ব্রেকিং:
‘আল্লাহর দল’র টার্গেটে ছিল পিলখানার ঘটনায় চাকরিচ্যুতরা আমি চাই সবার সঙ্গে মিশতে: প্রধানমন্ত্রী পানিতে তলিয়ে যেতে পারে জাকার্তা, বাঁচানোর কোনো উপায় নেই! সাত সপ্তাহ পর মন্ত্রিসভার বৈঠক রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন যেকোনো সময়: পররাষ্ট্র সচিব এডিস মশার বিরুদ্ধে ঢাকা উত্তরে ‘চিরুনি অভিযান’ সুস্থ হয়ে ফিরেছেন ৮৬ শতাংশ ডেঙ্গু রোগী ১০৯ নম্বরে ফোন পেয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করেছে উপজেলা প্রশাসন স্বাধীনতা বিরোধীরা এখনো ষড়যন্ত্র করছে: আইনমন্ত্রী কর্মসৃজন প্রকল্পে দুর্নীতি, ২১ জেলায় দুদকের অভিযান ৯৯৯ এ ফোন করে উদ্ধার হলেন ২০০ লঞ্চ যাত্রী পাকিস্তানকে ছাড়িয়ে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি পশু কোরবানি বাংলাদেশে বন্যাদুর্গতদের পুনর্বাসনে রয়েছে ১২০ কোটি টাকা বরাদ্দ ঘুষদাতার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী হুজুর সেজে ধর্ষককে ধরলেন পুলিশ কর্মকর্তা বিয়ের অনুষ্ঠানে বোমা হামলা, নিহত বেড়ে ৬৩ ইন্দোনেশিয়া ও ফিলিপাইনের রমণীদের পছন্দ বাংলাদেশি ছেলে রোহিঙ্গা নির্যাতন তদন্তে ঢাকায় মিয়ানমারের তদন্ত দল ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ টাইগারদের হেড কোচ হলেন রাসেল ডমিঙ্গো

সোমবার   ১৯ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৪ ১৪২৬   ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

৬৮৩

আতঙ্কিত হবেন না: ডেঙ্গু মরণব্যাধি নয়

প্রকাশিত: ৫ আগস্ট ২০১৯  

এডিস মশা বাহিত ডেঙ্গু ভাইরাস জনিত গ্রীষ্মমণ্ডলীয় একটি রোগ ডেঙ্গু জ্বর। এডিস মশার কামড়ের মাধ্যমে ভাইরাস সংক্রমণের তিন থেকে পনেরো দিনের মধ্যে সচরাচর ডেঙ্গু জ্বরের উপসর্গগুলো দেখা দেয়। উপসর্গগুলোর মাঝে রয়েছে জ্বর, মাথাব্যথা, বমি, পেশিতে ও গাঁটে ব্যথা এবং গায়ের চামড়ায় ফুসকুড়ি। তবে দুই থেকে সাত দিনের মাঝে সাধারণত ডেঙ্গু রোগী আরোগ্য লাভ করে।

কিছু কিছু ক্ষেত্রে রোগটি মারাত্মক রক্তক্ষরী রূপ নিতে পারে, যাকে ডেঙ্গু রক্তক্ষরী জ্বর (ডেঙ্গু হেমোরেজিক ফিভার) বলা হয়। এর ফলে রক্তপাত হয়, রক্ত অনুচক্রিকার মাত্রা কমে যায় এবং রক্ত প্লাজমার নিঃসরণ ঘটে। কখনো আবার ডেঙ্গু শক সিন্ড্রোম দেখা দেয়। ডেঙ্গু শক সিন্ড্রোমে রক্তচাপ বিপজ্জনকভাবে কমে যায়।

ডেঙ্গু জ্বর হলে পরিপূর্ণ বিশ্রাম নিতে হবে এবং বেশি করে তরল খাবার গ্রহণ করতে হবে। জ্বর কমাতে প্যারাসিটামল দেয়া হয়। প্রায়ই স্যালাইন দিতে হতে পারে। মারাত্মক রূপ ধারণ করলে রোগীকে রক্ত দিতে হতে পারে। ডেঙ্গু জ্বরে হলে কোনো ধরণের এন্টিবায়োটিক ও ননস্টেরয়েডাল প্রদাহপ্রশমী ওষুধ সেবন করা যাবে না।

ডেঙ্গু রোগের কিছু সত্য-

১. ডেঙ্গু ভাইরাস জনিত রোগ।

২. ডেঙ্গুর ৪ টা সেরোটাইপ আছে।।

৩. একবার ডেঙ্গু হলে আর হবে না এটা ভুল। যে সেরোটাইপ দিয়ে হয়েছে সেটা হবে না আর। অন্য তিনটি সেরোটাইপ দিয়ে হতে পারে।

৪. ডেঙ্গু ডোরা কাটা এডিস স্ত্রী মশা দ্বারা ছড়ায়।

৫. এটা আবদ্ধ পরিষ্কার পানিতে ডিম পারে।

৬. ফেইসবুক দেখে ডেঙ্গুর চিকিৎসা নিবেন না। কোনো টোটকা ব্যবহার করবেন না।

৭. সব সময় টিপিকাল প্রেজেন্টেশন না নিয়ে ডেঙ্গু হতে পারে।

৮. দুর্বল লাগলে ডাক্তারের কাছে রিপোর্ট করুন।

৯. প্রথমে রক্তের সি বি সি করুন।

১০. NS1 এন্টিজেন ৩০% ক্ষেত্রে নেগেটিভ হয়। ডেঙ্গু এন্টিবডি পজিটিভ হলে এন্টিজেন নেগেটিভ হয়।

১১. নিচে বাম দিকের গুলো ডেঞ্জার সাইন। ডান দিকের গুলো ক্লাসিকাল ডেঙ্গুর ব্যবস্থাপনা।

১২. সব জ্বর ডেঙ্গু নয়।

১৩. আতঙ্কিত না হয়ে চিকিৎসক এর পরামর্শ নিয়ে পজিটিভ হলে হাসপাতালে ভর্তি হন।

১৪. ডাক্তার না ছাড়পত্র দিলে হাসপাতাল ত্যাগ করবেন না।

১৫. এন্টিজেন একটি ডায়াগনস্টিক টেস্ট।

১৬. প্রথমে ব্লাড সিবিসি করে তারপর প্রয়োজন হলে এন্টিজেন করবেন।

 

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. নাছির উদ্দিন আহমেদ
পরিচালক, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর