ব্রেকিং:
গুজবে কান না দিতে পুলিশের অনুরোধ মহাসড়কে অ্যালকোহল ডিটেক্টর চালু জালের সাথে মানুষের শত্রুতা! চট্রগ্রাম রেঞ্জে শ্রেষ্ঠ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেয়ালের মাংসকে খাসির মাংস বলে বিক্রি, অতঃপর... `সকলের জন্য উন্নত স্যানিটেশন, নিশ্চিত হোক সুস্থ জীবন` নৈরাজ্য তৈরির জন্যই ভোলায় সংঘর্ষ স্ট্রোকের মৃত্যুকে হত্যাকাণ্ড বলে মামলা দায়ের সীমান্তে দুই নাইজেরিয়ান আটক বয়স বাড়িয়ে প্রেমিকাকে বিয়ে, কারাগারে প্রেমিক প্রভাবশালীর দাপটে নদীর মাটি যাচ্ছে ইট ভাটায় দূর্যোগ মোকাবেলায় সরকার সবোর্চ্চ গুরুত্ব দিয়ে কাজ করছে ব্লেড দিয়ে কেটে স্কুলছাত্রীকে নির্যাতন উচ্চ রক্তচাপ কমানোর সহজ মন্ত্র প্রধান শিক্ষকের প্রেমে মজে পঞ্চমবারের মতো বিয়ের পিঁড়িতে শিক্ষিকা ক্রিকেটারদের ধর্মঘট নিয়ে যা বললেন গাঙ্গুলি বান্দরবানে টিয়েন্স গ্রুপের তিন যুবক আটক কে জিতবেন ব্যালন ডি’অর? ফুসফুসের ক্যান্সার প্রতিরোধের মহৌষধ! সরকারি চাকরিজীবীদের গ্রেফতারে অনুমতি নিয়ে হাইকোর্টের রুল

বুধবার   ২৩ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৭ ১৪২৬   ২৩ সফর ১৪৪১

৭৬

অনলাইনে কীভাবে জন্ম নিবন্ধন করাবেন?

প্রকাশিত: ২২ আগস্ট ২০১৯  

শিশুর জন্মের পর সরকারি খাতায় তার নাম লেখানো হলো জন্ম নিবন্ধন। নবজাতকের একটি নাম ও একটি জাতীয়তা নিশ্চিত করার প্রথম ধাপ এটি। আইন অনুযায়ী শিশুর জন্মের ৪৫ দিনের মধ্যে জন্ম নিবন্ধন বাধ্যতামূলক।

জন্ম নিবন্ধন কোথায় করবেন?

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়, পৌরসভা, সিটি করপোরেশন এবং সিটি করপোরেশনের আওতাধীন ওয়ার্ড কমিশনারের কার্যালয় থেকে জন্ম নিবন্ধন করা যায়।

অনলাইনে কীভাবে জন্ম নিবন্ধন করাবেন?

জন্ম নিবন্ধনের নির্ধারিত আবেদন ফরমে আবেদন করতে হবে। এছাড়া br.lgd.gov.bd ওয়েবসাইট থেকেও অনলাইনে জন্ম নিবন্ধনের আবেদন করা যায়। অনলাইনের আবেদন ফরমটি প্রিন্ট করে ওই কার্যালয়ে জমা দিতে হয়।

পাঁচ বছরের মধ্যে জন্ম নিবন্ধন করতে তথ্য সংগ্রহকারীর প্রত্যয়ন অথবা শিশুকে টিকা দেয়ার সময় ইপিআই কার্ডের সত্যায়িত অনুলিপি অথবা সংশ্লিষ্ট চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানের ছাড়পত্র বা ওই প্রতিষ্ঠান থেকে পাওয়া জন্মসংক্রান্ত সনদের সত্যায়িত অনুলিপি প্রয়োজন।

এছাড়া পাঁচ বছর পরে নিবন্ধন করতে হলে বয়স প্রমাণ, স্থায়ী ঠিকানা ও বর্তমান ঠিকানা, দলিল লাগবে। বয়স ও জন্মস্থান প্রমাণের জন্য ইপিআই কার্ড (টিকাদান কার্ড) বা পাসপোর্ট বা মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট বা কোন চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানের জন্মসংক্রান্ত ছাড়পত্র বা ওই প্রতিষ্ঠান থেকে প্রাপ্ত জন্মসংক্রান্ত সনদের সত্যায়িত অনুলিপি লাগবে।

জন্মনিবন্ধন ফি

জন্মের ৪৫ দিনের মধ্যে জন্ম নিবন্ধন করতে কোনো ফি দিতে হবে না। তবে ৪৫ দিন পর থেকে পাঁচ বছরের মধ্যে নিবন্ধন করতে ২৫ টাকা লাগবে। এছাড়া পাঁচ বছর পর নিবন্ধন করতে ফি দিতে হবে ৫০ টাকা। সেই সঙ্গে যদি কেউ নিবন্ধনে জন্মতারিখ সংশোধন করতে চায়, সেক্ষেত্রে আবেদন ফি ১০০ টাকা। তবে জন্মতারিখ ছাড়া নাম, বাবা-মায়ের নাম, ঠিকানা সংশোধন করতে ফি ৫০ টাকা।

এছাড়া বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষায় মূল সনদ বা তথ্য সংশোধনের পর সনদের কপি পেতে কোনো টাকা লাগবে না। তবে বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষায় সনদের নকল সরবরাহ পেতে লাগবে ৫০ টাকা।

প্রবাসীরা দূতাবাসে এই জন্ম নিবন্ধন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে ৪৫ দিনের মধ্যে কোনো ফি লাগবে না। ৪৫ দিনের পর থেকে যেকোনো সময় এক মার্কিন ডলার দিতে হবে। সেই সঙ্গে যদি কেউ নিবন্ধনে জন্মতারিখ সংশোধন করতে চায় সে ক্ষেত্রে আবেদন ফি দুই ডলার। 

তবে জন্মতারিখ ছাড়া নাম, বাবা-মায়ের নাম, ঠিকানা সংশোধন করতে ফি এক ডলার। বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষায় মূল সনদ বা তথ্য সংশোধনের পর সনদের কপি পেতে কোনো টাকা লাগবে না। তবে বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষায় সনদের নকল সরবরাহ পেতে লাগবে এক ডলার।

জন্মনিবন্ধন কী কাজে লাগে

২০০৯ সাল থেকে ১৬টি মৌলিক সেবা পেতে জন্মসনদ প্রয়োজন হয়। বয়স প্রমাণের জন্য জন্মনিবন্ধনের সনদ বা এর সত্যায়িত ফটোকপি ব্যবহার করতে হয়। পাসপোর্ট, বিবাহ নিবন্ধন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি, সরকারি ও বেসরকারি বা স্বায়ত্তশাসিত সংস্থায় নিয়োগদান, গাড়ি চালানোর লাইসেন্স, ভোটার তালিকা প্রণয়নসহ বিভিন্ন সরকারি কাজে জন্মনিবন্ধন প্রয়োজন। এছাড়া জাতীয় পরিচয়পত্র, ব্যাংক হিসাব খোলা, সংযোগ (গ্যাস, পানি, টেলিফোন ও বিদ্যুৎ), ট্যাক্স আইডেন্টিফিকেশন নম্বরসহ (টিআইএন) বিভিন্ন কাজে সরকারি অনুমোদন পেতে অবশ্যই নিবন্ধন লাগবে।

আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া
এই বিভাগের আরো খবর