ব্রেকিং:
আজিজুল হকের মায়ের মৃত্যুতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের শোক সরকারি নির্মাণাধীন বাসগৃহ পরিদর্শন করেন ইউএনও মৎস্য ব্যবসায়ীদের বাজার বর্জন বাজার ব্যবস্থাপনা ও সংস্কার কাজ পরিদর্শন আকস্মিক কলেজ পরিদর্শনে জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী মধ্যযুগীয় কায়দায় গৃহবধুকে নির্যাতন অতঃপর ৯৯৯-এ ফোন কোচিং বাণিজ্যে ব্যস্ত বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা রেললাইনের পাশ থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার মাদক সেবন ও বিক্রির দায়ে মা-ছেলের কারাদণ্ড ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কওমী মাদরাসার সংবাদ বর্জনের সিদ্ধান্ত সুদমুক্ত ঋণ দিল বসুন্ধরা ফাউন্ডেশন সেচ প্রকল্পের খালে বাঁধ দিয়ে মাছ চাষ ও ময়লার স্তুপ! আত্মসমর্পণ করবেন অর্ধশতাধিক ইয়াবা ব্যবসায়ী সিনহাসহ ১১ জনকে হাজির হতে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তির নির্দেশ ভুয়া কাবিননামায় লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে প্রতারক চক্র গরু ব্যবসায়ীর টাকা হাতিয়ে নিয়ে ফেঁসে গেলেন এসআই মধ্যপ্রাচ্যের প্রভাবশালী দৈনিকে বাংলাদেশি শিশু আইমানের আবিষ্কার! ‘দুর্নীতিবাজ মানুষকে আগে ক্ষমা চাইতে হবে’ জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বরগুলোর রহস্য জেনে নিন অস্ত্রের মুখে অপহরণের পর নারীকে রাতভর ধর্ষণ, গ্রেফতার ১

বৃহস্পতিবার   ২৩ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ১০ ১৪২৬   ২৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

৪৫০৯

ওসি’র কথায় মুগ্ধ হয়ে ফিরে গেছেন তাহেরী

প্রকাশিত: ১৬ নভেম্বর ২০১৯  

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার শাহবাজপুর ও সদরের সৈয়দটুলা গ্রামে শুক্রবার রাতে মুফতি গিয়াস উদ্দিন আত-তাহেরী দু’টি মাহফিলে বক্তব্য রাখার কথা ছিল। কিন্তু ওই দুই মাহফিলে হাজারো ভক্ত গভীররাত পর্যন্ত অপেক্ষা করলেও তিনি আসেননি। পরে মাহফিল দু’টির আয়োজকদের জানানো হয় “তিনি রাতে যথাসময়ে মাহফিলের কাছাকাছি পৌঁছালেও পুলিশের কথায় রাস্তা থেকেই ফিরে যান।”

এ বিষয়ে রাতে সরাইল থানার ওসি সাহাদাত হোসেন টিটো এ প্রতিবেদককে জানান, ওই দুটি মাহফিল ঘিরে এলাকায় অস্থিরতা বিরাজ করছিল। এছাড়াও মাহফিল দুটিতে প্রশাসনের কোনো অনুমতি ছিল না।এলাকায় আইনশৃংখলা অবনতির আশঙ্কায় রাতে মহাসড়কে মুফতি গিয়াস উদ্দিন আত-তাহেরী’র গাড়ি থামিয়ে তাঁকে মাহফিল দুটিতে অংশগ্রহণ না করার জন্য বলা হয়। তিনি বিষয়টি বুঝতে পেরে ফিরে যান।

এ ব্যাপারে জানতে রাত সাড়ে ১১টায় মুফতি তাহেরীর মুঠোফোনে কল দিলে তিনি জানান, শতকরা নব্বই ভাগ মুসলমানের দেশ বাংলাদেশ। এই দেশে আল্লাহ-রাসূলের নামে ওয়াজ করতে গেলেও বাধা, এটা দুঃখজনক। এলাকার গরীব লোকজন সারাবছর কালেকশন করে (চাঁদা তুলে) এই মাহফিলের আয়োজন করেছেন। পুলিশ আমাকে মাহফিলে যেতে দেইনি। মুফতি তাহেরী বলেন, আমার জানা মতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে ১৭ জন বক্তার ওয়াজ মাহফিল মনিটরিং করতে আইনশৃংখলা বাহিনীকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, তবে বাধা দিতে বলা হয়নি। সেই তালিকায় আমার নাম নেই। আমি তাহেরী সরকার ও রাস্ট্রের বিরুদ্ধে কথা বলি না। আমার বিরুদ্ধে ধর্মীয় অনুভূতির আঘাত এনে দায়ের করা মিথ্যা মামলা আদালত খারিজ করে দিয়েছেন। আমার বিরুদ্ধে সরকারের কোন দফতর বা আদালতে কোনো অভিযোগ নেই। তারপরও আমাকে মাহফিলে যেতে দেওয়া হয়নি। রাত অনুমান ১০টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সরাইল উপজেলার প্রবেশ মুখ থেকে পুলিশ আমাকে ফিরিয়ে দিয়েছে, এটা সত্যিই দুঃখজনক। আমি সরাইল থানার ওসি সাহাদাত হোসেন টিটো’র কথায় মুগ্ধ হয়ে, তাঁকে সর্বোচ্চ সন্মান দেখিয়ে মাহফিলে না গিয়ে রাস্তা থেকেই ফিরে এসেছি।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর