ব্রেকিং:
আ’লীগ নেতার বিরুদ্ধে অপপ্রচারের প্রতিবাদে সম্মিলিত নাগরিক সমাজ বিএনপি নেতা দুদুর বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মামলা বিএনপি’র পকেট কমিটি বাতিলের দাবীতে বিক্ষোভ ও ঝাঁড়ু মিছিল ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত মুসলিম যাত্রী থাকায় আমেরিকান এয়ারলাইনসের ফ্লাইট বাতিল নির্ধারিত সময়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে: এলজিআরডি মন্ত্রী ব্যাংক নোটের আদলে বিল ব্যবহারে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হুঁশিয়ারি তিন স্পা সেন্টার থেকে ১৬ নারী ও ৩ পুরুষ আটক দেশে বেড়েই চলেছে ইন্টারনেটের গ্রাহক সংখ্যা শাবিপ্রবি উপাচার্য ফরিদ উদ্দিনের অনিয়ম ও দুর্নীতির শ্বেতপত্র রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সরকারের উদ্যোগের ঘাটতি নেই ক্যাসিনো চালাতে দেয়া হবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তেল স্থাপনায় হামলার প্রতিশোধ নেবে সৌদি আরব অনুপ্রবেশকারীদের চিহ্নিত করছে আওয়ামী লীগ মাদক ব্যবসায়ীদের চেনার উপায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ১১ জন খেলাঘরের জাতীয় পরিষদে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে অভিযানের নেপথ্যে করা ঝুঁকিপূর্ণ বিদ্যুৎ ব্যবস্থায় প্রাণহানির সম্ভাবনা ১৮ বছর পর জাপার আংশিক কমিটি গঠন আশুগঞ্জে আওয়ামী লীগের কিসের প্রতিবাদ সভা

সোমবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৮ ১৪২৬   ২৩ মুহররম ১৪৪১

৪৯

অনলাইনে কীভাবে জন্ম নিবন্ধন করাবেন?

প্রকাশিত: ২২ আগস্ট ২০১৯  

শিশুর জন্মের পর সরকারি খাতায় তার নাম লেখানো হলো জন্ম নিবন্ধন। নবজাতকের একটি নাম ও একটি জাতীয়তা নিশ্চিত করার প্রথম ধাপ এটি। আইন অনুযায়ী শিশুর জন্মের ৪৫ দিনের মধ্যে জন্ম নিবন্ধন বাধ্যতামূলক।

জন্ম নিবন্ধন কোথায় করবেন?

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়, পৌরসভা, সিটি করপোরেশন এবং সিটি করপোরেশনের আওতাধীন ওয়ার্ড কমিশনারের কার্যালয় থেকে জন্ম নিবন্ধন করা যায়।

অনলাইনে কীভাবে জন্ম নিবন্ধন করাবেন?

জন্ম নিবন্ধনের নির্ধারিত আবেদন ফরমে আবেদন করতে হবে। এছাড়া br.lgd.gov.bd ওয়েবসাইট থেকেও অনলাইনে জন্ম নিবন্ধনের আবেদন করা যায়। অনলাইনের আবেদন ফরমটি প্রিন্ট করে ওই কার্যালয়ে জমা দিতে হয়।

পাঁচ বছরের মধ্যে জন্ম নিবন্ধন করতে তথ্য সংগ্রহকারীর প্রত্যয়ন অথবা শিশুকে টিকা দেয়ার সময় ইপিআই কার্ডের সত্যায়িত অনুলিপি অথবা সংশ্লিষ্ট চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানের ছাড়পত্র বা ওই প্রতিষ্ঠান থেকে পাওয়া জন্মসংক্রান্ত সনদের সত্যায়িত অনুলিপি প্রয়োজন।

এছাড়া পাঁচ বছর পরে নিবন্ধন করতে হলে বয়স প্রমাণ, স্থায়ী ঠিকানা ও বর্তমান ঠিকানা, দলিল লাগবে। বয়স ও জন্মস্থান প্রমাণের জন্য ইপিআই কার্ড (টিকাদান কার্ড) বা পাসপোর্ট বা মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট বা কোন চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানের জন্মসংক্রান্ত ছাড়পত্র বা ওই প্রতিষ্ঠান থেকে প্রাপ্ত জন্মসংক্রান্ত সনদের সত্যায়িত অনুলিপি লাগবে।

জন্মনিবন্ধন ফি

জন্মের ৪৫ দিনের মধ্যে জন্ম নিবন্ধন করতে কোনো ফি দিতে হবে না। তবে ৪৫ দিন পর থেকে পাঁচ বছরের মধ্যে নিবন্ধন করতে ২৫ টাকা লাগবে। এছাড়া পাঁচ বছর পর নিবন্ধন করতে ফি দিতে হবে ৫০ টাকা। সেই সঙ্গে যদি কেউ নিবন্ধনে জন্মতারিখ সংশোধন করতে চায়, সেক্ষেত্রে আবেদন ফি ১০০ টাকা। তবে জন্মতারিখ ছাড়া নাম, বাবা-মায়ের নাম, ঠিকানা সংশোধন করতে ফি ৫০ টাকা।

এছাড়া বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষায় মূল সনদ বা তথ্য সংশোধনের পর সনদের কপি পেতে কোনো টাকা লাগবে না। তবে বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষায় সনদের নকল সরবরাহ পেতে লাগবে ৫০ টাকা।

প্রবাসীরা দূতাবাসে এই জন্ম নিবন্ধন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে ৪৫ দিনের মধ্যে কোনো ফি লাগবে না। ৪৫ দিনের পর থেকে যেকোনো সময় এক মার্কিন ডলার দিতে হবে। সেই সঙ্গে যদি কেউ নিবন্ধনে জন্মতারিখ সংশোধন করতে চায় সে ক্ষেত্রে আবেদন ফি দুই ডলার। 

তবে জন্মতারিখ ছাড়া নাম, বাবা-মায়ের নাম, ঠিকানা সংশোধন করতে ফি এক ডলার। বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষায় মূল সনদ বা তথ্য সংশোধনের পর সনদের কপি পেতে কোনো টাকা লাগবে না। তবে বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষায় সনদের নকল সরবরাহ পেতে লাগবে এক ডলার।

জন্মনিবন্ধন কী কাজে লাগে

২০০৯ সাল থেকে ১৬টি মৌলিক সেবা পেতে জন্মসনদ প্রয়োজন হয়। বয়স প্রমাণের জন্য জন্মনিবন্ধনের সনদ বা এর সত্যায়িত ফটোকপি ব্যবহার করতে হয়। পাসপোর্ট, বিবাহ নিবন্ধন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি, সরকারি ও বেসরকারি বা স্বায়ত্তশাসিত সংস্থায় নিয়োগদান, গাড়ি চালানোর লাইসেন্স, ভোটার তালিকা প্রণয়নসহ বিভিন্ন সরকারি কাজে জন্মনিবন্ধন প্রয়োজন। এছাড়া জাতীয় পরিচয়পত্র, ব্যাংক হিসাব খোলা, সংযোগ (গ্যাস, পানি, টেলিফোন ও বিদ্যুৎ), ট্যাক্স আইডেন্টিফিকেশন নম্বরসহ (টিআইএন) বিভিন্ন কাজে সরকারি অনুমোদন পেতে অবশ্যই নিবন্ধন লাগবে।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর