ব্রেকিং:
আরো কটা দিন বাঁচার স্বপ্ন দেখছে মাহাবুব ট্রেন দুর্ঘটনায় চালক, সহকারী ও গার্ড দায়ী শ্রেষ্ঠ শিক্ষক সম্মাননা প্রদান প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে বীজ ও সার বিতরণ অবশেষে ময়নাতদন্ত ছাড়াই আসমার লাশ ফিরে পেল বাবা-মা ভুয়া সাংবাদিক পরিচয়ে মাদক ব্যবসা, অতঃপর... স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিদর্শিকার সেচ্ছাচারিতা প্রতিটি ফার্মেসি ও ক্লিনিকে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হবে মরদেহ নিয়ে নিহতের পরিবার ও পুলিশের মধ্যে টানাপোড়া ভ্রাম্যমান আদালতে ৬ জুয়াড়ির জরিমানা পিকআপের ধাক্কায় অটো যাত্রীর করুণ মৃত্যু মাদক বিরোধী অভিযানে আটক ৬ নারীর এই তিন রোগে সতর্ক হতে হবে এখনই পঞ্চগড় থেকে স্পষ্ট দেখা দিচ্ছে কাঞ্চনজঙ্ঘা পাত্রীকে সোনা কেনার টাকা দেবে সরকার বাংলাদেশি রাজীবের সততায় স্যালুট জানাল সিঙ্গাপুর পুলিশ আজ থেকে শুরু ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন স্পষ্ট করে লিখতে চিকিৎসকদের নির্দেশ পরীক্ষার হলে উত্তরপত্র পৌঁছে দেন শিক্ষক! রোহিঙ্গা নির্যাতন: বিচারের মুখোমুখি হচ্ছেন সু চি

শুক্রবার   ২২ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬   ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

৭৩১

এবার গাঁজা দিয়ে শক্তিশালী অ্যান্টিবায়োটিক তৈরি!

প্রকাশিত: ২৫ জুন ২০১৯  

গাঁজার বিভিন্ন উপাদান দিয়ে শক্তিশালী নতুন অ্যান্টিবায়োটিক তৈরির পরিকল্পনা করেছে বিজ্ঞানীরা। সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার বিজ্ঞানীরা এ সংক্রান্ত গবেষণার একটি নিবন্ধ প্রকাশ করেছে।

প্রকাশিত ওই নিবন্ধে বিজ্ঞানীরা বিষয়টি নিয়ে কাজ করার কথা বলেছেন। তারা বলেছেন, অদূর ভবিষ্যতেই অ্যান্টিবায়োটিক তৈরি করা সম্ভব হবে। বহু দিন ধরেই বিশ্বের বিজ্ঞানীরা গাছপালা, পাতা আর ফুল দিয়ে অ্যান্টিবায়োটিক তৈরির বিষয়ে গবেষণা করছেন।  

শরীরের বিভিন্ন অংশে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া ধ্বংসের জন্য অ্যান্টিবায়োটিক অথবা অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল ব্যবহার করা হয়। মাঝে মাঝে এমন কিছু ব্যাকটেরিয়া পাওয়া যায় যেগুলো মেরে ফেলা কিংবা একেবারে ধ্বংস করা কষ্টকর হয়। এসব ব্যাকটেরিয়া রোগকে আরো বেশে জটিল করে তোলে।

অস্ট্রেলিয়ার একদল বিজ্ঞানী গাঁজার মধ্যে যে উপাদান খুঁজে পেয়েছেন তার নাম ক্যানাবাইডিওল, যা গাঁজার একটি নন-সাইকোঅ্যাকটিভ উপাদান। বিজ্ঞানীরা গবেষণাগারে পরীক্ষা করার পর দেখেছেন, এর মাধ্যমে সব ধরনের ব্যাকটেরিয়াকে ধ্বংস করা সম্ভব। যা প্রচলিত অ্যান্টিবায়োটিকের চেয়ে অধিক শক্তিশালী।

গবেষণাকারী বিজ্ঞানী দল গ্রাম পজিটিভ নামের স্ট্যাফিলোকোক্কাস অরিয়াস টাইপের এক ধরনের ব্যাকটেরিয়ার উপর পরীক্ষা করেন। হাসপাতাল বাগ হিসেবে পরিচিত এমআরএসএতে আক্রান্ত্র হওয়ার নেপথ্যে কাজ করে এই ব্যাকটেরিয়া। যার কারণে নিউমোনিয়াসহ আরো বেশ কিছু রোগ হয়। যা মানুষের মৃত্যুর জন্য দায়ী।

পরীক্ষায় গবেষকরা বিশেষ ধরনের এই বস্তু ইঁদুরের মধ্যেও প্রবেশ করান। যাতে প্রথামিকভাবে খুঁজে পাওয়া গেছে, এটির মাধ্যমে চর্ম রোগের মতো ভয়ানক রোগের চিকিৎসা করা সম্ভব। গাঁজার উপাদান থেকে তৈরি অ্যান্টিবায়োটিক দিয়ে খুব সহজে এই রোগ সারিয়ে তোলা যাবে।

সেন্টার ফর সুপারবাগ সল্যুশনের জ্যেষ্ঠ কেমিস্ট মার্ক ব্লাশকোভিচ গবেষক দলটির নেতৃত্বে ছিলেন। তিনি বলেন, এটি কীভাবে কাজ করবে আমরা এখনো জানি না। 

তিনি বলেন, তবে এটি ব্যাকটেরিয়া ধ্বংসের ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম একটি মেকানিজম হিসেবে কাজ করবে। এটি সেই সব ব্যাকটেরিয়াকে ধ্বংস করবে যা সাধারণ অ্যান্টিবায়োটিক দেয়ার পরও থেকে যায়।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর