ব্রেকিং:
প্রতিদিন কয়েকবার গরম পানির ভাপ নিয়েছি করোনায় ব্যতিক্রমী উদ্যোগ এমপিওভুক্তির সুখবর পেল ১৬৩৩ স্কুল-কলেজ ২০ হাজারের বেশি আইসোলেশন শয্যা প্রস্তুত রয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে মানুষ, দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে বৈশ্বিক ক্রয়াদেশ পূরণে সক্ষম বাংলাদেশ ॥ শেখ হাসিনা লোকসান ঠেকাতে সরাসরি ক্ষেত থেকে সবজি কিনছে সেনাবাহিনী করোনা পরীক্ষায় দেশে চালু হলো প্রথম বেসরকারি ল্যাব যে দোয়ার আমলে স্মরণশক্তি বৃদ্ধি পাবে ইনশাআল্লাহ! আল্লাহ তিন ধরনের লোকের দোয়া ফিরিয়ে দেন না করোনা রোগীদের বাড়ি প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার ভেন্টিলেটর-সিসিইউ স্থাপনে জরুরি প্রকল্প বঙ্গবন্ধুর মতো নেতা পৃথিবীতে খুব কম দেখা যায়: ট্রাম্প গবেষণা প্রটোকল জমা না দিয়েই বিষোদগার করছেন জাফরুল্লাহ জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচিতে নিয়োগ করোনা আক্রান্তের শরীরের অক্সিজেনের পরিমাণ ঘরেই পরীক্ষার উপায় মধ্যবিত্তরাও খাদ্যসহায়তার আওতায়: শিল্প প্রতিমন্ত্রী কর্মস্থল ত্যাগকারীদের তালিকা চায় মন্ত্রণালয় নাসিরনগরে শিশু নিহতের ঘটনায় গ্রেফতার ২ দেশে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্ত, আরো ৮ মৃত্যু
  • শুক্রবার   ০৫ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২২ ১৪২৭

  • || ১২ শাওয়াল ১৪৪১

৯৭

করোনার মন্দা কাটাতে মৌ-চাষিদের সহায়তা দেবে বিসিক

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ৮ এপ্রিল ২০২০  

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে দেশে গণপরিবহন সুবিধা সীমিত থাকায় মধু সংগ্রহে সমস্যায় থাকা মৌ-চাষি ও মৌয়ালদের সর্বাত্মক সহায়তা দেবে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশন (বিসিক)। 

বিসিক সূত্রে জানা গেছে, যান চলাচল সীমিত থাকার কারণে মৌয়াল ও মৌ-চাষিরা মধু সংগ্রহে যেতে সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন। বিশেষ করে সুন্দরবনে মধু সংগ্রহের মৌসুম শুরু হওয়ায় সেখানে মৌয়ালরা যেতে কোনো ধরনের প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হলে বিসিক এ ক্ষেত্রে সহায়তা দেবে। 

বিসিকের আধুনিক পদ্ধতিতে মৌ-চাষ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক খন্দকার আমিনুজ্জামান বলেন, প্রতি বছর ১৫ অক্টোবর থেকে ৩১ মে পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন স্থান হতে মধু সংগ্রহ করা হয়। বর্তমানে দেশে ২ হাজার ৫০০ মৌ-খামার ও ১ লাখ ২০ হাজারের অধিক মৌ-বাক্স রয়েছে। এসব খামার থেকে প্রতি বছর গড়ে ১০ হাজার মেট্রিক টন মধু উৎপাদিত হয়। 

তিনি জানান, চলতি মৌসুমে আট হাজার মেট্রিক টন মধু সংগৃহীত হয়েছে। বর্তমানে সুন্দরবনের মধু সংগ্রহের মৌসুম চলছে।  

এদিকে সুন্দরবনে মধু আহরণে কোনো সমস্যা দেখা দিলে বিসিকের খুলনা, বাগেরহাট, পটুয়াখালী ও সাতক্ষীরা জেলা অফিসগুলোতে মৌয়ালদের যোগাযোগের পরামর্শ দিয়েছেন বিসিকের চেয়ারম্যান মোশ্তাক হাসান। তিনি মধু সংগ্রহে মৌয়াল ও মৌ-চাষিদের বিসিকের পক্ষ হতে সর্বাত্মক সহায়তার আশ্বাস দেন। 

বিসিক সূত্রে আরো জানা গেছে, সারাদেশে বিসিকের ৬টি মৌমাছি পালন কেন্দ্র রয়েছে। বর্তমানে দেশে প্রায় ৮ হাজার মৌ-চাষি রয়েছে। প্রতি বছর মার্চ মাস জুড়ে দিনাজপুর, নাটোর, মাগুরা, গাজীপুর, ঠাকুরগাঁও, রংপুরসহ বিভিন্ন জেলায় লিচু বাগানে মৌ-চাষ করে মধু সংগ্রহ করে চাষিরা। তবে করোনাভাইরাসের প্রভাবে উত্তরাঞ্চলসহ দেশের অন্যান্য অঞ্চলে মৌ-চাষি ও মৌয়ালদের মধু উৎপাদনে কিছুটা নেতিবাচক প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। 

এছাড়া বিগত কয়েক বছরে বৈশ্বিক বাজারে এদেশের মধুর যে চাহিদা তৈরি হয়েছে, করোনায় সেটিও কিছুটা ক্ষতির মুখে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।  
 
উল্লেখ্য, বর্তমানে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎমধুর বাজার জাপানে মধু রফতানি করছে বাংলাদেশ। ৯০ এর দশকে বাংলাদেশ সর্বপ্রথম ভারতে মধু রফতানি করে। 

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
অর্থনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর