ব্রেকিং:
পৌর আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতেই নিখোঁজ হন যুবদল নেতা ইউনুছ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ইতিহাস ও ঐতিহ্য `বিশ্বময় আলোচিত হচ্ছে বাংলাদেশের উন্নয়নের কথা` শিক্ষিত দুর্নীতিবাজরা দেশের অগ্রযাত্রার পথে বড় বাধা অর্ধকোটি টাকার ভারতীয় শাড়িসহ আটক ২ কসবায় ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদকসহ র‌্যাবের হাতে দুইজন ধরা রহস্যজনক কারণে এখনো অধরা ওরসে তাণ্ডবের আসামিরা! নবীনগরে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ প্রদান মুজিববর্ষ উপলক্ষে বাইসাইকেল ও শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ খোলা আকাশের নিচে নারীদের ভাগ্য বদল খাগড়াছড়িতে মিলল নতুন গুহার সন্ধান চীনের সঙ্গে বাণিজ্য সচল রাখতে চায় এফবিসিসিআই এক উপায়েই মিলবে ডায়াবেটিস থেকে চিরস্থায়ী মুক্তি! ফেসবুকে ‘কথা বললেই’ পাবেন ৪০০ টাকা বিল দাখিলের ৩ দিনের মধ্যে পেনশন ইসলামে মাতৃভাষার গুরুত্ব পাকিস্তানের নাগরিক হচ্ছেন স্যামি! দ্রুতই বিয়েটা সেরে ফেলতে চাই: শাকিব
  • সোমবার   ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ||

  • ফাল্গুন ১২ ১৪২৬

  • || ২৯ জমাদিউস সানি ১৪৪১

১১

ঐতিহাসিক গণঅভ্যুত্থান দিবস আজ

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া

প্রকাশিত: ২৪ জানুয়ারি ২০২০  

ঐতিহাসিক গণঅভ্যুত্থান দিবস আজ। ১৯৬৯ সালের ২৪ জানুয়ারি এদেশের ছাত্র-জনতা অকাতরে বুকের রক্ত দিয়ে গণমানুষের স্বাধীকার আদায়ের সংগ্রামে এক নতুন দিগন্তের সূচনা করেন। শহর থেকে গ্রাম-বাংলার সর্বত্র ধ্বনিত হয় ১১ দফা মানতে হবে।

১৭ থেকে ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত উত্তাল এ দিনগুলোতে স্বৈরাচার সরকারের বুলেটের আঘাতে প্রাণ দেয়- আসাদ, রুস্তম, মনির, মতিউর, ড. জোহাসহ নাম না জানা অসংখ্য মানুষ। স্বৈরশাসক আইয়ুব খানের বিরুদ্ধে বাংলার ছাত্র-জনতা যে ফুঁসে উঠেছিল, তার একটা যৌক্তিক পরিণতি মেলে এ দিনে।

এক সপ্তাহের দীর্ঘ আন্দোলনে ২৪ জানুয়ারি স্বৈরাচার সরকার পিছু হটে। সেই দিনের স্মৃতিকে ধারণ করে ১৯৭০ সাল থেকেই এ দিনটি গণঅভ্যুত্থান দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী পৃথক বাণী দিয়েছেন।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসে উনসত্তরের গণঅভ্যুত্থান এক তাৎপর্যপূর্ণ মাইলফলক। বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন, বাঙালির মুক্তির সনদ ৬ দফা, পরবর্তী সময় ১১ দফা ও উনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানের ধারাবাহিকতায় রক্তাক্ত সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাঙালি জাতি মহান স্বাধীনতা অর্জন করে। আন্দোলন দমাতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ অন্যদের বিরুদ্ধে আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা করা হয়। এ মামলায় বঙ্গবন্ধুকে বন্দি করা হয়।

এর প্রতিবাদে দেশব্যাপী ছাত্র-শ্রমিক-জনতা দুর্বার ও স্বতঃস্ফূর্ত আন্দোলন গড়ে তোলে। পাকিস্তানি সামরিক শাসন উৎখাতে ১৯৬৯ সালের এ দিনে সংগ্রামী জনতা শাসক গোষ্ঠীর দমন-পীড়ন ও সান্ধ্য আইন ভঙ্গ করে মিছিল বের করে। মিছিলে পুলিশের গুলি বর্ষণে নিহত হন নবকুমার ইন্সটিটিউশনের নবম শ্রেণীর ছাত্র মতিউর রহমান। এর আগে ২০ জানুয়ারি শহীদ হন আসাদুজ্জামান। শহীদ আসাদের আত্মদানের পর ২১, ২২ ও ২৩ জানুয়ারি শোক পালনের মধ্যদিয়ে সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণে ২৪ জানুয়ারি গণঅভ্যুত্থানের সৃষ্টি হয়।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
জাতীয় বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর