ব্রেকিং:
প্রতিদিন কয়েকবার গরম পানির ভাপ নিয়েছি করোনায় ব্যতিক্রমী উদ্যোগ এমপিওভুক্তির সুখবর পেল ১৬৩৩ স্কুল-কলেজ ২০ হাজারের বেশি আইসোলেশন শয্যা প্রস্তুত রয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে মানুষ, দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে বৈশ্বিক ক্রয়াদেশ পূরণে সক্ষম বাংলাদেশ ॥ শেখ হাসিনা লোকসান ঠেকাতে সরাসরি ক্ষেত থেকে সবজি কিনছে সেনাবাহিনী করোনা পরীক্ষায় দেশে চালু হলো প্রথম বেসরকারি ল্যাব যে দোয়ার আমলে স্মরণশক্তি বৃদ্ধি পাবে ইনশাআল্লাহ! আল্লাহ তিন ধরনের লোকের দোয়া ফিরিয়ে দেন না করোনা রোগীদের বাড়ি প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার ভেন্টিলেটর-সিসিইউ স্থাপনে জরুরি প্রকল্প বঙ্গবন্ধুর মতো নেতা পৃথিবীতে খুব কম দেখা যায়: ট্রাম্প গবেষণা প্রটোকল জমা না দিয়েই বিষোদগার করছেন জাফরুল্লাহ জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচিতে নিয়োগ করোনা আক্রান্তের শরীরের অক্সিজেনের পরিমাণ ঘরেই পরীক্ষার উপায় মধ্যবিত্তরাও খাদ্যসহায়তার আওতায়: শিল্প প্রতিমন্ত্রী কর্মস্থল ত্যাগকারীদের তালিকা চায় মন্ত্রণালয় নাসিরনগরে শিশু নিহতের ঘটনায় গ্রেফতার ২ দেশে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্ত, আরো ৮ মৃত্যু
  • শুক্রবার   ০৫ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২২ ১৪২৭

  • || ১২ শাওয়াল ১৪৪১

৩৩

করোনা: ১৪৮ কোটি ডলারের অর্ডার বাতিল পোশাক শিল্পে

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ২৩ মার্চ ২০২০  

মহামারি আকারে ছড়াতে থাকা নভেল করোনা ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা এখন পর্যন্ত ১৪ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। বাংলাদেশেও  প্রতিদিন বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এ সংক্রমণের প্রভাব পড়েছে দেশের তৈরি পোশাকখাতেও। বাতিল হচ্ছে একের পর এক অর্ডার।

তৈরি পোশাক উৎপাদন ও রপ্তানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) তথ্য অনুযায়ী, করোনা ভাইরাসের প্রভাবে ভয়াবহ অবস্থা দেশের পোশাকখাতে। বিভিন্ন দেশ থেকে ক্রেতারা তাদের ক্রয়াদেশ (অর্ডার) আপাতত বাতিল করছেন। মোট এক হাজার ৮৯টি কারখানায় এক দশমিক ৪৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের অর্ডার (সাড়ে ১২ হাজার কোটি টাকা) বাতিল হয়েছে। বড় ধরনের সংকট তৈরি হয়েছে এ খাতে।
 
রোববারে (২২ মার্চ) দিনগত রাতে গণমাধ্যমকে দেওয়া এক বার্তায় বিজিএমইএ সভাপতি ড. রুবানা হক বলেন, ভয়াবহ অবস্থা চলছে আমাদের তৈরি পোশাক খাতে। বিভিন্ন দেশ ও মহাদেশ থেকে সমস্ত ক্রেতারা তাদের সমস্ত ক্রয়াদেশ (অর্ডার) আপাতত বাতিল করছেন। তারা বলেছেন স্থগিত, তবে আমাদের জন্য স্থগিত ও বাতিল একই জিনিস। এ পরিস্থিতি উদ্বেগের।

বার্তায় ড. রুবানা বলেন, আমাদের ক্ষতির পরিমাণ হিসাব করতে একটি ওয়েবপোর্টাল করেছি। সেখানে চার হাজার কারখানার মধ্য থেকে এক হাজার ৮৯টি কারখানাকে ক্ষতিগ্রস্ত হিসেবে এন্ট্রি করেছি। যেখানে ৮৭ কোটি ৩২ লাখ ৩৬ হাজার ৬২২টি অর্ডার বাতিল হয়েছে। যার আর্থিক পরিমাণ এক দশমিক ৪৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। এসব কারখানার মোট শ্রমিকের সংখ্যা ১২ লাখ।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
অর্থনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর