ব্রেকিং:
প্রতিদিন কয়েকবার গরম পানির ভাপ নিয়েছি করোনায় ব্যতিক্রমী উদ্যোগ এমপিওভুক্তির সুখবর পেল ১৬৩৩ স্কুল-কলেজ ২০ হাজারের বেশি আইসোলেশন শয্যা প্রস্তুত রয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে মানুষ, দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে বৈশ্বিক ক্রয়াদেশ পূরণে সক্ষম বাংলাদেশ ॥ শেখ হাসিনা লোকসান ঠেকাতে সরাসরি ক্ষেত থেকে সবজি কিনছে সেনাবাহিনী করোনা পরীক্ষায় দেশে চালু হলো প্রথম বেসরকারি ল্যাব যে দোয়ার আমলে স্মরণশক্তি বৃদ্ধি পাবে ইনশাআল্লাহ! আল্লাহ তিন ধরনের লোকের দোয়া ফিরিয়ে দেন না করোনা রোগীদের বাড়ি প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার ভেন্টিলেটর-সিসিইউ স্থাপনে জরুরি প্রকল্প বঙ্গবন্ধুর মতো নেতা পৃথিবীতে খুব কম দেখা যায়: ট্রাম্প গবেষণা প্রটোকল জমা না দিয়েই বিষোদগার করছেন জাফরুল্লাহ জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচিতে নিয়োগ করোনা আক্রান্তের শরীরের অক্সিজেনের পরিমাণ ঘরেই পরীক্ষার উপায় মধ্যবিত্তরাও খাদ্যসহায়তার আওতায়: শিল্প প্রতিমন্ত্রী কর্মস্থল ত্যাগকারীদের তালিকা চায় মন্ত্রণালয় নাসিরনগরে শিশু নিহতের ঘটনায় গ্রেফতার ২ দেশে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্ত, আরো ৮ মৃত্যু
  • শুক্রবার   ০৭ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৩ ১৪২৭

  • || ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

১৭৮

করোনায় ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ৩০ এপ্রিল ২০২০  

করোনা ভাইরাসের প্রভাবে ব্রাহ্মবাড়িয়ার আখাউড়ায় অঘোষিত লকডাউন চলছে। এলাকায় বিরাজ করছে এক প্রকার আতঙ্ক। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ ঘর থেকে বের হচ্ছে না। 

করোনা আতঙ্ক থাকায় অনেক ডাক্তার নিয়মিত তাদের  চেম্বারে বসছেন না। আবার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স খোলা থাকলেও সাধারণ রোগীরা  করোনা আতঙ্কে সেখানে অনেকেই যাচ্ছেন না। এ অবস্থায়  দুটি সংগঠনের উদ্যোগে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নিয়মিত লোকজন স্বাস্থ্য সেবা নিচ্ছেন।
 
করোনা ভীতি দূর করতে সামাজিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন আত্মীয় ও উপজেলা ছাত্রলীগ যৌথভাবে ব্যতিক্রমী এ উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। 

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক ডা. শ্যামল চন্দ্র ভৌমিক ও ডা. শুভ্র রায় এই দুইজন মোবাইল ফোনে নিয়মিত মানুষদের স্বাস্থ্য সেবা দিয়ে আসছেন।

এরইমধ্যে পৌর শহরসহ উপজেলায় সাধারণ মানুষের কাছে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন তারা। প্রতিদিন দুজন চিকিৎসকের মধ্যে একজন দুপুর ১২ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা, অপরজন সন্ধ্যা ৬ টা থেকে রাত ১০ টা পযর্ন্ত নিয়মিত এ চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। প্রতিদিন ২৫-৩০ জন মোবাইল ফোনের মাধ্যমে এ স্বাস্থ্য সেবা নিচ্ছেন। 

পৌর শহরের মসজিদ পাড়া এলাকার গৃহিনী আলেয়া বেগম বলেন, তার ছেলের জ্বর হলে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে স্বাস্থ্য সেবা নেয়া হয়। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ খাওয়ার পর এখন সে সুস্থ আছে। 

নীলান্দ্রী শান্তা বলেন, স্বাস্থ্য সেবা নিতে ফোন করা হলে চিকিৎসক সুন্দর করে আমার সমস্যার প্রতিকার বলে দিলেন। এ জন্য তিনি আয়োজক কে ধন্যবাদ জানান।
 
‘আত্মীয়’ প্রধান সমন্বয়ক সমীর চক্রবর্তী বলেন,  মানুষ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কারণে প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছে না। এ অবস্থায় অনেকেই আতঙ্কিত ও হতাশাগ্রস্ত হওয়া অস্বাভাবিক নয়। করোনা ভীতি দূর করতে ও সাধারণ মানুষ যাতে অতি সহজে স্বাস্থ্য সেবা নিতে পারে এ জন্য এ  উদ্যোগ নেয়া হয়। 

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক ডা. শ্যামল চন্দ্র ভৌমিক বলেন, মানুষ এমনিতেই করোনা নিয়ে আতঙ্কিত হয়ে আছেন। করোনা ভীতি দূর করতে মূলত এ সেবা দেয়া হচ্ছে। সাধারণত সর্দি, জ্বর, ঠান্ডাজনিত রোগ নিয়ে ফোন করছেন বেশি মানুষ। তাদের কথা শুনে অবস্থা বুঝে চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে। তাছাড়া ডায়াবেটিসসহ অন্যান্য রোগীরাও আমাদের কাছ থেকে পরামর্শ নিচ্ছেন।  

 
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর