এত ধান উৎপাদিত হয়েছে; যা অতীতে হয়নি। কাজেই কৃষক ও কৃষিকে রক্ষা করে খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকার বদ্ধ পরিকর। আর তাই কৃষি উপকরণ সহজলভ্য করা হয়েছে। সুষম সেচ ও সার সরবরাহ ব্যবস্থার কারণে চাষাবাদের ক্ষেত্রে নতুন দিগন্তের দ্বার উন্মোচিত হচ্ছে। কৃষি বাংলাদেশকে এনে দিয়েছে আন্তর্জাতিক মানের সাফল্য।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর