ব্রেকিং:
কাজ করতে করতে জীবন শেষ, তবুও শোধ হয় না দাদনের টাকা! একাধিক রিপোর্ট হওয়া সত্ত্বেও পড়ছে না প্রশাসনের সুদৃষ্টি গৃহবধূকে উত্ত্যক্ত করার দায়ে যুবকের কারাদণ্ড গাছে-গাছে সৌরভ ছড়াচ্ছে আমের মুকুল মাদ্রাসার হোস্টেলে ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ! কাতারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কৃতিত্বপূর্ণ সাফল্য অর্জন চাঞ্চল্যকর রকেট হত্যার ঘটনায় প্রতিবাদ সভা প্রতিবন্ধীদের ভাতা নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ চোরাচালান প্রতিরোধ ও আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত বাবাকে পেটানোর প্রতিশোধ নিতে হত্যাকাণ্ড! সোনা রোদে চোখ মেলেছে সূর্যমুখী এয়ার ফ্রেশনার ব্যবহারে বাড়ছে ক্যান্সারের ঝুঁকি! অপরাধ করে কেউ পার পাবে না: ওবায়দুল কাদের পুরান ঢাকায় ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান, ২০ কোটি টাকা উদ্ধার দেশীয় বেনসন-গোল্ডলিফে মিলল নিকোটিনের চেয়েও ‘মারাত্মক’ উপাদান ক্লাসে ঢুকে নারী শিক্ষকের হাত ভাঙলেন দম্পতি হরিণের চামড়ায় দাঁড়িয়ে সৌম্যের আশীর্বাদ, পড়বেন শাস্তির মুখে! মাদকিবরোধী অভিযানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর হামলা, গাড়ি ভাঙচুর সুইসাইড নোটে কী লিখেছিলেন সালমান শাহ ভালোবেসে বিয়ে করে কারাগারে তরুণ-তরুণী
  • মঙ্গলবার   ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ||

  • ফাল্গুন ১৩ ১৪২৬

  • || ০১ রজব ১৪৪১

৪৩৩

কাবিন থেকে ‘কুমারী’ শব্দ তুলে দেয়ার নির্দেশ

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ২৫ আগস্ট ২০১৯  

বিয়ের কাবিনে (নিকাহনামা) কুমারী শব্দটি তুলে দিয়ে ‘অবিবাহিত’ যোগ করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। এতদিন নিকাহনামার পাঁচ নম্বর কলামে ‘কুমারী’ শব্দ ব্যবহার হয়ে আসছিল।

একই সঙ্গে নিকাহনামার চারের ‘ক’ উপধারা যুক্ত করে ছেলেদের ক্ষেত্রে বিবাহিত, অবিবাহিত, তালাকপ্রাপ্ত (ডিভোর্স) বা বিপত্নীক কিনা লিপিবদ্ধ করতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

রোববার রুল নিষ্পত্তি করে বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি খিজির আহমেদ চৌধুরীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ এ রায় দেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী জেড আই খান পান্না ও আইনজীবী আইনুন্নাহার সিদ্দিকা। সম্পূরক আবেদনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী ইশরাত হাসান।

এর আগে গত ১৬ জুলাই আদালতে উপস্থিত সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার মুহাম্মদ বেলায়েত হোসেনের মতামত (ইন্টারভেনর) জানতে চাইলে তিনি বলেন, নিকাহনামার পাঁচ নম্বর কলাম বিধির রাখার প্রয়োজন নেই। এটা ব্যক্তির গোপনীয়তার বিরোধী। কনের ব্যক্তি মর্যাদাকে ক্ষুণ্ণ করে। ইসলামী শরিয়াহ এ ধরনের বিধানকে সমর্থন করে না।

২০১৪ সালে নিকাহনামার পাঁচ নম্বর কলামের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট দায়ের করে বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাষ্ট (ব্লাস্ট)। এ রিটে নিকাহনামাতে বর-কনের ছবি ও জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি সংযুক্ত করার নির্দেশনা চাওয়া হয়। পরে প্রাথমিক শুনানি শেষে নিকাহনামার পাঁচ নম্বর বিধিটি কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট। এ রুলের চূড়ান্ত নিষ্পত্তি করে রায় দেয়া হয়েছে।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আদালত বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর